ঢাকা বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ আশ্বিন ১৪২৭, ০৫ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দশ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ

রিজেন্ট সাহেদের প্রতারণা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

মোহাম্মদ সাহেদ প্রতিষ্ঠিত রিজেন্ট হাসপাতালে করোনার ভুয়া টেস্ট, চিকিৎসার নামে প্রতারণা এবং প্রতারিত সকল পরিবারকে ১০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ দেয়া হয়েছে। নোটিশে সব বৈধ ও লাইসেন্সপ্রাপ্ত হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টারের তালিকা প্রকাশ এবং প্রত্যেক থানায় স্বাস্থ্য মনিটরিং কমিটি করতে বলা হয়েছে।

গতকাল ব্যারিস্টার ইশরাত হাসানের পক্ষে সুপ্রিম কোর্ট বারের ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম এ নোটিশ দেন। স্বাস্থ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ও রিজেন্ট হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে নোটিশের ‘প্রাপক’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। প্রাপ্তির ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এ বিষয়ে আশু পদক্ষেপ না নিলে উচ্চ আদালতে প্রতিকার চেয়ে মামলা করা হবে মর্মে হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়, লাইসেন্সবিহীন রিজেন্ট হাসপাতালের সাথে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের চুক্তি, বুথ বানিয়ে করোনা টেস্টের অনুমতি প্রদান করেছে। এটি চরম দায়িত্বহীনতা ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের শামিল। ভুয়া করোনা টেস্টের রিপোর্ট ডেলিভারি দিয়ে রিজেন্ট হাসপাতাল জনগণের সাথে চরমভাবে প্রতারণা করেছে। তাই প্রতারণার শিকার পরিবারদের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

এতে আরও বলা হয়, রাজধানীসহ সারা দেশে মাশরুমের মতো গড়ে ওঠা লাইসেন্সবিহীন হাসপাতাল। করোনা টেস্টের ভুয়া রিপোর্ট নিয়ে বিদেশ ভ্রমণ, বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা, বিল নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কার্যত কোনো পদক্ষেপ নেই। যা জনগণের বেঁচে থাকার সাংবিধানিক অধিকারকে সুস্পষ্টভাবে লঙ্ঘন করেছে। তাই ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে দেশের সব হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং বৈধ লাইসেন্সপ্রাপ্ত হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লিস্ট প্রকাশ করতে হবে। লাইসেন্সবিহীন হাসপাতালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ এবং রিজেন্ট হাসপাতালের প্রতারণার শিকার প্রত্যেক পরিবারকে ১০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিতে হবে মর্মে উল্লেখ করা হয় লিগ্যাল নোটিশে।

নোটিশ প্রেরক ইশরাত হাসান বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বহীনতা আমাদের ভীষণ আঘাত করেছে। স্বাস্থ্যসেবা পাওয়ার মৌলিক অধিকারকে লঙ্ঘিত করেছে। চোখের সামনে বেসরকারি হাসপাতালগুলোর প্রতারণা দেখেও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় চোখ বন্ধ করে আছে। জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষার দায়িত্বে থেকে পালনে ব্যর্থ হয়েছে চরমভাবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন