ঢাকা সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১০ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর ট্রিপল মার্ডার রহস্য উদঘাটন

দস্যুতার সময় এ হত্যাকান্ড ঘটে বলে পুলিশ সুপার প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান গ্রেফতার ৪

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৯ আগস্ট, ২০২০, ৯:৩০ এএম

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার ধানীসাফা গ্রামের চাঞ্চল্যকর ট্রিপল হত্যার ৮ দিন পর রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। দোষিরা দস্যুতা করতে গিয়ে চিনে ফেলায় অটো চালক আয়নাল হক (৩৫), তার স্ত্রী খুকু মনি (২৫) ও তাদের ৩ বছরের একমাত্র শিশু কন্যা আশফিয়াকে হত্যা করেছে বলে জেলা পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান শনিবার রাতে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান। মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের দল শুক্রবার ভোর রাতে ধানীসাফা গ্রামে অভিযান চালিয়ে হত্যা কান্ডে জড়িত প্রধান আসামী অলি বিশ্বাস (৩৮) ও রাকিব বেপারী (২০)কে গ্রেফতার করে। অলি ধানীসাফা গ্রামের মৃত তুজাম্বর আলী বিশ^াসের ছেলে ও রাকিব একই গ্রামের কাওসার বেপারীর ছেলে।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আ,জ,মো. মাসুদুজ্জামান মিলু জানান, আজ শনিবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত অলি ও রাকিবের স্বিকারোক্তি মতে এ লুট ও ট্রিপল মার্ডারে ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্র ও লুটের টাকা উদ্ধার করা হয়।

জেলা পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান শনিবার রাতে মঠবাড়িয়া থানা চত্বরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, দস্যুতার জন্য ৪ মুখোশধারী সিঁদ কেটে আয়নালের বসত ঘরে প্রবেশ করে। ঘরে ঢুকে মারধর করে নগদ টাকা ও বিভিন্ন মালামাল লুটপাটের সময় সময় আয়নাল তাদের চিনে ফেলে। এ সময় তারা তাদের মারতে গেলে আয়নাল মাস্টার মাইন্ড অটো চালক অলিকে অনুনয় বিনয় করে বলে “অলি তুই আমারে মারিস না, টাহা পয়সা যা দরকার নিয়ে যা”। এরপর ৪ ঘাতক মিলে আয়নাল ও তার স্ত্রী খুকুকে হাত বেধে গলায় কাপড় পেছিয়ে শ^াসরোধ করে হত্যা করে বসত ঘরের আড়ার সাথে জুলিয়ে রাখে। এ সময় আয়নালের ৩ বছরের একমাত্র কন্যা শিশু আশফিয়া কান্নাকাটি করলে ঘাতকরা তাকেও গলা টিপে হত্যা করে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখে।
পুলিশ সুপার জানান, গত ৮ জুলাই নিহত আয়নাল স্থানীয় সাফা বন্দর কৃষি ব্যাংক থেকে ২০ হাজার টাকা উত্তোলন করে বাড়ি ফেরার পথে ঘাতক অলি দেখে ফেলে। এ ছাড়াও আয়নালের স্ত্রী খুকু ঘর মালিক মোজাম্মেল হাওলাদারের ঘরে রাখা কিছু স্বর্ণালংকার সম্প্রতি ঘরে নিয়ে আসে। ওই টাকা ও স্বর্ণ লুট করার জন্য গত ৩০ জুলাই দিনগত গভির রাতে আয়নালের ভাড়াটিয়া বসত ঘরে ঘাতক অলি ও রাকিবসহ চার জন প্রবেশ করে এ লুট ও হত্যাকান্ড ঘটায়।

এর আগে চাঞ্চল্যকর হত্যাকান্ডে জড়িত সন্দেহে একই গ্রামের মালেক(৫৫),শামিম গাজী (২৬), রহিম (১৯), মাহাবুব (২০), সাকিল (১৯), শাহিন (১৯ কে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে।

উলেখ্য,গত শুক্রবার সকালে উপজেলার ধানীসাফা গ্রামের একটি বসত ঘর থেকে হাত বাধাঁ অবস্থায় জুলন্ত অটো চালক আয়নাল তার স্ত্রী খুকু মনি ও তাদের একমাত্র কন্যা শিশু আশফিয়া ইসলামের লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন