ঢাকা শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ০৮ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

তিন হাজার ৬শ’ কোটি টাকা হাতিয়ে নেন পিকে হালদার

৯ জনকে দুদকে তলব : ৮৩ জনের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০২০, ১২:০১ এএম

পিকে হালদার


তিন হাজার ৬শ’ কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা এনআরবি গেøাবাল ব্যাংকের তৎকালিন ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পিকে হালদারসহ সংশ্লিষ্ট ৮৩ ব্যক্তির ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক)র অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল বৃহস্পতিবার ‘বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) জব্দ করে।

দুদক সূত্র জানায়, পিকে হালদার পিপলস লিজিং ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, এফএএস ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড ও বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানির (বিআইএফসি) দায়িত্ব পালন করে প্রায় ৩ হাজার ৬শ’ কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচার করেছেন। ২শ’ ৭৫ কোটি টাকা অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে পিকে হালদারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুদক। মামলার এজাহারে পিকে হালদার ও তার স্বার্থ সংশ্লিষ্টদের ব্যাংক হিসাবে সন্দেহজনক ১ হাজার ৬৬৫ কোটি টাকার লেনদেনের বিষয়ে তথ্য রয়েছে।

সূত্রটি আরও জানায়, কয়েকটি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা থাকা অবস্থায় ক্ষমতার অপব্যবহার, দুর্নীতি, কর ফাঁকির মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অবৈধ অর্থের মালিক হয়েছেন পিকে হালদার। অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে দুদক বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটকে তদন্ত করে প্রতিবেদন প্রস্তুত করার জন্য অনুরোধ করে। এর ধারাবাহিকতায় পিকে হালদারের অর্থ লেনদেন নিয়ে এক বিশেষ প্রতিবেদন তৈরি করে প্রতিষ্ঠানটি।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র জানায়, পিকে হালদার ও তার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাবে জমা হয় প্রায় ১ হাজার ৬শ’ কোটি টাকা। এর মধ্যে তিনটি প্রতিষ্ঠানের হিসাবে ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা, পিকে হালদারের হিসাবে ২৪০ কোটি টাকা এবং তার মা লীলাবতী হালদারের হিসাবে জমা হয় ১৬০ কোটি টাকা। তবে এসব হিসাবে এখন জমা আছে মাত্র ১০ কোটি টাকার কম। এছাড়া পিকে হালদার এক ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকেই ২ হাজার কোটি টাকার বেশি অর্থ নিয়েছেন। এসব টাকা দিয়েই আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিকানা কেনা হয়। তবে ঋণ নেয়া অর্থের কোনো হদিস নেই।

দুদকের উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান অভিযোগটি অনুসন্ধান করছেন। অনুসন্ধান প্রক্রিয়ায় হলো ইন্টারন্যাশনালের তিন পরিচালক ও এমডিসহ ৯ জনকে তলব করে দুদক। তাদেরকে আগামী ১৮ আগস্ট হাজির হতে বলা হয়েছে। এর আগে গত ১০ আগস্ট পিকে হালদারসহ ৫ জনকে তলব করা হয়। কিন্তু পিকে হালদার বিদেশে পলাতক রয়েছেন।

 

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
তাসফিয়া আসিফা ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৫:০০ এএম says : 2
ওদেরকে যেখানেই দেয়া হয়েছে সেখানেই লুটপাট আর পাচার ছাড়া কিছুই করেনি।
Total Reply(0)
হিমেল ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৫:০০ এএম says : 0
সব সম্পদ বন্যা দুর্গতদের জন্য বিলিয়ে দেয়া হোক।
Total Reply(0)
Abdullah AL Mamun Amran ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:৫৯ এএম says : 0
উঁচু মাপের অপরাধী
Total Reply(0)
Ruhul ১৪ আগস্ট, ২০২০, ১:০৯ এএম says : 0
Everyday published, Hindus criminal and corruptions. Great post!!
Total Reply(0)
Shamim Chowdhury ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:৫৯ এএম says : 1
৫% হিন্দুদের ৩৩% সরকারি চাকরির কুফল এটা, এর জন্য সরকারই দায়ী।
Total Reply(0)
তানিয়া ১৪ আগস্ট, ২০২০, ১১:১৯ এএম says : 0
এই লুটেরাদের উপযুক্ত শাস্তি হয় না বিধায় বারবার এই ধরনের ঘটনা ঘটছে
Total Reply(0)
দুলাল ১৪ আগস্ট, ২০২০, ১১:১৯ এএম says : 0
একে এমন শাস্তি দেওয়া হোক যে ভবিষ্যতে কেউ এরকম কাজ করার সাহস না পায়
Total Reply(0)
কবির ১৪ আগস্ট, ২০২০, ১২:৪০ পিএম says : 0
এদেশের টাকা ওয়ালা হিন্দু সম্প্রাদায় বেশিরভাগই টাকা ইন্ডিয়াতে পাচার করে।এরাই দেশের বর্তমান দুষমণ।দেশকে বাচাঁতে প্রভাবশালী তথাকথিত সংখ্যালঘুদের প্রফাইল চেক করতে হবে।সেটা সরকারী বা বেসরকারী কর্মচারী হলেও।এদের এই অংশটি খুবই ভয়ানক।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন