ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

রাহুলের পর এবার প্রিয়াঙ্কাকেও আটক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ অক্টোবর, ২০২০, ৯:১০ পিএম

ভারতের উত্তরপ্রদেশের হাথরাসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণে প্রাণ হারানো তরুণীর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার পথে আটক হয়েছেন দেশটির বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতা রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। আজ বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) দুপুরের দিকে দিল্লি-উত্তরপ্রদেশ মহাসড়কে নাটকীয় ঘটনার পর তাদের আটক করেছে রাজ্য পুলিশ। মহামারি করোনার মধ্যে জনসমাবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গের অভিযোগে বৃহস্পতিবার দিল্লি-উত্তরপ্রদেশ মহাসড়ক থেকে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে।

রাহুল গান্ধীর দাবি, পুলিশ তাকে ধাক্কা দিয়েছে এবং মহাসড়ক দিয়ে হাথরসের দিকে পদযাত্রার সময় প্রিয়াঙ্কাসহ তাদের দলের ওপর লাঠিপেটা করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।
গত মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) গণধর্ষণের শিকার ওই তরুণীর মৃত্যু হয়। রাতের আঁধারে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ ওই তরুণীর মরদেহ দাহ করতে বাধ্য করেছে, এমন একটি খবর ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

রাহুল-প্রিয়াঙ্কা আগেই ঘোষণা করেছিলেন হাথরসে যাওয়ার কথা। কিন্তু বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশে ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন।
আনন্দবাজার জানায়, তারপরও কর্মসূচি বাতিল করেননি কংগ্রেস নেতারা। রাহুল-প্রিয়াঙ্কা দলের গাড়ি আটকে দেয়া হলে উত্তরপ্রদেশ-দিল্লি মহাসড়ক ধরে হাঁটতে শুরু করেন তারা।

তাদের যেখানে আটকানো হয়, সেখান থেকে হাথরসের দূরত্ব প্রায় ১৪০ কিলোমিটার। সেখান থেকে কিছুদূর এগোনোর পরই তাদের আটকায় পুলিশ। শুরু হয় ধস্তাধস্তি। এসময় রাহুলকে গলাধাক্কা দিতেও দেখা যায় পুলিশকে। পরে তিনি গ্রেফতার হন।

এদিকে ভারতের কংগ্রেসের তরফ থেকে বলা হয়েছে, হাথরাসে দলিত মেয়ের উপর চরম অত্যাচার করে ধর্ষণ করা হলো, মেয়েটি মারা গেল। পুলিশ মাঝরাতে পরিবারকে আটকে রেখে নিজেরাই দেহ সৎকার করল। তারপরেও সেই পরিবারের কাছে কাউকে যেতে দেবে না? প্রতিবাদ করতে দেয়া হবে না? যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যে কোন আইন চালু আছে? কংগ্রেসের নেতা ও কর্মীরা এক্সপ্রেসওয়েতে বসে পড়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন।
কংগ্রেসের দাবি, অতীতেও রাহুল ও প্রিয়ঙ্কা এভাবে নির্যাতিতা বা নির্যাতিতের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাঁদের আটকে দেয়া হয়েছে। তাঁদের প্রতিবাদের অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে।

এর আগে, গত মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশের হাথরাসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার এক তরুণী রাজধানী নয়াদিল্লিতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। পরে উত্তর প্রদেশ পুলিশ পরিবারের সদস্যদের বিনা উপস্থিতিতে রাতের আঁধারে ওই তরুণীর মরদেহ পুড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় দেশ জুড়ে ব্যাপক ক্ষোভ তৈরি হয়। সূত্র : আনন্দবাজার

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন