ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ভারতের মহামারী বিজেপি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০৫ এএম

যোগী রাজ্যে হাথরাস গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনার প্রতিবাদে কলকাতার রাজপথে মিছিল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর সভামঞ্চ থেকে বিজেপিকে তিনি কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন। গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক বিভেদ তৈরির অভিযোগ করেন। কৃষি আইন নিয়েও কেন্দ্রীয় সরকারকে খোঁচা দেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান।

ধর্মীয় ভেদাভেদের প্রসঙ্গ তুলে বিজেপিকে খোঁচা দিয়ে মমতা বলেন, ‘মুসলমানদের জন্য কিছু করলে বলে মুসলিম তোয়াজ। হিন্দুরা বিপদে পড়লে বলো না তো মমতা তোমার পদবী কী? তোমরা কে সকলের পদবী নিয়ে কথা বলবে? আমার একটাই ধর্ম। আমার ধর্ম মানবতা। নমঃশূদ্রদের উপর সবচেয়ে বেশি আক্রমণ চলছে। সংখ্যালঘু ভাইবোনেরা ভয় কথা বলতে পারে না।’

দুর্গাপূজা নিয়েও গেরুয়া শিবিরকে খোঁচা দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘কয়েকদিন আগে বলেছিল মমতা দিদি দুর্গাপূজা, সরস্বতী পূজা, ল²ীপূজা কেন করতে দেন না? মমতাদি কখনও মন্দির, মসজিদ, গির্জা নিয়ে রাজনীতি করে না। সমস্ত মানুষের পাশে থাকা আমার সাংবিধানিক দায়িত্ব।’

কেন্দ্রের কৃষি আইন নিয়েও খোঁচা মেরে মমতা বলেন, ‘জোর করে কৃষি আইন পাশ করিয়েছে কেন্দ্র। সব কৃষকদের লুটে নেবে। আলু, ডালু, চাল, অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নয়। দুর্ভিক্ষ আসছে।’
বিজেপি জমানায় দেশে বিশৃঙ্খলার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে বলেও অভিযোগ রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের। তিনি বলেন, ‘কোনো গণতন্ত্র নেই দেশে। এজেন্সিরাজ চলছে। কারও জীবনের সুরক্ষা নেই। নিরাপত্তা নেই। ঘরে বসে ভাষণ দিচ্ছে। ভুয়া খবর এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় শুধু প্রচার হচ্ছে। দেশের সবচেয়ে বড় মহামারী বিজেপি। ৫-৬ বছর অনেক সহ্য করেছি।’ সূত্র : এনডিটিভি/ জি নিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন