ঢাকা বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭, ১২ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

পুলিশ হেফাজতে ওসি প্রদীপকে নেওয়া হচ্ছে কক্সবাজার

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:৩১ পিএম | আপডেট : ৪:১০ পিএম, ৬ আগস্ট, ২০২০

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাশকে পুুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম নগরীর দামপাড়া পুলিশ লাইনে বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতাল থেকে তাকে পুলিশ হেফাজতে দেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের একটি টিম। সিএমপির কমিশনার মোহাম্মদ মাহবুব রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ওসি প্রদীপ কুমার দামপাড়ায় পুলিশ লাইনে হাসাপাতালে চিকিৎসা নিতে এসেছিলেন। সেখান থেকে তাকে আমরা হেফাজতে নিয়েছি। এখন তাকে বিশেষ নিরাপত্তায় কক্সবাজার আদালতে পাঠানো হচ্ছে। সেখানে তিনি আত্মসমর্পণ করবেন। তবে এখন তাকে সিএমপির হাতে আটক বা গ্রেফতার বলা যাবে না। গ্রেফতারি পরোনা থাকার পরও তাকে কে গ্রেফতার করা হলো না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে পুলিশ কমিশনার বলেন, সে যাতে পালাতে না পারে সে জন্য তাকে পুলিশ পাহারায় কক্সবাজার আদালতে পাঠানো হয়েছে।
টেকনাফ মেরিন ড্রাইভে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার আসামি প্রদীপকে আদালতে হাজির করা হবে। তাকে বিশেষ নিরাপত্তায় কক্সবাজার নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।
এর আগে ওসি প্রদীপকে দুপুরে পৌনে দুইটার দিকে পুলিশ লাইনের সিএমপি হাসপাতাল থেকে বের করা হয়। পরে তাকে একটি গাড়িতে তুলে আরও দুটি গাড়ি স্কট করে কক্সবাজারের দিকে রওনা হয়। অসুস্থতার কথা বলে থানা থেকে চট্টগ্রাম আসেন প্রদীপ। দুই দিন চট্টগ্রামে অবস্থান করে তিনি অনেকের পরামর্শ নেন।
মেজর সিনহার বড় বোনের দায়ের করা মামলার দুই নম্বর আসামি প্রদীপ। মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিলেন আদালত। এর আগে, গতকাল বুধবার রাতে তাকে প্রত্যাহার করা হয়। এ নিয়ে এ ঘটনায় মোট ১৫ জনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।
গত শুক্রবার রাত ৯টার দিকে টেকনাফের বাহারছড়ায় কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে মারা যান অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদ খান। এ ঘটনায় বুধবার মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা একটি তথ্যচিত্র ধারণের কাজ করছিলেন। ৩১ জুলাই রাতে ওই দিনের শুটিং শেষ হলে তিনি টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ দিয়ে ফিরছিলেন। শামলাপুর তল্লাশি চৌকিতে তার গাড়ির গতিরোধ করা হলে তিনি অবসরপ্রাপ্ত মেজর পরিচয় দিলেও পুলিশ পরিদর্শক তাকে গুলি করলে তার মৃত্যু হয়। প্রদীপ কুমার সিএমপিতে কর্মরত থাকা অবস্থায় নানা অভিযোগে সাময়িক বরখাস্ত হন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (11)
MOHAMMAD LOKMAN ৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:১৩ পিএম says : 2
please give him good punishment and who are attend join work.
Total Reply(0)
জুবায়ের ৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:১১ পিএম says : 0
বাকিদেরকেও গ্রেফতার করা হোক
Total Reply(0)
Shahin Alam Mridha ৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:৫২ পিএম says : 0
বুঝলামনা,,অনান্য সংবাদ পত্রিকাতে গেরেপ্তার দেখানো হচ্ছে।আর বিবিসি বাংলাতে পুলিশ হেফাজতে।
Total Reply(0)
আমান ৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:১৫ পিএম says : 0
তাকে টানা এক মাসের রিমান্ডে নেওয়া হোক।
Total Reply(0)
ইয়াছিন ৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:৫৬ পিএম says : 0
অপরাধীকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে যথাযথ শাস্তির মাধ্যমে বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হোক।
Total Reply(0)
হোসাইন ৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:০৫ পিএম says : 0
দ্রুত সময়ের মধ্যে বিচার কার্য সম্পাদন করে তাকে কঠিন শাস্তি দেওয়া হোক
Total Reply(0)
মারুফ ৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:০৫ পিএম says : 0
তার সর্বনিম্ন শাস্তি হতে পারে মৃত্যুদণ্ড
Total Reply(0)
জামশেদ ৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:০৬ পিএম says : 0
এই কাজে তার সাথে সম্পৃক্ত সকল কে এমন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক যাতে ভবিষ্যতে কেউ এ ধরনের কাজ করার সাহস না পায়
Total Reply(0)
AHM Babar Siddiqi ৬ আগস্ট, ২০২০, ৪:০০ পিএম says : 0
খুনের বদলা খুন
Total Reply(0)
সুলায়মান ৬ আগস্ট, ২০২০, ৭:৩৬ পিএম says : 0
নিজ দেশের সুর্য সেনাকে সে হত্যা করতে পারে । নিশ্চিত সে ভারতীয় দালাল। দেশের প্রশাসনিক গোপন তত্ব সে প্রাচার করে। সর্বোচ্চ শাস্তি হোক তার।
Total Reply(0)
ইউসুফ ৬ আগস্ট, ২০২০, ৬:৫১ পিএম says : 0
দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক । উপযুক্ত শাস্তি চাই
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন