রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

করোনামুক্ত ১৫ লাখ ৭১ হাজার মানুষ!

হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় সাফল্য

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০৫ এএম

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা

করোনা মহামারি চলাকালীন সময়ে ১৫ লাখ ৭১ হাজার মানুষ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা গ্রহণ করে সুস্থ থেকেছেন। এমনকি পুলিশ হাসপাতালে পিসিআর মেশিনে পজেটিভ এমন ১০০ জনকে হোমিওপ্যাথিক চেকিৎসা দেয়া হয়েছে। যাদের মধ্যে ৯৫ জন ইতিমধ্যে সুস্থ হওয়ে উঠেছেন। বাকী ৫ জনও সুস্থতার পথে। এমন দাবি করেছেন বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক বোর্ডের নেতৃবৃন্দ।

করোনা প্রতিরোধে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসার ভ‚মিকা ও উন্নয়ন’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় তারা এই দাবি করেন। গতকাল রাজধানীর একটি হোটেলে এই সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড। সভায় সভাপত্বি এবং মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করনে বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. দিলীপ কুমার রায়। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বার্ডের সদস্য ডা. শেখ মো ইফতেখার উদ্দিন, ডা. আশীষ শংকর নিয়োগী, ডা. কায়েম উদ্দিন, ডা. মো আতাহার আলী, ডা. মো. নজরুল ইসলাম সুমন, ডা. মো. ইসরাফিল হোসেন মুন্সি, ডা. মো. রাশেদুল হক, হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ শিক্ষক সমিতির সভাপতি ডা. কামারুজ্জামান ভূঁইঞা প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনা ভাইরাসসহ বিভিন্ন বৈশ্বিক মহামারী প্রতিরোধ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থাকে আরো জনপ্রিয় করে তুলতে এই বিষয়ে উচ্চতর গবেষণার জন্য জাতীয় রিসার্চ সেন্টার, উচ্চতর শিক্ষার জন্য হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এবং আধুনিক হোমিওপ্যাথিক হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা এখন সময়ের দাবি। ভারতে হোমিও চিকিৎসার প্রসারে একটি পৃথক মন্ত্রনালয় গড়ে তেলা হয়েছে। অথচ বাংলাদেশে রোগীদের রেখে চিকিৎসার করার মতো কোন হাসপাতাল বা মেডিকেল কলেজ নেই।

বের্ডের চেয়ারম্যান দিলীপ কুমার রায় বলেন, হোমিও চিকিৎসার প্রসারে ইতিমধ্যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে জাতীয় রিসার্চ সেন্টার এবং উচ্চশিক্ষার্থে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। সম্ভবনা থাকার পরেও বাংলাদেশে এই চিকিৎসা ব্যবস্থা অবহেলিতই থেকে গেছে। সহজলভ্যতা ও পাশ্বপ্রতিক্রিয়া না থাকায় দেশের ৩০ শতাংশ মানুষ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় আস্থা রাখেন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সুস্থ করে তুলতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা সফল হয়েছে।

এ সময় এক প্রশ্নর জবাবে নেতৃবৃন্দ বলেন, হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় কোন ধরনের স্টেরয়েড ব্যবহার করা হয় না। কোভিড নিয়ন্ত্রনে যেসব ওষুধ ব্যবহার করা হয়. সেগুলো মূলতো শরীরে ইমিউনিটি তৈরি করে, যা রোগ প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন