ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সম্পাদকীয়

চিঠিপত্র

| প্রকাশের সময় : ৬ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০৮ এএম

ইটভাটাগুলোর গ্রাস থেকে কৃষিজমি রক্ষা করুন

বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে, সেই উন্নয়নে পিছিয়ে নেই প্রাকৃতিক সোন্দৌর্য্যে ভরপুর কুইন আইল্যান্ড দ্বীপজেলা ভোলা, সেই উন্নয়নের চাহিদা মিটাতে নিয়মিত বাড়ছে অপরিকল্পিত ইটভাটা আর উজার করে দেওয়া হচ্ছে কৃষিজমি। ইটভাটা যে এলাকাগুলোতে হচ্ছে সেখানে ক্ষমতাসীনদের ছত্রছায়ায় জোর করে ছিনিয়ে নেওয়া হচ্ছে কৃষিজমি এবং কমে যাচ্ছে আশেপাশের জমির উর্বরতা শক্তি, মানা হচ্চে না পরিবেশ অধিদপ্তরের নিয়মাবলী। ইটভাটা থেকে নির্গত ধোঁয়া পরিবেশ ও মানব স্বাস্থ্যের জন্যও হুমকিস্বরূপ। তাছাড়া ইটভাটাতে কাঠকে জ্বালানি হিসেবে ব্যাবহার করা, এই জ্বালানি কাঠ সংগ্রহের জন্য প্রতিনিয়ত ধ্বংস করা হচ্ছে আমাদের চারপাশের বনভূমি, যেটি পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। ইটভাটাগুলোতে কাজ করানো হচ্ছে শিশুশ্রমিক দিয়ে। সুতরাং কৃষিজমি, পরিবেশ ও মানব স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ইটভাটার অবাদ অপরিকল্পিত বিস্তার রোধ এবং নতুন সিজনে ইটভাটাগুলো যেন যথাযথ নিয়ম মেনে চলে সে জন্য যথাযথ কতৃপক্ষের নিকট বিশেষভাবে অনুরোধ করছি।
মো. রাকিবুল ইসলাম
ভোলা।


রাস্তার পাশ থেকে নির্মাণ সামগ্রী সরান
পরিবেশ দূষণের অনেকগুলো কারণের মধ্যে ধুলাবালির দ্বারা দূষিত হওয়াটাও একটা কারণ। যেটা প্রতিনিয়ত দেখা যাচ্ছে বা ঘটে চলছে। সাধারণত বিভিন্ন বাড়িওয়ালা এই কাজটা বেশি করছেন। বাড়ি তৈরির জন্য ইট, বালু এনে তারা ফেলে রাখেন রাস্তার পাশেই। যার কারণে বাতাসের সাথে এসব থেকে ধূলাবালু মিশে পরিবেশকে করছে দূষিত। অস্বস্তিতে পড়ছে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া সাধারণ জনগণ। যদিও সিটি করপোরেশন বা পৌরসভার লোকজন প্রতি রাতেই ঝাড়ু দিয়ে পরিবেশকে সুন্দর রাখার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কিন্তু তারপরও এসব নির্মাণ সামগ্রী সব কিছু ভন্ডুল করে দিচ্ছে। তাই, রাস্তার পাশে ইট, বালু খোলা অবস্থায় যাতে না রাখতে পারে তার জন্য যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন।
সাইফুল ইসলাম ইহান
শিক্ষার্থী, ঢাকা কলেজ।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন