ঢাকা মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১১ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় মাহাথিরকে ধন্যবাদ জানালেন ইমরান খান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ আগস্ট, ২০২০, ৪:৩৯ পিএম

ভারত-অধিকৃত কাশ্মীরের জনগণের সমর্থনে কথা বলায় মাহাথির মোহাম্মাদকে শনিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ধন্যবাদ জানিয়েছেন। মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির বিতর্কিত জম্বু ও কাশ্মীরে নয়াদিল্লির ‘অন্যায়ের’ বিরুদ্ধে প্রতিবাদ অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

এক টুইট বার্তায় ইমরান খান বলেন, ‘আমি কাশ্মীরিদের সমর্থনে এবং আইআইওজেকেতে (অবৈধভাবে ভারত অধিকৃত জম্মু ও কাশ্মীর) ভারতীয় নির্যাতনের বিরুদ্ধে কথা বলার জন্য ডক্টর মাহাথির বিন মোহাম্মাদকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। এবার ৮ আগস্ট আইআইওজেকে নিয়ে ভারতের অবৈধ পদক্ষেপের এক বছর উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে মাহাথির এই প্রতিবাদ জানিয়েছেন।’

সম্প্রতি মাহাথির ভারতের বিরুদ্ধে একাধিক টুইট করেছেন। সেখানে অধিকৃত কাশ্মিরে ভারতের মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখা তার অধিকার বলে জানিয়েছিলেন এবং বলেছিলেন যে, এটি হবে ‘মানবতার পক্ষে দাঁড়ানো’।

শনিবার রাজধানী কুয়ালালামপুরে ‘কাশ্মিরের সঙ্গে সংহতি’ নামের এক অনুষ্ঠানে মাহাথির বলেন, ‘যখন একটি বড় ও শক্তিশালী দেশ দায়মুক্তি নিয়ে আরেকটি ক্ষুদ্র ও অরক্ষিত জাতির ওপর অন্যায়ভাবে তাদের ইচ্ছা চাপিয়ে দেয়, তখন আমার কাছে নীরব থাকা কোনো বিকল্প নয়।’ তিনি বলেন, ‘আমি এর আগে যা বলেছি তার জন্য আমি ক্ষমা চাইছি না। এর জন্য ভারতে আমাদের পামওয়েল রপ্তানির ওপর প্রভাব পড়ায় আমি দুঃখিত। এ ধরনের অবিচারের বিরুদ্ধে কথা বলায় এতো মূল্য দিতে হলো কিনা আমি জানি না।’ মাহাথির বলেন, ‘এখন আমি আর প্রধানমন্ত্রী নই, এখন আমি সংযম ছাড়াই বলতে পারি এবং কাশ্মির ইস্যুতে বয়কট ও এ ধরনের হুমকিকে তোয়াক্কা না করে আমি এখন কথা বলতে পারি।’

গত বছরের জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ৯৫ বছর বয়সী মাহাথির অধিকৃত কাশ্মীরের ভারতের ‘নির্যাতনের’ সমালোচনা করেছিলেন। তার সমালোচনার কারণে মালয়েশিয়ার পামওয়েলের সবচেয়ে বড় আমদানীকারক ভারত প্রতিশোধ নিতে অর্ডার বাতিল এবং আমদানি নিষেধাজ্ঞার জারি করে। শুক্রবার, মাহাথির ডাব্লিউআইওএন নিউজলেটে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে স্বীকার করেছেন যে, কাশ্মীর সম্পর্কে তার মন্তব্যের কারণে মালয়েশিয়া ও ভারতের মধ্যে সম্পর্ক খারাপ হয়েছিল। তিনি বলেন, ‘আমি সম্ভাব্য প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে সচেতন হয়েও কথা বলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম।’

এর আাগে, গত বছরের সেপ্টেম্বরে ইউএনজিএ-তে দেয়া বক্তব্যে মাহাথির বলেছিলেন যে, ‘জম্মু ও কাশ্মীরের বিষয়ে জাতিসংঘের প্রস্তাব সত্ত্বেও এই অঞ্চলটি আক্রমণ ও দখল করা হয়েছিল।’ তিনি জোর দিয়ে বলেন, ‘এই পদক্ষেপের কারণ থাকতে পারে তবে এটি এখনও ভুল। সমস্যাটি অবশ্যই শান্তিপূর্ণ উপায়ে সমাধান করা উচিত। এই সমস্যা সমাধানে ভারতের উচিত পাকিস্তানের সাথে কাজ করা।’

তিনি ভারতে নতুন নাগরিকত্ব আইনে সমালোচনা করেছিলেন যা মুসলিম অভিবাসীদের বাদ দেয়। তার এই মন্তব্যের প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য, পাঁচ বছরের জন্য মালয়েশিয়ার পাম তেলের বৃহত্তম ক্রেতা ভারত, জানুয়ারিতে কুয়ালালামপুর থেকে তেল কেনায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল। পরে মাহাথির ভারতের সমালোচনা করেছিলেন এবং বলেছিলেন যে, কূটনৈতিক সীমাবদ্ধতার পরে পাম তেল আমদানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে মালয়েশিয়া উদ্বিগ্ন। তবে তার দেশ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হলেও তিনি ‘অন্যায়ে’র বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখবেন। সূত্র: ডন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন