ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সিরিয়ায় সেনা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

পারস্য উপসাগরে বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

ইরানের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে একতরফা অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখার হুমকি দেয়ার পর পারস্য উপসাগরে একটি বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ইউএসএস নিমিৎজ নামের ওই বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজটি ইতোমধ্যেই হরমুজ প্রণালী পেরিয়ে পারস্য উপসাগরের পানিসীমায় প্রবেশ করেছে। গত ১০ মাসের মধ্যে এই প্রথম কোনো মার্কিন বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ পারস্য উপসাগরে মোতায়েন করা হলো। যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, পারস্য উপসাগরে একটি স্ট্রাইক গ্রুপ পাঠানো হয়েছে যার নেতৃত্বে রয়েছে ইউএসএস নিমিৎজ। ওই গ্রুপে রয়েছে দুটি গাইডেড মিসাইল ক্রুজার এবং একটি গাইডেড মিসাইল ডেস্ট্রয়ার। পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলের মিত্রদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়ার কাজ করবে এই স্ট্রাইক গ্রুপ। অপরদিকে, সিরিয়ায় রুশ বাহিনীর সঙ্গে একাধিকবার যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ার পর যুক্তরাষ্ট্র দেশটিতে বাড়তি সেনা মোতায়েন করেছে। মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে শনিবার বিবিসি জানায়, সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্র বাড়তি ছয়টি অস্ত্র সজ্জিত ট্যাংক এবং শতাধিক সেনা পাঠিয়েছে। গৃহযুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ার উত্তরপূর্বাঞ্চলে মার্কিন এবং রুশ বাহিনী নিয়মিত টহল দেয়। এ বছর দুই বাহিনী বেশ কয়েকবার মুখোমুখি হওয়ায় ওই অঞ্চলে উত্তেজনা বেড়েছে। শুক্রবার ‘ইউএস সেন্ট্রাল কমান্ড’র এক মুখপাত্র বলেন, ‘‘যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ায় অন্য কোনো দেশের সঙ্গে সংঘাতে জড়াতে চায় না। তবে প্রয়োজনে অবশ্যই যৌথ বাহিনীকে সুরক্ষা দেবে।” এ মার্কিন কর্মকর্তা সরাসরি রাশিয়ার নাম উল্লেখ না করলেও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক কর্মকর্তা বলেন, ‘‘উত্তরপূর্ব সিরিয়ায় সেনা মোতায়েন বৃদ্ধির মাধ্যমে আমরা রাশিয়াকে স্পষ্ট করে পারষ্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে সংঘাত কমিয়ে আনার যে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে তা মেনে চলার কথা বলছি। সেখানে রাশিয়া এবং অন্যান্য দলগুলোর সব ধরনের অপেশাদার, অনিরাপদ এবং উসকানিমূলক কাজ থেকে বিরত থাকা উচিত।” মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এনবিসি নিউজ জানায়, উত্তর-পূর্ব সিরিয়ার একটি ‘নিরাপদ জোন’ যেখান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ বাহিনী এবং কুর্দিরা কার্যক্রম পরিচালনা করে সেখানে রুশ বাহিনীর প্রবেশ আটকাতেই নতুন করে সেনা ও সাঁজোয়া যান পাঠানো হয়েছে। গত মাসের শেষ দিকে মার্কিন সেনাদের একটি দল রাশিয়ার একটি সাঁজোয়া যানের মুখোমুখি হয়ে গেলে লড়াইয়ে সাত মার্কিন সেনা আহত হয়। লড়াইয়ের ভিডিও পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে পোস্ট করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়া সরকার এ ঘটনার জন্য পরষ্পরকে দায়ী করেছে। যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, রুশ সেনারা তাদের ‘নিরাপদ জোনে’ প্রবেশে করেছে। অথচ চুক্তি অনুযায়ী সেখানে তাদের প্রবেশ করার কথা না। অন্য দিকে রাশিয়া বলেছে, তারা মার্কিন বাহিনীকে আগেই ওই এলাকায় টহল দেওয়ার কথা জানিয়েছিল। সিএনএন, রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন