ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সিসিবিরোধী বিক্ষোভ দমনে মিসরে নিরাপত্তা সতর্কতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

নির্বাসিত বিরোধী নেতা মোহাম্মাদ আলী আহূত সরকারবিরোধী বিক্ষোভ দমনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে মিসরের বিভিন্ন প্রধান প্রধান শহরে নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। আনাদোলু এজেন্সি শুক্রবার একথা জানিয়েছে। দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসির সাবেক ঘনিষ্ঠ ঠিকাদার আলী দুর্নীতির অসংখ্য ঘটনা প্রকাশ করেছেন এবং গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর সিসিবিরোধী বিক্ষোভের ডাক দিয়েছিলেন। আজও একই ধরনের প্রতিবাদে যোগদানের আহ্বান জানিয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী এবং সূত্র আনাদোলু এজেন্সিকে জানিয়েছে যে, কায়রোর তাহরির স্কয়ার, আলেকজান্দ্রিয়া এবং সুয়েজে অনেক পুলিশ এবং সেনা সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। তারা সারাদেশে বহু ক্রসিং এবং মহাসড়কগুলোতে সামরিক চেকপয়েন্টও স্থাপন করেছে। এদিকে মিসরীয় কর্তৃপক্ষ বিশেষত কায়রোর কেন্দ্রস্থল ও এর আশেপাশের ক্যাফেগুলো বন্ধ এবং নির্বিচারে আটক অভিযান শুরু করেছে।
মিসরের একটি নিউজ ওয়েবসাইট জানিয়েছে, বিক্ষোভ অব্যাহত থাকায় প্রতিবাদকারী ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষের বিষয়টি অস্বীকার করা যায় না। পরিবহন ও ব্যবসাও বিঘিœত হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। মিসরের মন্ত্রিপরিষদের মুখপাত্র নাদের সাদ একটি টেলিভিশন বিবৃতিতে ক্যাফে বন্ধের বিষয়টি অস্বীকার করে জোর দিয়ে বলেছেন: ‘এটি কেবল অপপ্রচার’।
আল জাজিরার সাথে কথা বলতে গিয়ে জনাব আলী নিরাপত্তা বাহিনীর বিধিনিষেধ সত্তে¡ও মিসরীয়রা রাস্তায় নেমে আসবেন বলে প্রত্যাশা করেন। তিনি বলেন, তারা বেশ কিছু অর্থনৈতিক সঙ্কটের মুখে পড়েছেন। এর মধ্যে রয়েছে ইথিওপিয়ান বাঁধ নিয়ে ক‚টনৈতিক ব্যর্থতা এবং লাইসেন্সবিহীন আবাসন ভেঙে দেয়া। আলীর সিসি বিরোধী বিক্ষোভের ডাক সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে এবং বিরোধীদের এ আহ্বানে সাড়া দেয়ার ক্ষেত্রে সতর্কতা দিয়ে বিক্ষোভোত্তর সম্ভাব্য আটকাভিযানের কথা মনে করিয়ে দেয়া হয়েছে।
এক সপ্তাহ আগে কর্মীরা লাইসেন্সবিহীন বাড়িঘর ধ্বংস করার অনুমতি দেয়ার আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে গিজা এবং আলেকজান্দ্রিয়ায় বিক্ষোভকারীদের ভিডিও পোস্ট করেন। এটি সরকারকে আইনটিতে কিছু পরিবর্তন আনতে বাধ্য করেছিল। পুলিশ কর্তৃক তরুণ-তরুণীদের হত্যার প্রতিবাদে কয়েক সপ্তাহ আগে কয়েকশো প্রতিবাদকারী কায়রোর পশ্চিমে জড়ো হয়েছিল। পাবলিক প্রসিকিউশন ঘোষণা করেছে যে, তারা এ ঘটনাটি তদন্ত করবে। সূত্র : মিডল ইস্ট মনিটর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Jack Ali ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০২ পিএম says : 0
O'Allah destroy CC and his barbarian supporter by corona virus and establish the rule of Allah [SWT] Ameen.
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন