ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ঢাকায় এজেন্সির মালিক আটক

সউদীতে কিশোরী খুন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:১৭ এএম

সউদী আরবে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে কিশোরী উম্মে কুলসুমের (১৪) মৃত্যুর ঘটনায় তাকে সেদেশে পাঠানো রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক মকবুল হোসাইন ও তার সহযোগী তারেককে আটক করেছে র‌্যাব। গতকাল দুপুরে রাজধানীর ফকিরাপুলে মেসার্স এম এইচ ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল নামে ওই রিক্রুটিং এজেন্সির কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু। তিনি দৈনিক ইনকিলাবকে জানান, সৌদি আরবে গৃহকর্তার নির্যাতনে কিশোরী উম্মে কুলসুম নিহত হওয়ার ঘটনায় তাকে সৌদিতে পাঠানো রিক্রুটিং এজেন্সির কার্যালয়ে অভিযান চালানো হয়। এ সময় মকবুল হোসাইন ও তার সহযোগী তারেককে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। তাই র‌্যাব বাদী হয়ে মানবপাচার আইনে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য, গত ৯ আগস্ট চাকরির আশায় সৌদি আরবে গিয়ে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে সৌদি আরবের একটি হাসপাতালে মারা যান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কিশোরী উম্মে কুলসুম (১৪)। গত ১১ সেপ্টেম্বর রাতে কুলসুমের লাশ দেশে আনা হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার নূরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের মেয়ে উম্মে কুলসুমকে স্থানীয় দালাল রাজ্জাক মিয়ার মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা খরচ করে ১৭ মাস আগে এম এইচ ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের মাধ্যমে গৃহকর্মীর কাজে সৌদি আরব পাঠানো হয়।

সেখানে গৃহকর্মী হিসেবে যোগদানের পর থেকেই কুলসুমের ওপর শারীরিক ও যৌন নির্যাতন শুরু করে মালিকপক্ষ। নির্যাতনের কারণে কুলসুমকে ফিরিয়ে আনার জন্য রিক্রুটিং এজেন্সির সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করার পরও তাদের পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পায়নি পরিবার। এর মধ্যে চার মাস আগে সৌদি আরবে গৃহকর্তা ও তার ছেলে মিলে কুলসুমের দুই হাঁটু, কোমর ও পা ভেঙে দেয়। এর কিছুদিন পর একটি চোখ নষ্ট করে রাস্তায় ফেলে দেয়। সেখান থেকে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে গত ৯ আগস্ট চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় কুলসুম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন