ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

সিরিয়ার যুদ্ধে ব্রিটিশ বাহিনীর গোপন তৎপরতা

আলেপ্পোর ২০ লাখ মানুষের জীবন বাঁচাতে জরুরি ভিত্তিতে

প্রকাশের সময় : ১২ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

যুদ্ধবিরতি কার্যকরের আহ্বান জাতিসংঘের
ইনকিলাব ডেস্ক : সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে যুক্তরাজ্যের বিশেষ বাহিনী তৎপর রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। বিবিসি জানিয়েছে, তাদের হাতে আসা বেশ কিছু ছবিতে প্রথমবারের মতো সিরিয়ার মাটিতে ব্রিটেনের বিশেষ বাহিনীর সেনাদের দেখা গেছে। প্রথমবারের মতো সেখানে কিছু যানবাহন দেখা গেছে, যা স্পষ্টতই স্বতন্ত্র। খোলা আকাশের নিচে থালাব টহলযান দেখা গেছে, এগুলো বন্ধুর প্রাকৃতিক পরিবেশে চলাচলের উপযুক্ত। এই যানগুলো ব্রিটিশ বিশেষ বাহিনীর সদস্যরা ব্যবহার করে। বিবিসির হাতে আসা এই ছবিগুলোতে সিরিয়ার মাটিতে প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ সেনাদের দেখা গেল।  
জুনে তোলা ছবিগুলো নিউ সিরিয়ান আর্মির আল তানাফ ঘাঁটিতে তথাকথিত ইসলামিক স্টেটের (আইএস) হামলার পর তোলা। ব্রিটিশ সেনারা ঘাঁটিটির নিরাপত্তা জোরদার করায় তৎপর রয়েছেন বলে মনে হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত অনুযায়ী, ব্রিটিশ সেনারা সেখানে হামলা প্রতিরোধ করার কাজে নিয়োজিত রয়েছেন। কিন্তু তাদের কাছে স্নাইপার রাইফেল, ভারী মেশিনগান এবং ট্যাঙ্ক-বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রও রয়েছে বলে জানা গেছে। আইএস জিহাদিরা ফের আক্রমণ করলে এসব অস্ত্রের সাহায্যে তারা মোক্ষম জবাব দেওয়া সম্ভব হবে। নিউ সিরিয়ান আর্মির এক মুখপাত্র ছবিগুলোর বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে না চাইলেও ব্রিটিশ সেনাদের সহায়তা নেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, আমাদের ব্রিটিশ ও আমেরিকান অংশীদারদের কাছ থেকে আমরা বিশেষ বাহিনীর প্রশিক্ষণ পাচ্ছি। পেন্টাগন থেকে আমরা অস্ত্রশস্ত্র ও রসদও পাচ্ছি, পাশাপশি বিমান হামলার সমর্থনও পাচ্ছি। আল তানাফ ঘাঁটিতে ব্রিটিশ সেনাদের দেখা যাচ্ছে, এমন ছবি দেখানো হলে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, তারা বিশেষ বাহিনীর অভিযান সংক্রান্ত বিষয়ে কোনো মন্তব্য করবে না।
এদিকে, আলেপ্পোয় জরুরি যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। বিদ্যুৎ ও বিশুদ্ধ পানির অভাবে দুর্দশায় পড়া ২০ লাখ মানুষের জীবন বাঁচাতে সিরিয়ার আলেপ্পোয় জরুরি ভিত্তিতে মানবিক যুদ্ধবিরতি আহ্বান করেছে জাতিসংঘ। জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, যদি দ্রুত বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ ব্যবস্থা সংস্কার করা না যায় তবে আলেপ্পোর কয়েক লাখ বেসামরিক নাগরিক শোচনীয় পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে, যা নিয়ে জাতিসংঘ খুবই উদ্বিগ্ন। জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী, গত মাসে ক্যাস্টেলো রোড অবরুদ্ধ হয়ে যাওয়ায় আলেপ্পোর পূর্বাঞ্চলে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় প্রায় তিন লাখ মানুষ আটকা পড়ে গেছে। ওদিকে, শনিবার বিদ্রোহীরা আলেপ্পোর পূর্বাঞ্চলের সরকার নিয়ন্ত্রিত একটি করিডোর পুনদখল করেছে। ওই করিডোর দিয়ে সরকার নিয়ন্ত্রিত আলেপ্পোর দক্ষিণাঞ্চল থেকে নগরীর সরকার নিয়ন্ত্রিত অন্যান্য অঞ্চলে রসদ সরবরাহ হত। রয়টার্স, বিবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন