ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

স্বরূপে ফিরছে পর্যটন শহর কক্সবাজার

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৭ আগস্ট, ২০২০, ৬:৫৭ পিএম

পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর আবার স্বরূপে ফিরছে দেশের পর্যটন রাজধানী খ্যাত কক্সবাজার। গতকাল থেকে খুলে দেয়া হয়েছে সমুদ্রসৈকত, হোটেল, মোটেল, কটেজ, রেস্টুরেন্টসহ পর্যটন শিল্প সংশ্লিষ্ট ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহ। এখন থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পর্যটকরা কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে যেতে পারবেন পর্যটকরা। থাকতে পারবেন হোটেল ও মোটেলেও।

তবে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলে আবার বন্ধ করে দেওয়া হবে এমন সতর্কতাও রয়েছে। সকল ব্যবসায়ীদের ৬৫ দফা দিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। যদি কেউ সেই নির্দেশনা অমান্য করে তবে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, গত ৫ আগস্ট অনুষ্ঠিত করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির সভায় সিদ্ধান্তের আলোকে সীমিত পরিসরে পর্যটন শিল্প সোমবার (১৭ আগস্ট) খুলে দেয়া হয়েছে। এই সময়ে পর্যটকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, জেলার পর্যটন শিল্পে হাজার হাজার কোটি টাকা ছারাও এরসঙ্গে বিভিন্নভাবে প্রায় ২ লাখ লোক জড়িত। তাদের জীবন-জীবিকার কথা চিন্তা করে সীমিত পরিসরে পর্যটন শিল্প খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি পর্যটকদের প্রতিও কঠোর দৃষ্টি থাকবে। কেউ স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

কক্সবাজারে টুরিস্ট পুলিশের এসপি জিল্লুর রহমান জানিয়েছেন, পর্যটক এবং পর্যটন শিল্প সংশ্লিষ্টদের সার্বিক নিরাপত্তায় পুলিশ বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে। সংশ্লিষ্ট সবাই যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনেই সৈকতসহ বিনোদনের স্থানে বিচরণ করে, তা কড়াকড়িভাবে লক্ষ্য রাখা হবে।

কক্সবাজার হোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাসেম সিকদার বলেন, ‘দীর্ঘ পাঁচ মাস ব্যবসা বন্ধ থাকার কারণে বিপুল লোকসান গুনতে হয়েছে। এখন বিধি-নিষেধ আরোপ করে হলেও পর্যটন শিল্প খুলে দেয়ায় আমরা আনন্দিত। এতে এই শিল্পে জড়িত অর্ধ লাখ শ্রমিক কর্মচারীর ঘরে আনন্দ ফিরে এসেছে।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খুলার অনেক পর্যটক কক্সবাজার আসলেও সাগরে সংকেত ও প্রবল বৃষ্টির কারণে সৈকতে উন্মুক্ত বিচরণ করতে পারেনি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন