ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বাস্তবায়ন হয়নি দুই বছরেও

স্বাস্থ্য খাত নিয়ে দুদকের সুপারিশ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

নির্দেশনা চেয়ে রিট

দুই বছর অতিক্রান্ত হলেও বাস্তবায়ন হয়নি স্বাস্থ্য খাত নিয়ে করা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সুপারিশ। প্রতিবেদনের আলোকে নেয়া হয়নি কোনো পদক্ষেপও। তাই সুপারিশ বাস্তবায়নে রিট করা হয়েছে। গতকাল রোববার সুপ্রিম কোর্ট বারের অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান এবং আমিনুর রহমান চৌধুরীর পক্ষে অ্যাডভোকেট এএম জামিউল হক ফয়সাল রিট করেন। রিটে দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান, স্বাস্থ্যসচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।

রিটে ২৫ দফা সুপারিশ বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্টদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- এই মর্মে রুল চাওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে সুপারিশ বাস্তবায়নের কেন নির্দেশনা দেয়া হবে না- জানতে চাওয়া হয়েছে। অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল জানান, বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম এবং বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের ডিভিশন বেঞ্চে রিটটির শুনানি হতে পারে। রিটে উল্লেখ করা হয়, ২০১৯ সালের ৩১ জানুয়ারি স্বাস্থ্যসেবা বিভাগে দুর্নীতির ১১টি খাত চিহ্নিত করে দুদক। সেই সঙ্গে দুর্নীতি রোধে ২৫ দফা সুপারিশ করা হয়। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ে প্রতিবেদন পেশ করা হয়। তাতে উল্লেখ করা হয়, স্বাস্থ্যক্ষেত্রে ক্রয়, নিয়োগ, পদোন্নতি, বদলি, পদায়ন, চিকিৎসা প্রদান, চিকিৎসায় ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি (সরঞ্জামাদি) ব্যবহার, ওষুধ সরবরাহসহ বিভিন্ন দুর্নীতির উৎস চিহ্নিত করা হয়।

এসব দুর্নীতি রোধে পেশকৃত সুপারিশে তথ্যবহুল সিটিজেন চার্টার প্রদর্শন করা, মালামাল রিসিভ কমিটিতে বিশেষজ্ঞ সংস্থার সদস্যদের অন্তর্ভুক্তকরণ, ওষুধ ও যন্ত্রপাতি কেনাকাটায় ইজিপি টেন্ডার প্রক্রিয়া অনুসরণ, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও বেসরকারি হাসপাতাল স্থাপন ও অনুমতি দেয়ার ক্ষেত্রে নিজস্ব স্থায়ী চিকিৎসক বা কর্মচারী ও কার্যনির্বাহী কমিটি ইত্যাদি রয়েছে কি-না এসব বিষয় নিশ্চিত হওয়া, কর্মকর্তা-কর্মচারী বদলির নীতিমালা প্রণয়ন, চকিৎসকদের ব্যবস্থাপত্রে ওষুধের নাম না লিখে জেনেরিক নাম লেখা বাধ্যতামূলক করা, ইন্টার্নশিপ এক বছর থেকে বাড়িয়ে ২ বছর করা এবং বর্ধিত এক বছর উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতালে থাকা বাধ্যতামূলক করা, চিকিৎসকদের (সরকারি/বেসরকারি) পদোন্নতির জন্য সরকারি চাকুরেদের ক্ষেত্রে পিএসসি এবং বেসরকারিদের ক্ষেত্রে মহাপরিচালক (স্বাস্থ্য) এবং পিএসসির প্রতিনিধির সমন্বয়ে গঠিত কমিটির মাধ্যমে সুপারিশ দেয়ার কথা উল্লেখ করা হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন