ঢাকা মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১১ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

এবার ঈদে বাড়তি আনন্দ আয়া সোফিয়া মসজিদ : এরদোগান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ আগস্ট, ২০২০, ১:৪২ পিএম

অন্যসব দেশের তুলনায় এবার তুরস্কের ঈদ উদযাপনে ভিন্ন এক বিজয়ের শুর ধ্বনিত হচ্ছে। সবার মাঝে একই আওয়াজ আয়া সোফিয়া তার গৌরব ফিরে পেয়েছে। এ জন্য তারা তাদের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ও আদালতকে ধন্যবাদও জানিয়েছে।

আর আয়া সোফিয়াকে পুনরায় মসজিদ হিসেবে চালু হওয়ায় এবার ঈদুল আজহা আরো উৎসব মুখর হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান

শনিবার ক্ষমতাসীন দল একে পার্টির স্থানীয় কর্মীদের শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে এরদোগান বলেন, আয়া সোফিয়া পুনরায় মসজিদ হিসেবে চালু হওয়ায় আমাদের জাতির ৮৬ বছরের কষ্ট দূর করে এবারের ঈদে বাড়তি আনন্দ নিয়ে এসেছে।

এরদোগান বলেন, সামনের দলীয় কংগ্রেসটি হবে “নতুন পুনরুত্থান, একটি নতুন মাইলফলক”।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, আমরা আমাদের বন্ধুর পরিমাণ বৃদ্ধি করতে চাই আর শত্রু সংখ্যা কমাতে চাই।

করোনা পরিস্থির উপর বিবেচনা করে এবছরের শেষের দিকে একে পার্টির কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে জানা গেছে।


গত ২৪ জুলাই শুক্রবার পবিত্র জুমার নামাজের মধ্য দিয়ে ৮৬ বছর পর পুনরায় মসজিদ হিসেবে যাত্রা শুরু করে তুরস্কের ইস্তাম্বুলের ঐতিহাসিক আয়া সোফিয়া।

দেশি-বিদেশী পর্যটকদের জন্য তুরস্কের সর্বাধিক দর্শনীয় স্থানগুলির মধ্যে আয়া সোফিয়া অন্যতম। ১৯৮৫ সালে, যাদুঘর হিসেবে স্থাপনাটি ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্য তালিকাযর অন্তর্ভুক্ত হয়।

ইস্তাম্বুলে অবস্থিত এই ঐতিহাসিক স্থাপনাটি ৯১৬ বছর টানা চার্চ হিসেবে ব্যবহ্রত হয়েছে। আর ১৪৫৩ সাল থেকে শুরু করে ১৯৩৫ সাল প্রায় পাঁচশত বছর ধরে মসজিদ হিসেবেই পরিচিত ছিল এটি। এরপর ৮৬ যাবত এটা জাদুঘর হিসেবে পরিচিত ছিল।

গত ১০ জুলাই তুর্কি আদালতের রায়ে ১৯৩৪ সালের তৎকালীন মন্ত্রী পরিষদের জাদুঘরে রুপান্তরিত করার আদেশটি রহিত করার পর পুনরায় মসজিদ হিসেবে চালু করতে আর কোন বাধা রইল না।

এরপর ১৬ জুলাই তুরস্কের ধর্ম বিষয়ক অধিদপ্তর এটি মসজিদে রূপান্তরিত হওয়ার পরে আয়া সোফিয়া পরিচালনার জন্য সংস্কৃতি ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সাথে একটি সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

এই চুক্তির অধীনে দেশটির সংস্কৃতি ও পর্যটন মন্ত্রণালয় আয়া সোফিয়ার সংস্কার ও সংরক্ষণের কাজ তদারকি করবে এবং ধর্ম বিষয়ক অধিদপ্তর ধর্মীয় সেবা তদারকি করবে। ইয়েনি শাফাক

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন