ঢাকা শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৭, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সুস্থতার খবর আশা জাগাচ্ছে

করোনাভাইরাস : কমেছে বাসায় নমুনা পরীক্ষায় জটিলতা

হাসান সোহেল | প্রকাশের সময় : ২৪ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

দেশে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু। তবে করোনায় স্বস্তির খবর হলো দেশে সুস্থতার হারও বাড়ছে। আশার খবর হলো ঘন ঘন জিন পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশে করোনার রূপ আগের মতো ভয়বাহ নেই। আক্রান্ত হলেই শ্বাসকষ্টসহ জটিল সমস্যাগুলো হওয়ার প্রবণতা অনেকটা কমে গেছে। আক্রান্তদের বেশির ভাগেরই উপসর্গ মৃদু। আর তাই হাসপাতালে না গিয়ে চিকিৎসকদের টেলিমেডিসিন সেবার মাধ্যমে বাসায় বসেই চিকিৎসা নিচ্ছেন অধিকাংশ করোনা শনাক্ত রোগী। এতে হাসপাতালের ওপর রোগীর চাপও অনেকটা কমেছে। আর তাই করোনা ডেডিকেডেট হাসপাতালগুলোতে রোগী ভর্তি কমেছে।

দেশের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত বুলেটিনে গতকাল জানানো হয়, গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ১৯ হাজার ২০৮ জন। এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২ লাখ ১৬ হাজার ১১০ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৫ দশমিক ১৬ শতাংশ।

এদিকে এতোদিন করোনার নমুনা পরীক্ষা নিয়ে নানা ধরনের ঝামেলা পোহাতে হলেও এখন কিছুটা স্বাভাবিক হয়েছে। আগে যারা বাসায় গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করতেন তারা রোগীদের বুকিং সিরিয়াল ১৫ দিনেও দিতে পারতেন না। তবে বর্তমানে সেই পরিস্থিতি আর নেই। এখন বেসরকারি নামি-দামী হাসপাতালগুলো করোনা পরীক্ষা সেবা বাড়িয়েছে। ইউনাইটেড হাসপাতাল বাসায় গিয়ে নমুনা পরীক্ষা করছে। পাশাপাশি এভারকেয়ার হাসপাতাল (সাবেক অ্যাপোলো) তাদের বর্হিবিভাগে নমুনা পরীক্ষায় জিপি স্টার কাস্টমারদের ছাড় দিচ্ছে ১০ শতাংশ।

বারডেম হাসপাতাল ভর্তি রোগীদের নুমনা পরীক্ষা করাচ্ছে। অথচ কয়েকদিন আগেও এসব হাসপাতালের বিরুদ্ধে করোনার নমুনা পরীক্ষায় অতিরিক্ত ‘ফি’ আদায়েরও অভিযোগ ছিল। তাই এতোদিন স্বাস্থ্য অধিদফতর ও প্রাভা হেলথের কর্মী যারা বাসায় গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করতেন তাদের ১০-১৫ দিনের মধ্যে সিরিয়াল দিতে না পারর যে সমস্যা দেখা দিত তা অনেকটা কমেছে। পাশাপাশি এখন আর নমুনা পরীক্ষায় ইচ্ছুকদের দীর্ঘদিনের সিরিয়ালে পড়তে হচ্ছে না।

এছাড়া হাসপাতালগুলোতে ভর্তির ক্ষেত্রেও নিজ নিজ হাসপাতালে করোনার নমুনা পরীক্ষা করাচ্ছে। তাই করোনার নমুনা পরীক্ষা আগের চেয়ে অনেকটা সহজ হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন সেবা পাওয়া অনেকেই। এদিকে বিদেশগামী যাত্রীদের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল একদিনের মধ্যে দেয়া এবং পরীক্ষার নিয়ম ও নমুনা সংগ্রহের পরিধি আরও বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ বিমান যাত্রীদের নমুনা পরীক্ষা যত সহজ করা যাবে ততোটাই বর্হিবিশ্বে বাংলাদেশের সুনাম বাড়বে বলেও উল্লেখ করেছেন অনেকেই।

সূত্র মতে, বাসায় গিয়ে করোনার নমুনা সংগ্রহের জটিলতা অনেকটা কমেছে। এখন আর আগের মতো দীর্ঘদিনের বুকিং সমস্যায় পড়তে হচ্ছে নমুনা পরীক্ষা করাতে ইচ্ছুকদের। প্রাভা হেলথের মাধ্যমে সকালে কল করে দুপুরের মধ্যে নমুনা পরীক্ষা করানো শোভন জানান, বাসায় নমুনা পরীক্ষা করাতে আগের মতো দীর্ঘ দিনের সিরিয়ালে এখন আর পড়তে হচ্ছে না।

প্রাভা হেলথের জনসংযোগ কর্মকর্তা কুতুব উদ্দিন কামাল ইনকিলাবকে বলেছেন, বাসায় নমুনা পরীক্ষা করাতে আগের মতো চাপ নেই। আগে বাসায় নমুনা পরীক্ষার ক্ষেত্রে ১৫ দিনের বুকিং থাকতো। বেশি অসুস্থ রোগীদেরও অনেক সময় সুযোগ দেয়া যেতো না। পাশাপাশি প্রাভা হেলথ এখন বাসায় গিয়ে নমুনা পরীক্ষার পরিধিও বাড়িয়েছে। এছাড়া বড় বড় বেসরকারি হাসপাতালও ভর্তি রোগীদের নমুনা পরীক্ষা করাচ্ছে। পাশাপাশি তারা পরীক্ষায় ছাড়ও দিচ্ছে। তিনি বলেন, এখন আর আগের মতো সমস্যা নেই। দিনে দিনেও বাসায় গিয়ে নমুনা পরীক্ষা করানো সম্ভব হচ্ছে।

এদিকে করোনায় আক্রান্তদের একটি বড় অংশ চিকিৎসা নিচ্ছেন নিজ নিজ বাসায় থেকে। এ সংখ্যা কত এবং তাঁদের কতজন এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন, তার সুনির্দিষ্ট হিসাব স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাওয়া যায়নি। এটি নিয়ে এখনো কাজ করছে অধিদপ্তর। করোনা শনাক্তদের মৃদু লক্ষণ থাকা রোগীরা বাসায় বসেই চিকিৎসকের পরামর্শে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্র মতে, গত ২৪ ঘন্টায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের মাধ্যমে শনাক্ত ক
রোনা রোগীরা টেলিমেডিসিন সেবা নিয়েছেন ৪ হাজার ৪৪১ জন। রোগীরা এ পর্যন্ত টেলিমেডিসিন সেবা নিয়েছেন মোট ১ লাখ ১৫ হাজার ৯৭৫ জন। এছাড়াও স্বাস্থ্য অধিদফতরের হটলাইনে গত ২৪ ঘন্টায় স্বাস্থ্য সেবা সংক্রান্ত পরামর্শ নিয়েছেন ৮৮ হাজার ৬৭ জন। এ পর্যন্ত হটলাইনে পরামর্শ নিয়েছেন ১ কোটি ৭৩ লাখ ১০ হাজার ৪৫০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক প্রফেসর নাসিমা সুলতানা বলেন, রোগীদের বেশির ভাগ বাসায় থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আক্রান্তদের বেশির ভাগেরই উপসর্গ মৃদু। যাঁদের মাঝারি উপসর্গ এবং অবস্থা জটিল, তারা মূলত বেশি হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। আবার বাড়িতে আইসোলেশনে (বিচ্ছিন্ন রাখা) থাকার সমস্যার কারণেও অনেকে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন।

রোগতত্ত¡, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও বর্তমান উপদেষ্টা ডা. মুস্তাক হোসেন বলেছেন, করোনার ভয়াবহতা কমাতে হলে যে যেখানে আছে সেখানেই পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। বিশেষ করে বয়স্ক ও শিশুদের ক্ষেত্রে বাসায় গিয়ে নমুনা পরীক্ষা অগ্রাধিকার দিতে হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত বছরের ডিসেম্বরে চীনে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিশ্চিত হওয়া গেলেও বাংলাদেশে ভাইরাসটি শনাক্ত হয় গত ৮ই মার্চ। ওইদিন তিন জন করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার কথা জানিয়েছিলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। আর প্রথম মৃত্যুর খবর জানিয়েছিলো ১৮ মার্চ। গতকাল বৃহষ্পতিবার পর্যন্ত দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ২ হাজার ৮০১ জন। ##

 

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
কে এম শাকীর ২৪ জুলাই, ২০২০, ১:০৬ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ, আ্ল্লাহ এভাবেই আমাদের মুক্তি দিবেন আশা করি।
Total Reply(0)
কে এম শাকীর ২৪ জুলাই, ২০২০, ১:০৬ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ, আ্ল্লাহ এভাবেই আমাদের মুক্তি দিবেন আশা করি।
Total Reply(0)
হাসান মুনাব্বেহ সাআদ ২৪ জুলাই, ২০২০, ১:০৬ এএম says : 0
করোনা নিয়ে এতো ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আল্লাহর ওপর ভরসা রাখতে হবে।
Total Reply(0)
মেহেদী ২৪ জুলাই, ২০২০, ১:০৭ এএম says : 0
প্রথমে যেভাবে করোনা নিয়ে ভীতি ছড়িয়েছিল, আসলে অতটা ভয় পাওয়ার কিছু নেই। মহান রব ভাগ্যে যা রেখেছেন তা হবেই।
Total Reply(0)
হোসাইন এনায়েত ২৪ জুলাই, ২০২০, ১:০৮ এএম says : 0
খবরটা পড়ে অনেক আশাবাদি হলাম। আাল্লাহ আমাদের ওপর দয়া করুন। আমিন
Total Reply(0)
MD. MASHIUR RAHMAN ২৪ জুলাই, ২০২০, ৮:৪৭ এএম says : 0
আশার খবর হলো ঘন ঘন জিন পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশে করোনার রূপ আগের মতো ভয়বাহ নেই। আক্রান্ত হলেই শ্বাসকষ্টসহ জটিল সমস্যাগুলো হওয়ার প্রবণতা অনেকটা কমে গেছে।-eta ke bolesen?
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন