ঢাকা সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ আশ্বিন ১৪২৭, ০৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

জার্সিতে মসজিদের ছবি, প্রতিবাদী সমর্থককে বিদায় জানালো জার্মানির ক্লাব

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০২০, ৬:৫৪ পিএম

জার্মানির ফুটবল ক্লাব এফসি কোলনের নতুন জার্সিতে কোলনের কেন্দ্রীয় মসজিদের ছবি থাকায় তার প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন ক্লাবের এক সদস্য। ছবি সড়ানো না হলে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। তবে ছবি না সড়িয়ে তাকেই সানন্দে বিদায় জানিয়েছে এফসি কোলন।

বুন্ডেসলিগার এই ক্লাব মাঠের সাফল্যের কারণে খবরে আসে না অনেক বছর হলো। মাত্র দু’বারের বুন্ডেসলিগা চ্যাম্পিয়নরা সর্বশেষ সাফল্যটি পেয়েছিল ৪২ বছর আগে। রানার্সআপ হওয়ার আনন্দও ৩০ বছর আগের। সেই ক্লাব এই করোনাকালেও সংবাদ শিরোনামে! নিজেদের নতুন জার্সির ছবি টুইটারে পোস্ট করেছিল এফসি কোলন। তা দেখে এক সমর্থক মহাক্ষুব্ধ। ক্ষোভের কারণ মসজিদের ছবি। ক্ষুব্ধ সমর্থক জানিয়ে দেন, তিনি মনে করেন এর মাধ্যমে একটি ফুটবল ক্লাব নিজেকে ‘ধর্মীয় সংগঠন' হিসেবে তুলে ধরেছে এবং ‘মুসলমান এবং মসজিদের সঙ্গে’ এই ক্লাবকে তিনি মেলাতে পারেন না, সুতরাং আর তিনি ক্লাবের সদস্য থাকতে চান না।

আর সব ক্লাবের মতো এফসি কোলনের কাছেও সমর্থকদের গুরুত্ব অনেক। তবে এ ক্ষেত্রে উগ্রতারবিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া আবশ্যক ভেবে জার্মানির পশ্চিমাঞ্চলের নর্থ রাইন ওয়েস্টফালিয়া রাজ্যের ক্লাবটি জানিয়ে দিয়েছে, কোলন শহরকে তুলে ধরতে গেলে মসজিদটির ছবি রাখতেই হবে, সুতরাং মাননীয় সমর্থককে বিদায় জানানোতেই তাদের আনন্দ।

কোলনের কেন্দ্রীয় মসজিদ হিসেবে পরিচিত এই মসজিদটি ইউরোপের অন্যতম বড় এবং জার্মানির সবচেয়ে বড় মসজিদ। এটির আয়তন ৪৫০০ বর্গমিটার। এতে একসঙ্গে দুই থেকে চার হাজার মুসল্লির নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা রয়েছে। জার্মানিতে তুর্কি মুসলিমদের সংগঠন ডিটিব মসজিদটি নির্মাণ করেছে। নামাজের পাশাপাশি সেখানে বিভিন্ন ধর্মের মধ্যে সংলাপ, খেলাধুলা আয়োজনের ব্যবস্থা এবং দোকান ও লাইব্রেরি রয়েছে। মসজিদটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান।

জার্সিতে মসজিদের পাশাপাশি কোলন ক্যাথেড্রাল, রাইন নদীসহ শহরের আরো কিছু দর্শনীয় স্থানের ছবিও স্থান পেয়েছে। তাই কোলনের ক্লাব হিসেবে শহরের সব ধর্ম, সংস্কৃতির মানুষকে সঙ্গে নিয়ে চলার মানসিকতা ধরে রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করে ওই সমর্থককে টুইটারে ‘গুডবাই’ বলেছে এফসি কোলন। এই মসজিদের ছবি রাখার বিষয়ে এফসি কোলনের যুক্তিটা খুব স্পষ্ট। টুইটারে ক্লাবের পক্ষ থেকে লেখা হয়েছে, ‘এই মসজিদ আসলে কোলনে বসবাসরত বিশাল তুর্কি কমিউনিটির প্রতীক, তাদের অনেকেই এফসি কোলনের অন্ধ ভক্ত।’ সূত্র: ডয়চে ভেলে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন