মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮, ২১ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ছাত্রলীগ নেতাকে জুতাপেটার ভিডিও ভাইরাল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ আগস্ট, ২০২০, ১১:৩৬ এএম

জুতাপেটার ৪১ সেকেন্ডের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। এ ভিডিও ব্যক্তিগত ওয়ালে আপলোড দিয়ে জেলার ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা ওই ছাত্রলীগ নেতাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান।
জয় কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি। তিনি কুমিল্লার লালমাই উপজেলার বাগমারা দক্ষিণ ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে। সোমবার বাগমারা দক্ষিণ ইউনিয়নের চেঙ্গাহাটা এলাকার চৌমুহনীতে ছাত্রলীগ নেতা জয়ের ওষুধ ফার্মেসির ভিতরে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনাটি ঘটে। শালিস বৈঠকে উপস্থিত কয়েকজন ও স্থানীয় ইউপি সদস্য রতন মেম্বার জানান, চেঙ্গাহাটা চৌমুহনীতে জয়ের একটি ওষুধ ফার্মেসি রয়েছে। পাশে একটি চা দোকান আছে। দুপুরে মানুষের উপস্থিতি কম থাকায় চা দোকানির নয় বছরের মেয়েটি বাবার দোকানে এলে জয় তাকে তার ফার্মেসিতে ডেকে নেন। জয় তাকে ফার্মেসির পেছনের রুমে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। শিশুটি চিৎকার করলে অন্য দোকানিরা তাকে উদ্ধার করেন। পরে লালমাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান রকেট মজুমদারসহ অন্যরা বসে মীমাংসার চেষ্টা করেন। বৈঠকে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা জয়নাল আবেদিন জয়কে জুতাপেটা করা হয়। শালিস বৈঠকের বিচার মেনে নিয়েছে শিশুর পরিবার।

ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় লালমাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আয়াত উল্লাহ জানান, ‘জয় আমার কাছে স্বীকার করেছেন মেয়েটির কাঁধে হাত দিয়ে কিস্ করেছেন মাত্র। তারপর তাকে শালিস বৈঠকে জুতাপেটা করা হয়।’

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা জয়নাল আবেদিন জয় অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘মেয়েটি আমার ফার্মেসিতে গিয়েছে। তবে আমি তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করিনি। শালিস বৈঠকে রকেট ভাই আমাকে ডেকে নিয়ে জুতাপেটা করবেন আগে বুঝতে পারিনি।’

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন রুবেল বলেন, ‘অপরাধ ব্যক্তির, দলের নয়। অভিযুক্ত জয়কে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদক বরাবর আমরা আবেদন করেছি।’

লালমাই থানার ওসি মোহাম্মদ আইয়ুব বলেন, ‘আমি বিষয়টি ফেসবুকে দেখেছি। তবে কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেব।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
Jack Ali ২৬ আগস্ট, ২০২০, ১২:২৬ পিএম says : 0
He should be killed-- then nobody will dare to rape or refrain from attempted to rape..
Total Reply(0)
Mohammed Ibrahim Khalil ২৮ আগস্ট, ২০২০, ১০:২৪ এএম says : 0
ছাত্র সংগঠন এর কমিটি থাকবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক। আমরা ছাত্র থাকা অবস্থায় তাই দেখেছি। এখন ইউনিয়ন/ওয়ার্ড থেকে শুরু করে একেবারে জাতীয় পর্যায়ে পর্যন্ত ছাত্রসংগঠন। এ সকল সংগঠনের নেতাকর্মীরা অধিকাংশ অছাত্র এবং বখে যাওয়া ছেলেপান। এ থেকে জাতির মুক্তি দরকার।
Total Reply(0)
Azad ২৯ আগস্ট, ২০২০, ২:০০ এএম says : 0
এই বদমাইশ ও লম্পট দের কে জুতা পিঠা ও দল থেকে বহিষ্কার করা কোনো সমাধান নয় কারন ওদের কোনো সরম লজ্জা নাই তাই ওদের কে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে না হয় ঐ পাপিষ্ঠাদের কে আর বেশি বেশি বেফাশ কাজ করার সুযোগ দেওয়া হয় আরো দুষ্ট রা দেখবে ধরা পরলে আর বেশি বড়ো কিছু ই না হয় তো দুই চার ঘা জুতা আর কি ,কিন্তু এই ঘটনা যদি বহির বিশ্বে হতো তাহলে ঐ সালিস কমিটি সহ জেলে যেতে হতো তাই দয়া করে ঐ লোকটার আইনি ব্যবস্থা করতে হবে, আজাদ লন্ডন হতে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন