ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭ আশ্বিন ১৪২৭, ০৪ সফর ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

জুভেন্টাসের টানা নবম

করোনযোদ্ধাদের শিরোপা উৎসর্গ রোনালদোর

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

সুযোগ ছিল আগের ম্যাচেই। তবে উদিনেমের কাছে হেরে দীর্ঘায়িত হয়েছে অপেক্ষা। অবশেষে ঘুঁচেছে তা। ঘরের মাঠে সাম্পদোরিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়েই ইতালিয়ান সিরি ‘আ’র টানা নবম শিরোপা ঘরে তোলে জুভেন্টাস। গতপরশু রাতে ঘরের মাঠ আলিয়াঞ্জ স্টেডিয়ামে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে লক্ষ্যভেদ করলেন আক্রমণভাগের কান্ডারি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝিতে ব্যবধান বাড়ালেন ফেদেরিকো বার্নারদেস্কি। ইতালি তো বটেই, ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগে (ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, স্প্যানিশ লা লিগা, ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ান, সিরি ‘আ’, জার্মান বুন্দেসলিগা) টানা একগুলো লিগ শিরোপা জয়ের রেকর্ড যে দ্বিতীয় কোনো দলের নেই। পাশাপাশি দুই ম্যাচ হাতে রেখে ৩২তম লিগ শিরোপা জয়ের উৎসবে মাতোয়ারা হলো মাউরিসিও সারির দল।
আসরের প্রায় পুরোটা সময় শীর্ষস্থান ধরে রাখলেও শেষদিকে এসে তালগোল পাকিয়ে ফেলেছিল জুভরা। লিগের আগের পাঁচ ম্যাচের মাত্র একটিতে পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে পেরেছিল তারা। তাই শিরোপা ঘরে তোলার প্রতীক্ষার প্রহর ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছিল। তবে সাম্পদোরিয়ার বিপক্ষে এ ম্যাচে আর কোনো ভুল করেনি ইতালির সফলতম দলটি। এই জয়ে ৩৬ ম্যাচ শেষে জুভেন্টাসের অর্জন ৮৩ পয়েন্ট। সমান ম্যাচ খেলে তাদের নিকটবর্তী প্রতিদ্ব›দ্বী ইন্টার মিলান সংগ্রহ করেছে ৭৬ পয়েন্ট। অর্থাৎ রোনালদো-সারিরা লিগের বাকি দুই ম্যাচে হেরে গেলেও ক্ষতি নেই।
প্রথমার্ধে স্বাগতিকদের খেলায় ছিল না চেনা ছন্দ। সাম্পদোরিয়া কয়েকবার ভীতি ছড়ায় তাদের রক্ষণে। তার উপর চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন দানিলো ও পাওলো দিবালা। তবে লিগে রোনালদোর ৩১তম গোলে বিরতির আগে ঠিকই এগিয়ে যায় জুভেন্টাস। ডি-বক্সের বাইরে ফ্রি-কিক পেলেও মিরালেম পিয়ানিচ সরাসরি গোলমুখে শট না নিয়ে বল বাড়ান পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডকে। কাজে লাগে কৌশলটি। ডান পায়ের জোরালো নিচু শটে জাল কাঁপান সিআর সেভেন।
দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের ধার বাড়ায় জুভেন্টাস। সেই ধারাবাহিকতায় ম্যাচের ৬৭তম মিনিটে স্কোরলাইন ২-০ করেন বার্নারদেস্কি। রোনালদোর শট সাম্পদোরিয়া গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেওয়ার পর ফিরতি শটে নিশানা ভেদ করেন এই ইতালিয়ান ফরোয়ার্ড। ৭৭তম মিনিটে পিয়ানিচকে ফাউল করে মর্টেন থোর্সবি দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লে অতিথিরা পরিণত হয় দশ জনের দলে।
ব্যবধান বাড়ানোর আরও সুযোগ পেয়েছিল জুভরা। কিন্তু ৮৪তম মিনিটে স্পট-কিক থেকে লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি রোনালদো। তার শট ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। এবারের সিরি আতে আগের ১২টি পেনাল্টির প্রতিটিতে গোল করা অভিজ্ঞ ফরোয়ার্ড এবারই প্রথম ব্যর্থ হলেন।
২০১৮ সালের বিশ্বকাপের পর ইতালিতে পাড়ি জমানো রোনালদো জুভদের জার্সিতে টানা দ্বিতীয় সিরি ‘আ’ জেতার স্বাদ নিলেন। এবারের মৌসুমে দলটির গোলদাতাদের তালিকাতেও অনেকটা এগিয়ে থেকে শীর্ষে আছেন তিনি। এখন পর্যন্ত লিগে জালের দেখা পেয়েছেন ৩১ বার। ৩৪ গোল নিয়ে তালিকায় শীর্ষে আছেন ল্যাজিওর চিরো ইম্মোবিলে। দুই ম্যাচ হাতে রেখে শিরোপা নিশ্চিত করার পর পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘কাজটা সেরে ফেললাম। হয়ে গেলাম ইতালির চ্যাম্পিয়ন।’ তিনি এ সাফল্যকে উৎসর্গ করেছের জুভেন্টাস ভক্তদের, ‘এ সাফল্য জুভেন্টাসের সব ভক্তদের। ব্যাপারটা সহজ ছিল না। আপনাদের দৃঢ় প্রতিজ্ঞা আর শুভকামনা আমাদের খুব প্রয়োজন ছিল এ কঠিন শিরোপার লড়াইয়ে সফল হতে। এই সাফল্য আপনাদেরই, এ শিরোপা গোটা ইতালির। বিশেষ করে যারা কোভিড-১৯ মহামারির বিরুদ্ধে লড়ছেন।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন