ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ইসরায়েলের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ সম্পর্ক স্থাপনে চুক্তি সম্পন্ন করল আমিরাত-বাহরাইন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:১৪ এএম

মুসলিম বিশ্বের প্রবল সমালোচনা উপেক্ষা করে মুসলমানদের প্রথম কেবলা মসজিদুল আকসার দখলদার ইসরায়েলের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ক স্থাপনে চুক্তি সই সম্পন্ন করল সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। মার্কিন প্রেসিডেন্টের দপ্তর হোয়াইট হাউসে বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার রাতে এই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। খবর রয়টার্সের।

আমিরাতের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল্লাহ বিন জায়েদ আলে নাহিয়ান এবং বাহরাইনের পক্ষে ছিলেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিন রাশেদ আল যিয়ানি। আর ইসরায়েল পক্ষে চুক্তিতে সই করেন প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

হোয়াইট হাউজের সাউথ লনে ওই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এসময় পেছনে চার দেশেরই পতাকা ছিল। চুক্তি স্বাক্ষরের অনুষ্ঠানে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু, আমিরাতের পররাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিষয়ক মন্ত্রী শেখ আব্দুল্লাহ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান, বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুললতিফ আল জায়ানি এবং ট্রাম্পসহ চার দেশের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

চুক্তি স্বাক্ষরের আগে শেখ আব্দুল্লাহ বলেন, আজ আমি এখানে শান্তির জন্য হাত বাড়িয়েছি এবং শান্তির হাত পেয়েছি। ‘ফিলিস্তিন অঞ্চল সংযুক্তির সিদ্ধান্ত স্থগিত করায়’ এসময় তিনি ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুকে ধন্যবাদ জানান। এই শান্তির মাধ্যমে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য একটি উন্নত ভবিষ্যৎ অর্জিত হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
এই তিন দেশ আরবি, হিব্রু ও ইংরেজি ভাষায়- দ্য আব্রাহাম অ্যাকর্ড, দ্য ডিক্লারেশন অব পিস অ্যান্ড দ্য ট্রিটি অব পিস, ডিপ্লোম্যাটিক রিলেশন্স অ্যান্ড ফুল নরমালাইজেশন-এই তিনটি ডকুমেন্টে সই করে।

আরব ও ইহুদিদের মধ্যে নতুন এই রাজনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের কারিগর ট্রাম্প এই চুক্তিকে ‘মধ্যপ্রাচ্যে শান্তির জন্য একটি ঐতিহাসিক দিন এবং বিশ্বের জন্য অবিশ্বাস্য একটি দিন’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

তিনি বলেন, আমরা ইতিহাসের গতিপথ বদলে দিতে এখানে উপস্থিত হয়েছি। এর আগে গণমাধ্যমকে ট্রাম্প বলেছিলেন যে, আরও ‘৫ থেকে ৬টি’ আরব দেশ ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করবে। এমনকি ফিলিস্তিনিরাও ইসরায়েলের সঙ্গে শান্তি স্থাপন করবে বলে জানান তিনি।
চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের আগে ট্রাম্প ফক্স নিউজকে বলেন, কোনও ধরনের রক্তপাত ছাড়াই মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে।
উল্লেখ্য, গত মাসে প্রথম উপসাগরীয় দেশ হিসেবে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। এর কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে বাহরাইনও আমিরাতের পদাঙ্ক অনুসরণ করে। ফলে মিশর, জর্ডান, আমিরাত ও বাহরাইন-এই চার আরব রাষ্ট্র ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করলো।
আরব আমিরাত ও বাহরাইন হচ্ছে সৌদি আরবের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ দু’টি দেশ। অবশ্য এখন পর্যন্ত সৌদি আরবের পক্ষ থেকে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের ঘোষণা দেওয়া হয়নি। বরং তারা ফিলিস্তিন ইস্যুতে শান্তিপূর্ণ সমাধান চায় বলে জানিয়েছে।

এদিকে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ সম্পর্ক স্থাপনের চুক্তি সইয়ের অনুষ্ঠান চলাকালে দখলদার ইসরাইলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ফিলিস্তিনিরা। এই হামলায় অন্তত ৬ জন ইহুদিবাদী আহত হয়েছে।

ফিলিস্তিনি সূত্রগুলো জানিয়েছে, দখলদার ইসরাইলের আশকেলন ও আশদুদ উপশহরে কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়েছে। ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ সংগ্রামীরা এসব ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। বিশ্বাসঘাতকতার চুক্তির প্রতিবাদে তারা এই হামলা চালিয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন