ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

শোক সাগর হাটহাজারী

আল্লামা শাহ আহমদ শফীর জানাযা দাফন সম্পন্ন : লাখো তৌহিদী জনতার কান্না আহাজারি

চট্টগ্রাম ব্যুরো ও হাটহাজারী সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:৩৭ পিএম | আপডেট : ৩:২০ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

 

লাখো ধর্মপ্রাণ মানুষের অংশগ্রহণের মধ্যদিয়ে স্মরণকালের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ নামাজে জানাজা শেষে হেফাজতে ইসলামের আমির শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার বাদ জোহর (দুপুর ২টায়) হাটহাজারী মাদরাসা মাঠে জানাজা শেষে মাদরাসার কবরস্থানে দেশের সর্বজন শ্রদ্ধেয় এ আলেমেদ্বীনকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়। লাখো তৌহিদী জনতার কালেমা শাহাদাৎ ও দোয়া-দরূদের মধ্যদিয়ে তাকে দাফন করা হয়।
দেশবরেণ্য আলেমেদ্বীন দেশের হাজার হাজার আলেমের শিক্ষক আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে শেষ বিদায় জানাতে আসা মানুষের ঢলে উত্তর চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলা জনসমুদ্রে পরিণত হয়। কয়েক বর্গ কিলোমিটার এলাকায় নামাজে জানাজায় শরিক হন লাখ লাখ মানুষ। মরহুমের বড় পুত্র মাওলানা মোহাম্মদ ইউসুফ নামাজে জানাজায় ইমামতি করেন। তার আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি তার পরিবারের পক্ষ থেকে পিতা আল্লামা শাহ আহমদ শফীর জন্য দোয়া চান। এ সময় জানাজায় শরিক লাখো জনতা কান্নায় ভেঙে পড়ে। আল্লামা শফীর অগণিত ছাত্র চিৎকার করে কাঁদতে থাকেন। জানাজা পূর্ব লাখো মানুষের সমাবেশে এক শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়। সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে স্থানীয় সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, এদেশে মাদরাসা শিক্ষা তথা কওমি ধারার শিক্ষা বিস্তার ও প্রসারে আল্লামা শাহ আহমদ শফী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। তার একান্ত প্রচেষ্টায় এদেশের কওমি মাদরাসার সনদের স্বীকৃতি পাওয়া গেছে। নামাজে জানাজা শেষে আল্লামা শাহ আহমদ শফীর অর্ধশত বছরের স্মৃতি বিজড়িত মাদরাসা ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে বায়তুল আতিক জামে মসজিদের সামনের কবরস্থানে তার কফিন নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার দাফন সম্পন্ন হয়।
সকাল ৯টায় তার কফিন ঢাকা থেকে হাটহাজারী মাদরাসায় আনা হয়। মাদরাসার একটি শ্রেণিকক্ষে কফিন সকলের দেখার জন্য রাখা হয়। লাখো জনতা সারিবদ্ধভাবে তাকে শেষবারের মতো দেখেন। মাদরসা শুরা কমিটির সিদ্ধান্ত এবং আল্লামা শফীর অছিয়ত অনুযায়ী হাটহাজারী মাদরাসায় জানাযা ও দাফন সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত নেয় শুরা কমিটি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগিতা দেয়া হয়।
আল্লামা শাহ আহমদ শফী শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। নাস্তিক মুরতাদ বিরোধী আন্দোলনের পুরোধা দেশের কওমি শিক্ষার কিংবদন্তি এ আলেমের ইন্তেকালে চট্টগ্রামসহ সারাদেশে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
তার ইন্তেকালে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
দেশের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালকের পদ থেকে অব্যাহতি নেয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই দুনিয়া থেকে চিরবিদায় নিলেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী।
১০৩ বছর বয়সী আল্লাম শাহ আহমদ শফী দীর্ঘদিন যাবৎ বার্ধক্যজনিত দুর্বলতার পাশাপাশি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। অসুস্থতার কারণে এর আগেও দফায় দফায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের মাধ্যমে ৯২ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত এ দেশের তৌহিদী জনতার ঈমান, আক্বিদা রক্ষার আন্দোলনে ঐতিহাসিক ভূমিকা রাখেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী।
কওমি ধারার ইসলামী শিক্ষা বিস্তারের পথিকৃৎ, বিশ্ববরেণ্য এ আলেম সাদাসিধে জীবনযাপন করেন। রাঙ্গুনিয়ায় তার নিজ বাড়ি হলেও তার ধ্যান-জ্ঞান সবকিছুই ছিল হাটহাজারী মাদরাসাকে ঘিরে। ২০ বছরের শিক্ষকতা এবং ৩০ বছরের মহাপরিচালকের (মুহতামিম) দায়িত্ব পালনকালে হাটহাজারী মাদরাসাতেই তিনি থাকতেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (17)
Nazmul Islsm ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:৪৮ পিএম says : 1
We pray for him. He was the great islamic and spritual leader.
Total Reply(0)
Prof Emdad ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:২৯ পিএম says : 0
Last evening two Suns set together: Allama Ahmad Shafi, spiritual leader of the Muslim Ummah, a sincere slave of Allah, and another slave of Allah, the Sun. May Allah grant his slave one of the highest positions among his beloved slaves in Jannatul Firdaus. Oh nation, take forward the unfinished mission of this great leader with unity, ikhlas,and commitment. This is the responsibility this great man perhaps has left us with. I particularly call upon the Ulama e Deoband of this country to shoulder this great responsibility so that no Taguti power can snatch away the victory he achieved.
Total Reply(0)
Supik Ahmmed ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪২ পিএম says : 0
আল্লাহ যেন হজরতকে জান্নাতে ফরদৌস ধান করেন চুম্মা আমীন
Total Reply(0)
Abdullah Bin Husain ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪২ পিএম says : 0
আল্লাহ তাআলা হযরতকে জান্নাতের আলা মাকাম নসীব করুন। আমীন!
Total Reply(0)
Shamim Chowdhury ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪২ পিএম says : 0
আল্লাহ তাআলা জান্নাত দান করুক আমিন
Total Reply(0)
Sajidur Rahman ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪২ পিএম says : 0
আল্লাহ জান্নাতুল ফেরদৌসের আলা মোকাম নসীব করুন। আমিন
Total Reply(0)
মুফতী আবু তলহা নূরী ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪৩ পিএম says : 0
হে দয়াময় আল্লাহ আমাদের শায়েখকে চির তরে মাগফিরাত ও জান্নাতের উঁচু মকাম নসীব করুন আমীন।
Total Reply(0)
Farhadul Alam Minhaz ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪৩ পিএম says : 0
বিদায় ইসলামের বীর সেনানি আল্লাহ আপনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুক।।। আমীন।।।
Total Reply(0)
Alamgir Hossain ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪৪ পিএম says : 0
বিচক্ষণতার অভাবে লাখো মানুষ হুজুরের জানাজা হতে বঞ্চিত হয়েছে। এধরনের ব্যাক্তির একাধিক জানাজার ব্যবস্থা করা দরকার ছিল। বিশেষ করে ১টি ঢাকা ও ১টি চট্টগ্রাম শহর কেন্দ্রিক।
Total Reply(0)
ইবনে মাহমুদ ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪৫ পিএম says : 0
আজকের দিনটি ইতিহাসে এক স্মরণীয় হয়ে থাকবে। লাখো লাখো মানুষে স্রোত হাটহাজারীতে! আল্লাহ তুমি তোমার ওলীকে জান্নাতের উচ্চ মাকাম দান করিও।
Total Reply(0)
Sohel Rana ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪৬ পিএম says : 0
আল্লাহ হুজুরকে জান্নাতের মেহমান হিসাবে কবুল করুন, আমিন
Total Reply(0)
Md Didar ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪৭ পিএম says : 0
সরকারের কাছে আমাদের দাবি রাষ্ট্রীয় শোক দিবস ঘোষণা করা হউক। এবং সংসদে শোক প্রস্তাব পাশ করা হউক।
Total Reply(0)
ইবনে মাহমুদ ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪৭ পিএম says : 0
আজকের দিনটি ইতিহাসে এক স্মরণীয় হয়ে থাকবে। লাখো লাখো মানুষে স্রোত হাটহাজারীতে! আল্লাহ তুমি তোমার ওলীকে জান্নাতের উচ্চ মাকাম দান করিও।
Total Reply(0)
Md Toufiqul Islam ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:৪৯ পিএম says : 0
হে আল্লাহ, তুমি হুজুর রহঃ তে জান্নাতের উচ্চ মাকাম দান করো, হে আল্লাহ,নিজেকে মানাতে পারছিনা আমাদের মাথার তাজ হুজুর আর নেই,,হে আল্লাহ হুজুরের মেহনতের উচিলায় তুমি সকল মুসলিমকে সঠিক বুঝ দাও।আমিন।
Total Reply(0)
Monjur Rashed ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৪:০৭ পিএম says : 0
Death & resignation from Madrasha have occurred almost simultaneously. He had to suffer a lot for controversial activities of Anas Manadi. Finally, he was compelled to resign from his post.
Total Reply(0)
Monjur Rashed ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৪:৩৩ পিএম says : 0
Allama Shofi could not tolerate the shock of sudden resignation which aggravated his journey to death.
Total Reply(0)
shofik ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:৩৮ পিএম says : 0
এ থেকে আমাদের সকলের অনেক কিছু শিখার আছে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন