ঢাকা মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১১ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বন্যার্তদের সহযোগিতায় বিএনপির ফান্ড গঠন

সব কেন্দ্রীয় নেতাকেই দিতে হবে টাকা

ফারুক হোসাইন | প্রকাশের সময় : ১৪ আগস্ট, ২০২০, ১২:০১ এএম

করোনা মহামারির মধ্যেই দেশে আঘাত হেনেছে ভয়াবহ বন্যা। এতে ঘর-বাড়ি, সহায়-সম্পদ হারিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছেন উপদ্রæত এলাকার লাখ লাখ মানুষ। এসব মানুষের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে জাতীয় ত্রাণ কমিটি গঠন করেছে বিএনপি। এই কমিটির মাধ্যমে বন্যার্তদের সহযোগিতার জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছ থেকে নগদ অর্থ আদায় করছে দলটি। এজন্য একটি ফান্ডও করা হয়েছে। এই ফান্ডে সকল কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে অর্থ সহযোগিতা প্রদানের জন্য দপ্তর থেকে দেয়া হয়েছে চিঠি। পদ-পদবী ভেদে সর্বনি¤œ অর্থের পরিমাণ উল্লেখ করে দেয়া চিঠিতে আগামী ১৭ আগস্টের মধ্যে অর্থ পরিশোধের নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে- দলের যে কয়জন এমপি নির্বাচিত হয়েছেন তাদের প্রত্যেককে দুই মাসের বেতনের সমপরিমাণ অর্থ ফান্ডে জমা দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য থেকে শুরু করে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, ভাইস-চেয়ারম্যান ও যুগ্ম মহাসচিবদের প্রত্যেককে সর্বনি¤œ ২০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সম্পাদক ও সহ-সম্পাদকদের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ হাজার এবং নির্বাহী কমিটির সদস্যদের ১০ হাজার টাকা। তবে যে কেউ চাইলে দল নির্ধারিত সর্বনি¤œ পরিমাণের চেয়েও বেশি টাকা দিতে পারবে।

বিএনপি সূত্রে জানা যায়, সারাদেশে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে সহায়তার জন্য গত মাসে স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে আহŸায়ক করে ৪০ সদস্যের জাতীয় ত্রাণ কমিটি গঠন করে বিএনপি। এই কমিটি ইতোমধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছেন। চাল, ডাল, তেল, লবনসহ বিভিন্ন ধরনের শুকনো খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে। দলের কেন্দ্রীয় দফতর থেকে বন্যা পরিস্থিতি মনিটরিং করা হচ্ছে। বিএনপির দফতর সূত্র জানায়, এ পর্যন্ত দেশের বন্যাকবলিত ২৪টি জেলা- কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, গাইবান্ধা, নীলফামারী, রংপুর, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, জামালপুর, শেরপুর, কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ, নেত্রকোণা, শরীয়তপুর, মাদারীপুর, ফরিদপুর, সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, বরগুনা ও ভোলায় ৫০ লাখ ২৬ হাজার ৫১ জন মানুষ পানিবন্দি হন। ৬ হাজার ৬০১ টি বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ৩ হাজার কিলোমিটারের বেশি রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত এবং ৫০ হাজার হেক্টর ফসলি জমি পানিবন্দি। তাছাড়াও ফসল ও গবাদিপশুর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এসব জেলার মধ্যে- কুড়িগ্রাম, ময়মনসিংহ, জামালপুর, সিরাজগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইল, লালমনিরহাট, রংপুরসহ বিভিন্ন জেলায় বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে। বাকীগুলোতেও একই কার্যক্রম পরিচালনা করবে দলটি। এজন্য দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ থেকে শুরু করে সকল নেতৃবৃন্দকেই বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহŸান জানানো হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এই কোভিডে জনগণের পাশে দাঁড়ানো, বন্যার পর যে সমস্যা দাঁড়াবে তার জন্য তাদের ত্রাণ ও পুনর্বাসনের ক্ষেত্রে যতটুকু সম্ভব দুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে বলেছেন আমাদের চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া।

বিএনপি সূত্রে জানা যায়, করোনার সময়ই দলের নেতাকর্মীরা দলের নির্দেশনা মেনে সরাদেশে ব্যাপক ত্রাণ কার্যক্রম চালিয়েছেন। এর মধ্যে আবারও বন্যার আঘাত। তাই বন্যার্তদের সহযোগিতার জন্য বিপুল পরিমাণ অর্থের প্রয়োজন। এই অর্থের যোগান দিতে এবার ফান্ড গঠন করা হয়েছে। এই ফান্ডে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে বাধ্যতামূলকভাবে সর্বনি¤œ অর্থ জমা দিতে হবে। গত ৯ আগস্ট দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ত্রাণ কমিটির সাথে এক ভার্চুয়াল বৈঠকে এই নির্দেশনা দেন। পরের দিনই দলের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে আগামী ১৭ আগস্টের মধ্যে ফান্ডে অর্থ প্রদান করার জন্য চিঠি প্রদান করা হয়।

চিঠিতে বলা হয়েছে- স্থায়ী কমিটির সদস্য, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, ভাইস-চেয়ারম্যান, যুগ্ম মহাসচিবদের জন্য ২০ হাজার টাকা, সম্পাদক, সহ-সম্পাদকদের জন্য ১৫ হাজার টাকা এবং নির্বাহী কমিটির সদস্যদের জন্য ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। কেউ চাইলে নির্ধারিত টাকার চেয়ে বেশিও দিতে পারবেন। এক্ষেত্রে যারা বিএনপির এমপি আছেন তাদের দুই মাসের বেতনের সমপরিমাণ টাকা ফান্ডে জমা দিতে হবে। স্থায়ী কমিটি এবং নির্বাহী কমিটি মিলিয়ে মোট সদস্য সংখ্যা ৬৪০ জন। চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা রয়েছেন ৮২ জন। এর মধ্যে বেশ কয়েকজন মৃত্যুবরণ করেছেন।

জানতে চাইলে বিএনপির জাতীয় ত্রাণ কমিটির আহŸায়ক ও স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, আমাদের কমিটি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছে। ইতোমধ্যে যেসব এলাকায় বেশি বন্যা দেখা দিয়েছে সেসব এলাকায় ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম চলছে। তিনি বলেন, বিএনপি বিরোধী দলে থেকে আর্থিকভাবে ক্ষয়িষ্ণু। এরপরও আমাদের নেতাকর্মীরা সাধ্যের মধ্যে বন্যার্ত অসহায় গরিব মানুষের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম চলছে। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছ থেকেও অর্থ আদায়ের জন্য একটি ফান্ড গঠন করা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন