ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

উপনিবেশিক প্রভাব খাটানোর কল্পনা বিলাস ছেড়ে দিন

হুঁশিয়ারির ২৪ ঘণ্টার মধ্যে লন্ডনকে পাল্টা হুমকি দিল বেইজিং

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ জুলাই, ২০২০, ১২:০২ এএম

মাত্র পাঁচ বছর আগে ব্রিটেন চীনের সাথে বাণিজ্যে একটি ‘স্বর্ণযুগ’-এর ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল। হংকং, হুয়াওয়ে এবং মানবাধিকারকে কেন্দ্র করে দেশ দু’টির চকচকে ভাব আজ বিবর্ণ হয়ে উঠেছে। লন্ডন প্রাক্তন ব্রিটিশ উপনিবেশ হংকংয়ের সাথে প্রত্যর্পণের চুক্তি প্রত্যাহারের পর বেইজিং এখন ‘পরিণতির’ হুমকি দিচ্ছে। এটি হয়েছে টেলিকম জায়ান্ট হুয়াওয়েকে কালো তালিকাভুক্ত করার ব্রিটেনের সিদ্ধান্তের পর। জিনজিয়াংয়ের উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলে জাতিগত সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর সাথে তার আচরণ নিয়ে ব্রিটিশদের সমালোচনা নিয়েও চীন ক্ষুব্ধ।

হংকংকে জাতীয় নিরাপত্তা আইনের আওতায় আনলে চীনের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিল ব্রিটেন। সোমবার ব্রিটিশ পররাষ্ট্র সচিবের এ হুঁশিয়ারির ২৪ ঘণ্টার মধ্যে লন্ডনকে পাল্টা হুমকি দিয়েছে বেইজিং। ব্রিটেন এমন পদক্ষেপ গ্রহণ করলে তারা পাল্টা আক্রমণ চালাতে বাধ্য হবে বলে এদিন জানিয়েছে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বেইজিং স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিয়েছে, ব্রিটেন যেন হংকংয়ের উপর উপনিবেশিক প্রভাব খাটানোর কল্পনাবিলাসিতা না দেখায়। এদিকে আন্তর্জাতিক মহলও চীন সরকারের হংকংকে জাতীয় নিরাপত্তা আইনের আওতায় আনার মতো পদক্ষেপের বিরুদ্ধে সরব। এই পঙক্তি সর্বাগ্রে দাঁড়িয়ে ট্রাম্পের নেতৃত্বাধীন আমেরিকা। চীনের এই আইন নিয়ে ঘোরতর বিরোধিতায় নেমেছে ব্রিটেনও। হংকং এক সময় ব্রিটেনেরই উপনিবেশ ছিল। এ প্রসঙ্গেই সোমবার ব্রিটিশ পররাষ্ট্র সচিব ডোমিনিক রাব পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে বেইজিংয়ের উদ্দেশে বলেন, ‘চীন হংকংয়ের উপর জাতীয় নিরাপত্তা আইন প্রয়োগ করতে চাইলে সঙ্গে সঙ্গে হংকংয়ের সঙ্গে বন্দি বিনিময় চুক্তি স্থগিত করা হবে। সেই সঙ্গে নিষেধাজ্ঞাও জারি করা হতে পারে।’ রাব জানিয়ে দেন, স্পষ্ট এবং দৃঢ় রক্ষাকবচ দেওয়া না হলে বন্দি বিনিময় থমকে যেতে পারে।
চীনের জাতীয় নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহার হতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেন রাব। ব্রিটেনের এই মন্তব্যে যেন আগুনে ঘি পড়েছে। প্রত্যুত্তরে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, ‘ইউনাইটেড কিংডমের কোনও ভ্রান্ত পদক্ষেপের জন্য পাল্টা আক্রমণ চালাতে বাধ্য হবে চীন।’ এর সঙ্গেই তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘চীন ইউনাইটেড কিংডমকে আর্জি জানাচ্ছে, তারা যেন হংকংয়ে উপনিবেশিক প্রভাব খাটানোর কল্পনা না করে এবং তারা যেন দ্রুত ভুল শুধরে নেয়।’
দীর্ঘকাল ব্রিটেনের উপনিবেশ ছিল হংকং। ১৯৯৭ সালে চীনের দখলে আসে। চলতি মাসে ওই একই ইস্যুতে হংকংয়ের সঙ্গে বন্দি বিনিময় চুক্তি স্থগিত করেছে অস্ট্রেলিয়া এবং কানাডার মতো দেশগুলো। হংকংয়ের সঙ্গে নির্দিষ্ট আর্থিক লেনদেন বন্ধ করে দিয়েছে আমেরিকা। সূত্র : এএফপি, রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন