ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে সুপার লিগ শুরু অস্ট্রেলিয়ার

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

দেড়শ ছোঁয়ার আগে ৫ উইকেট খুইয়ে ফেলা অস্ট্রেলিয়াকে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ পাইয়ে দিলেন মিচেল মার্শ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। লক্ষ্য তাড়ায় শেষ পর্যন্ত লড়াই চালালেন ইংল্যান্ডের স্যাম বিলিংস। তবে ম্যাচসেরা জস হ্যাজেলউড ও অ্যাডাম জ্যাম্পার বোলিং নৈপুণ্যের বিপরীতে বিফলে গেল তার প্রথম আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি।

আইসিসি ওয়ানডে সুপার লিগে শুভ স‚চনা করেছে অস্ট্রেলিয়া। গতপরশু রাতে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে ১৯ রানে হারিয়েছে তারা। ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৯৪ রান তোলে অজিরা। জবাবে পুরো ওভার খেলে স্বাগতিকরা স্কোরবোর্ডে তুলতে পারে ৯ উইকেটে ২৭৫ রান।
আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ২৯৪ রান তুলেছিল ফিঞ্চের দল। স্মিথের জায়গায় তিনে ব্যাট করা মার্কাস স্টয়নিস ৪৩ রান করেন। ২৪ ওভারের মধ্যে ১২৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ইনিংসের খেই হারানোর পথেই ছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু সাতে নামা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল তা হতে দেননি। ৫৯ বলে তার ৭৭ রানের ইনিংস এগিয়ে দেয় অস্ট্রেলিয়াকে। সঙ্গে মিচেল মার্শের ৭৩ রানের ভূমিকাও কম নয়।
ওল্ড ট্রাফোর্ডে ওয়ানডেতে এত বেশি রান তাড়া করে জিততে পারেনি কোনো দল। জিততে হলে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে তাই রেকর্ডই গড়তে হতো। কিন্তু বেশ কাছে গিয়েও পারেনি স্বাগতিকেরা। ওপেনার জনি বেয়ারস্টোর ব্যাট থেকে এসেছে ৮৪। মিডলঅর্ডারে নামা স্যাম বিলিংস করেছেন ১১৮। তবু শেষ দুই ওভারে গিয়ে ৪২ রানের সমীকরণে পিছিয়ে পড়েছিল ইংল্যান্ড। বিলিংস-আর্চার মিলে এ ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করেও পারেননি। অস্ট্রেলিয়ার এই জয়ে দুর্দান্ত অবদান জস হ্যাজলউডের। ২৬ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট, সঙ্গে ৩ মেডেন! লাইন-লেংথ আর বাউন্সের অনুপম প্রদর্শনী দেখান তিনি। লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা ৪ উইকেট নিলেও ম্যাচসেরা হ্যাজলউড-ই।
এ ম্যাচে খেলেননি অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথ। নেটে ব্যাটিংয়ের সময় মাথায় আঘাত পেয়েছেন তিনি। আজ একই ভেন্যুতে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হচ্ছে স্মিথকে। সন্দেহ আছে তার খেলা নিয়েও। প্রথম ম্যাচের টস করতে এসে স্মিথের দলে না থাকার খবর জানিয়ে চমকে দিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন। ‘প্রাথমিক সতর্কতা’ হিসেবে তাঁকে বসিয়ে রাখার কথা জানান ফিঞ্চ। কোচিং দলের এক সদস্যকে নিয়ে বৃহস্পতিবার নেটে ব্যাট করছিলেন স্মিথ। সেই সদস্যের ‘থ্রো-ডাউন’ এ আঘাত পান তিনি। এরপর খুব দ্রুতই তার ‘কনকাশন’ (মাথায় আঘাতজনিত জটিলতা) পরীক্ষা করানো হয়। অস্ট্রেলিয়া দলের স‚ত্র থেকে এএফপি জানিয়েছে, দ্বিতীয় ওয়ানডের আগেও আরও একবার স্মিথের ‘কনকাশন’ পরীক্ষা করানো হবে। এরপর তার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে পরের ম্যাচে তিনি খেলতে পারবেন কি না। আপাতত বিশ্রামে আছেন তিনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

অস্ট্রেলিয়া : ৫০ ওভারে ২৯৪/৯ (ওয়ার্নার ৬, ফিঞ্চ ১৬, স্টয়নিস ৪৩, লাবুশেন ২১, মার্শ ৭৩, কেয়ারি ১০, ম্যাক্সওয়েল ৭৭, স্টার্ক ১৯*; ওকস ১/৫৯, আর্চার ৩/৫৭, উড ৩/৫৪, মইন ০/৫৯, রশিদ ২/৫৫)। ইংল্যান্ড : ৫০ ওভারে ২৭৫/৯ (রয় ৩, বেয়ারস্টো ৮৪, রুট ১, মরগ্যান ২৩, বাটলার ১, বিলিংস ১১৮; স্টার্ক ০/৪৭, হ্যাজেলউড ৩/২৬, কামিন্স ১/৭৪, জ্যাম্পা ৪/৫৫, মার্শ ১/২৯)। ফল : অস্ট্রেলিয়া ১৯ রানে জয়ী। ম্যান অব দ্য ম্যাচ : জস হ্যাজেলউড (অস্ট্রেলিয়া)। সিরিজ : ৩ ম্যাচে ১-০ তে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন