ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সুন্দরগঞ্জে ভারী বর্ষণে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫:০৬ পিএম

অবিরাম ভারী বর্ষণে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে নদ- নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। নিমজ্জিত হয়েছে নিম্নাঞ্চলের আমন ক্ষেতসহ বিভিন্ন ফসলের ক্ষেত । এছাড়া উপজেলার তারাপুর, বেলকা, হরিপুর, চন্ডিপুর, শ্রীপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত তিস্তার নদীর বিভিন্ন চরের আমন ক্ষেতসহ নানাবিধ সবজির ক্ষেত হয়েছে পানিতে নিমজ্জিত। গত এক সপ্তাহ থেকে ঘন ঘন প্রবল বর্ষনে উপজেলার নিম্নাঞ্চলসমূহ পানিতে টইটুম্বুর হলেও এখন তা বন্যায় রুপ নেয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। কিছু কিছু চরাঞ্চলের নিমজ্জিত ফসলের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। তিস্তা নদীর চরাঞ্চল তারাপুর ইউনিয়নের লাটশালা, খোর্দ্দা, চর তারাপুর, বেলকা ইউনিয়নের বেলকার চর, পঞ্চানন্দ, জিগাবাড়ী, বেলকা নবাবগঞ্জ, হরিপুর ইউনিয়নের লখিয়ারপাড়া, চরহরিপুর ও মাদারীপাড়া, পাড়াসাদুয়া, কাপাসিয়া ইউনিয়নের লালচামার, কাজিয়ার চর, বাদামের চরের ফসল কোথাও আংশিক, কোথাও পুরোপুরি ডুবে গেছে। চরাঞ্চল ছাড়াও উচু এলাকার অনেক জায়গায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে আমন ক্ষেত নিমজ্জিত হয়েছে। অতিবৃষ্টি আর বাতাসে কোথাও-কোথাও আমন ক্ষেত নুয়ে পড়েছে। ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে উঠতি সবজি ক্ষেতের। অনেক সবজি ক্ষেত নুয়ে পড়েছে মাটিতে। মরে যাচ্ছে মরিচ, মিষ্টি কুমড়া, করলাসহ বিভিন্ন সবজি ক্ষেত। চরাঞ্চলের কৃষকরা নির্ভরশীল বেশি সবজি ক্ষেতের উপর। ঘন ঘন বর্ষনে সবজি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় কৃষকের স্বপ্ন ভঙ্গ হতে চলেছে। এখন পরিবারের ভরণ-পোষণ চালানোর চিন্তায় চরের কৃষকরা দিশেহারা। এদিকে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে উচু এলাকার নি¤œাঞ্চলগুলোতে ঢুকে পড়ছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ জানান, এ পর্যন্ত নি¤œাঞ্চলের ৫ হাজার ৫’শ হেক্টর আমন ক্ষেত ও ৫৫ হেক্টর সবজি ক্ষেত পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন