ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

পেঁয়াজ পচে পানি ঝরছে : এলসি করা ট্রাক ছাড়ছে না ভারত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:৪১ এএম

অজ্ঞাত করণে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে আছে শত শত ট্রাক। আর সেই সব ট্রাকে ১০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ। সেই পেঁয়াজের জন্য বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা এলসির কোটি কোটি ডলার ভারতের ব্যাংকে জমা দিয়েছে। তারপরও নীতি বহির্ভূতভাবে তারা পেঁয়াজ আটকে রেখেছে। সপ্তাহ ধরে পড়ে আছে পেঁয়াজগুলো। এতে পচন ধরেছে। ট্রাক থেকে ঝরছে পানি। আর বিশাল ক্ষতির আশঙ্কায় ব্যাবসায়ীরা দিশেহারা।

লিখিত অনুমতিপত্র না পাওয়ায় হিলি স্থলবন্দরেই পচে যাচ্ছে অন্তত ৩শ' ট্রাক বা প্রায় ১০ হাজার মেট্রিক টন ভারতীয় পেঁয়াজ। এলসি জটিলতায় এসব পেঁয়াজ বাংলাদেশে প্রবেশ করছে না বলে জানা গেছে। আগের এলসি করা পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক দাঁড়িয়ে আছে ভারতের অভ্যন্তরে। ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের পর গেলো রোববার আগে টেন্ডার হওয়া পেঁয়াজগুলো আমদানির অনুমোদন পায় বাংলাদেশের আমদানিকারকরা। তবে লিখিত অনুমোদন না আসায় বৃহস্পতিবারও (১৭ সেপ্টেম্বর) আসেনি ভারতীয় পেঁয়াজ।

এরিমধ্যে ট্রাকগুলোতে বোঝাই করা পেঁয়াজ পচতে শুরু করেছে। কিছু কিছু ট্রাক থেকে পেঁয়াজ পচা পানি ঝরতেও দেখা গেছে।

আগের করা এলসির টাকা জমা দেয়া হয়েছে ভারতের ব্যাংকে। দিয়ে দেয়া হয়েছে গেটপাসও। এরপর ট্রাক আটকে দেয়াকে অন্যায় বলছেন বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা। তারা বলছেন, সময় যত গড়াচ্ছে ততই এসব পেঁয়াজ পচে যাচ্ছে।

এক ব্যবসায়ী বলেন, এমনিতেই খুব গরম পড়েছে। এরমধ্যে বৃষ্টিও হচ্ছে। যা অবস্থা তাতে দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে সব পেঁয়াজ পচে যাবে।

ভোমরা স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন-এর সভাপতি এইচ এম আরাফাত বলেন, পেঁয়াজগুলো এরই মধ্যে আমদানির জন্য বাংলাদেশ কাস্টমস ভারতের গোজাডাঙ্গা কাস্টমসকে গেটপাস দিয়েছে। তারপরও অন্যায়ভাবে তারা আমাদের পেঁয়াজ আটকে রেখেছে। অনতিবিলম্বে যদি এই জটিলতার অবশান ঘটানো না হয় তাহলে আমরা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হব। এরই মধ্যে এলসির কোটি কোটি ডলার ভারতের ব্যাংকে জমা দেয়া হয়েছে। তারপরও নীতি বহির্ভূতভাবে তারা পেঁয়াজ আটকে রেখেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন