ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

শিশুকে নৌকায় বেঁধে ডুবিয়ে দেয় দুই কিশোর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১০:১৬ এএম

একটি শিশুকে নৌকায় বেঁধে ডুবিয়ে দেয় দুই কিশোর। সেই দুই কিশোরকে গ্রেপ্তার করা হলে এখন উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি শিশুর লাশ। শিশু নিহত না জীবত সেটাও জানা যায়নি। তবে এখনো নিখোঁজ রয়েছে।

মাগুরায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মুক্তিপণ না পাওয়ায় মাহিদ নামে ৭ বছরের এক শিশুকে নৌকায় বেঁধে পানিতে ডুবিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে এক কিশোরসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেছে আটক দুই কিশোর।

তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শনিবার (১০ অক্টোবর) পুলিশ নবগঙ্গা নদীতে ডুবুরি নামিয়ে তল্লাশি চালানো হয়। রাত পর্যন্ত শিশুটির কোনো সন্ধান না পাওয়ায় আজ রোববার সকাল থেকে নতুন করে সেখানে তল্লাশি চালানো হবে বলে জানা গেছে।

পুলিশ জানায়, গত ৭ অক্টোবর সকালে মাগুরার সদর উপজেলার বারাশিয়া গ্রামের মজিরুল মোল্যার শিশুপুত্র মাহিদ নিখোঁজ হয়। ওই দিনই শিশুটির বাবা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। কিন্তু পরদিন মোবাইল ফোনে ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়।

ফোনের সূত্র ধরে পুলিশ তদন্ত চালিয়ে ওই গ্রাম থেকেই অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া রোহান (১৪) নামে এক কিশোর এবং তার বাবা ইমরান আলি আসলামকে আটক করে।

পরে রোহান পুলিশের কাছে স্বীকার করে, সে হনুমান দেখতে যাওয়ার কথা বলে মাহিদকে বাড়ির সামনে থেকে নিয়ে যায়। এরপর তাকে নিয়ে যাওয়া হয় বাড়ির পাশে নবগঙ্গা নদীর ঘাটে। সেখানে আগে থেকে ভিড়িয়ে রাখা একটি তালের ডোঙ্গা নৌকায় বেঁধে জীবন্ত অবস্থায় শিশুটিকে পানিতে ডুবিয়ে দেয়া হয়।

পুলিশের হাতে আটক রোহান নিখোঁজ শিশুটির প্রতিবেশী। কিছুদিন আগে রোহানের বাবাকে শিশু নাহিদের বাবা অপমান করায় তার প্রতিশোধ নিতে সে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে বলে পুলিশকে জানিয়েছে। তবে তাদের মধ্যে পুরনো কোনো শত্রুতা নেই বলে জানিয়েছেন নিখোঁজ নাহিদের চাচা নিরো মোল্যা।

মাগুরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জয়নুল আবেদীন জানান, আটক রোহানের স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে রাত পর্যন্ত নদীতে তল্লাশি চালানোর পরও কোনো কূলকিনারা হয়নি। তবে রোববার সকাল থেকে আবারও তল্লাশি চালানো হবে বলে তিনি জানান। এ ঘটনায় মামলা হয়নি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Mohammad Imran Hossain ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১০:৩৬ এএম says : 0
This To Much
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন