ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

কোহলির ৯ হাজারী মালায় হারের কাঁটা

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০২ এএম

 বেশ ক’দিন ধরেই আইপিএল দেখছে রাবন্যার ম্যাচ। বিশেস করে শারজায়। তবে গতপরশু আরেক ভেন্যু দুবাইয়েও প্রথম ইনিংসে ছুটেছে রানের ফোয়ারা। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে নির্ধারিত ওভার শেষে ১৯৬ রান করে ৪ উইকেট হারানো দিল্লি ক্যাপিটালস। পৃথ্বি শ (৪২) আর শেখর ধাওয়ানের (৩২) ঝড় শুরুর পর শেষটা একই ভঙ্গিমায় করেন রিষভ পন্ত (৩৭) আর মার্কাস স্টয়নিস (৫৩*)। তবে জবাবে কোহলি ছাড়া বেঙ্গালুরুর কেউই মেলাতে পারেননি তাল। ঐ রান টপকাতে গিয়ে ১৩৭ রানেই থেমে যায় বেঙ্গালুরু। ৫৯ রানের হারের মালা গলায় পড়েন কোহলি।
তবে দলের হারের ম্যাচে ব্যক্তিগত একটি মাইলফলক স্পর্শ করলেন ভারত অধিনায়ক। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ভারতীয় ব্যাটসম্যান পেরিয়েছেন ৯ হাজার রান। তার চেয়ে কম ইনিংস খেলে এই মাইলফলক ছুঁতে পেরেছেন কেবল ক্রিস গেইল। এদিন দিল্লির বিপক্ষে ৪৩ রানের ইনিংসের পথে ৯ হাজার পেরিয়ে গেছেন কোহলি। ২৭১ ইনিংস লেগেছে তার এই উচ্চতায় পা রাখতে। ২৪৯ ইনিংসে ৯ হাজারে পৌঁছে এই রেকর্ডে দ্রæততম ব্যাটসম্যান গেইল। বেঙ্গালুরুতে দীর্ঘদিন একসঙ্গে খেলেছেন এই দুজন। এখন অবশ্য গেইল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবে, তবে এবারের আসরে এখনও মাঠে নামতে পারেননি তিনি। কোহলি এই অর্জনের পথে ছাড়িয়ে গেছেন তার এখনকার বেঙ্গালুরু সতীর্থ অ্যারন ফিঞ্চকে। ২৭৩ ইনিংস লেগেছিল ফিঞ্চের।
কোহলিকে দিয়ে ৯ হাজার ক্লাবের সদস্যসংখ্যা এখন ৭ জন। রানের তালিকায় কোহলির ঠিক ওপরে আছে ফিঞ্চ, তার ওপরে ডেভিড ওয়ার্নার। অবসরে যাওয়া ব্রেন্ডন ম্যাককালাম আছেন চারে, তিন নম্বরে শোয়েব মালিক। এই সংস্করণে ১০ হাজার রানের স্বাদ পেয়েছেন এখনও পর্যন্ত দুজন। ১০ হাজার ৩৭০ রান করেছেন কাইরন পোলার্ড। ২০ ওভারের ক্রিকেটে ব্যাটিংয়ের অবিসংবাদিত রাজা গেইল সবাইকে ছাড়িয়ে অনেকটা ওপরে ১৩ হাজার ২৯৬ রান নিয়ে।
এই ম্যাচে ঘটনা ঘটেছে আরেকটি। ক্রিকেট মানকাড আউট নিয়ে নৈতিক বিতর্ক থাকলেও নিয়মতান্ত্রিক এই আউটের পক্ষে বরাবরই সোচ্চার রবীচন্দ্রন অশ্বিন। বল ছাড়ার আগেই বেরিয়ে যাওয়া ব্যাটসম্যানদের কেন অবৈধ সুবিধা দেওয়া হবে, এই প্রশ্নও তোলেন তিনি। সেই অশ্বিনই মানকাড আউট না করে সুযোগ দিয়েছেন অ্যারন ফিঞ্চকে। রান তাড়ায় যাওয়া বেঙ্গালুরু ব্যাটসম্যান ফিঞ্চ নন স্ট্রাইকিং প্রান্তে বল ছাড়ার আগেই ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন। বল করতে থাকা অশ্বিনের সুযোগ ছিল তাকে আউট করে ফেরত পাঠানোর। তা না করে ফিঞ্চকে সুযোগ দেন ভারতীয় তারকা। তবে পরে টুইটারে জানিয়েছেন, এটা তার বছরের প্রথম ও আনুষ্ঠানিক শেষ হুঁশিয়ারি বার্তা, ‘আমি পরিষ্কার করতে চাই। এটা ২০২০ সালে আমার প্রথম ও শেষ হুঁশিয়ারি। আমি এখন আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে রাখলাম। পরে কেউ আমাকে দোষ দিবেন না। আর ফিঞ্চ আমার ভালো বন্ধু।’

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন