ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

হাইমচরে আবারো পানিবন্দি মানুষের অন্তহীন দুর্ভোগ

চাঁদপুর থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ আগস্ট, ২০২০, ১১:৩৩ এএম

চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার নিম্নাঞ্চল আবারো জোয়ারে পানিতে প্লাবিত হয়েছে। নিম্নাঞ্চলের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন এবং বাড়ি-ঘর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানি প্রবেশ করে মানুষ বন্দি অবস্থায় আছে।

বুধবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে মেঘনা নদীতে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সংযুক্ত খাল ও নালা দিয়ে বাঁধের বাইরের অংশ মুহুর্তের মধ্যে পানি প্রবেশ করে এবং ঘর বাড়িগুলো তলিয়ে যায়। এতে অস্থায়ী বন্যার সৃষ্টি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার সাহেবগঞ্জ, বাংলা বাজার, নূর বাজার, ইশানবালা ও গাজীপুরসহ আশপাশের এলাকা এবং অস্থায়ী বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের পশ্চিমে বসতবাড়ি, হাট বাজার তলিয়ে গেছে।

দুই সপ্তাহ আগে হঠাৎ করে একইভাবে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেয়ে বড় ধরণের ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখিন হয় । ওই সময় মানুষের ঘরবাড়ি, মৎস্য খামার ও পানের বরোজের ব্যাপক ক্ষতি হয়। এখন আবারো একই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, উপজেলার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়ি বাঁধের মজমপুর এলাকায় ব্রীজের পশ্চিম অংশে জিও টেক্সটাইল ব্যাগ পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলে এলাকার লোকজনের মাঝে আবারো বন্যা আতংক দেখা দিয়েছে।

এছাড়াও উপজেলার মহজমপুর, কাটাখালি বাজার, তেলির মোড়, হাইমচর বাজার, আমতলী, চরভৈরবী নতুন বাজার, চরভৈরবী লঞ্চঘাট, শহরআলী মোড়, বাবুরচরসহ জোয়ারের পানি বন্যা আকার ধারণ করেছে।

এদিকে গত দু’দিন চাঁদপুরে মেঘনা নদীর পানি বিপদসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Abbey ২৫ আগস্ট, ২০২০, ১২:২২ এএম says : 0
It is appropriate time to make a few plans for the long run and it’s time to be happy. I have learn this post and if I may I want to recommend you some attention-grabbing things or suggestions. Maybe you could write next articles referring to this article. I wish to read even more things approximately it! It is perfect time to make a few plans for the future and it’s time to be happy. I have read this post and if I may I wish to suggest you few fascinating things or advice. Maybe you can write next articles regarding this article. I desire to learn more issues approximately it! It is the best time to make a few plans for the long run and it is time to be happy. I’ve read this publish and if I may I desire to suggest you few attention-grabbing things or tips. Perhaps you can write subsequent articles referring to this article. I wish to read more things approximately it! http://Hats.com/
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন