ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সংবিধান অনুযায়ী সরকারকে সমর্থন করছে সেনা

জেনারেল বাজওয়া

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

পাকিস্তান সেনাবাহিনী সংবিধান ও আইনের গাইডলাইন অনুযায়ী সরকারকে সমর্থন করে চলেছে। শনিবার পাকিস্তান মিলিটারি একাডেমী কাকুলের ক্যাডেটদের পাসিং আউট প্যারেডে দেয়া ভাষনে এই কথা বলেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া।
বাজওয়া বলেন, দেশ যেভাবে সেনাবাহিনীকে সমর্থন করেছে, সেনাবাহিনীও সেভাবে, বিশেষ করে যুদ্ধের ময়দানে দেশকে রক্ষা করে চলেছে। সেনাবাহিনী সরকারকে সমর্থন অব্যাহত রাখবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সেনাবাহিনী আমাদের গণতান্ত্রিক মূল্যবোধকে শত্রুর কাছ থেকে রক্ষা করবে।’ তিনি জানান, পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠানগুলি আরও শক্তিশালী হয়ে উঠছে এবং তারা দেশের সেবায় একত্র হয়ে কাজ করছে। তিনি আরও বলেন, ‘অনেক দেশের মতো আমরাও অতীতে যুদ্ধ ও অর্থনৈতিক সমস্যার শিকার হয়েছি, কিন্তু আমরা ঘুরে দাঁড়িয়েছি। এখন আমাদের সত্যিকারের জাতীয় সম্ভাবনার সমন্বয় ও বাস্তবায়নের মধ্য দিয়েই আমরা উত্থিত হবো ও অগ্রগতি লাভ করব।’ তিনি বলেন, ‘আমরা পাকিস্তানিরা প্রমাণ করে দিয়েছি যে, আমরা যখন জাতীয় স্বার্থকে আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক এবং ব্যক্তিগত স্বার্থের উর্ধ্বে রাখি তখন আমরা অসম্ভবকে সম্ভব করতে পারি।’
ক্যাডেটদের উদ্দেশ্যে বাজওয়া বলেন, তারা এমন একটি সেনাবাহিনীতে যোগ দিচ্ছে, যারা ‘সন্ত্রাসবাদকে শুধু পরাজিতই করেনি, ২০১৯ সালের ফেব্রæয়ারী মাসে পাঁচগুণ বড় সেনাবাহিনীও হারিয়ে দিয়েছে।’ সেনাবাহিনীতে নিয়োগপ্রাপ্তদের বৈচিত্র্য সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান সেনাবাহিনী জাতির সত্যিকারের প্রতিনিধিত্ব করে। তিনি ক্যাডেটদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, তারা পাকিস্তানের সমৃদ্ধি ও সুরক্ষার জন্য দায়বদ্ধ হবে। তিনি এটিকে ‘ভালবাসা ও দায়বদ্ধতার এক অনন্য বোঝা’ হিসাবে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, ‘আমি এটিকে একটি বড় সম্মান হিসাবে গণ্য করি যে, আমরা বিশ্বস্ত ও জবাবদিহি প্রতিষ্ঠান হিসাবে জাতির সামনে দাঁড়িয়ে আছি।’ তার কথায়, ‘আপনাকে অবশ্যই বুঝতে হবে যে, শান্তি নিজের মধ্যেই শেষ নয়। আমাদের দেশ যেখান থেকে অর্থনৈতিক সার্বভৌমত্ব এবং আদর্শিক পরিপক্বতার উচ্চতায় উঠে যাবে, সেইভাবে সত্যিকারের পাকিস্তান হয়ে উঠবে, সেই ভিত্তিকে রক্ষা করতে না পারলে আমাদের কয়েক দশকের প্রচেষ্টা নষ্ট হবে।’ তিনি আরও বলেন, পাকিস্তানের শত্রুরা ‘হতাশ’ বোধ করছে কারণ, তারা ধ্বংস ও ধ্বংসের কারণ হতে ব্যর্থ হয়েছিল। এই যুদ্ধটি যুদ্ধের ময়দানে নয়, মনে মনে লড়াই করা। এই নতুন যুদ্ধে সর্বস্তরের নেতৃত্বই লক্ষ্য। হাইব্রিড যুদ্ধের উদ্দেশ্য পাকিস্তানের আশাবোধকে লক্ষ্য করা এবং ‘এখানে ভালো কিছু হবে না’ ধারণাটি জোড়দার করা। আমি আপনাদেরকে বলছি, এখানে সবকিছুই ভাল হবে।
তিনি ক্যাডেটদের সত্যিকারের সমালোচনা এবং হাইব্রিড যুদ্ধের মধ্যে বিভ্রান্ত না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, ‘হাইব্রিড থেকে আন্তরিক সমালোচনাকে বিভ্রান্ত করবেন না। বেশিরভাগ আহ্বান আপনার কাছে প্রেম, দেশপ্রেম এবং বিশ্বাসের জায়গা থেকে আসতে পারে এবং সেজন্য অবশ্যই মনোযোগ দেয়া উচিত। তিনি বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই আমাদের লোকদের কথা শুনতে হবে এবং যেখানে প্রয়োজন সেখানে সংশোধন করতে হবে। এই কণ্ঠস্বর প্রমাণ দেয় যে আমরা বেঁচে আছি এবং পাশাপাশি আমরা একটি জাতি যে সঠিক পথে এগিয়ে চলেছে।’ জেনারেল বাজওয়া নিশ্চিত করেন যে, সেনাবাহিনীর পদক্ষেপগুলি সংবিধান এবং পাকিস্তানের জাতীয় স্বার্থ দ্বারা পরিচালিত হয়েছে এবং যোগ করেন যে, দেশটি ‘সামরিক দৃষ্টিকোণ’ থেকে নিরাপদ রয়েছে। সূত্র : ডন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
সোয়েব আহমেদ ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৩৫ এএম says : 0
আপনাদের সমর্থনেই তো ইমরান খান ক্ষমতায় আসছে!!!
Total Reply(0)
মিরাজ আলী ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৩৫ এএম says : 0
একদম সঠিক কথা।
Total Reply(0)
চৌকিদার মামুন ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৩৬ এএম says : 0
আমি মনে করি ইমরান খানকে আপনাদের সমর্থন করা উচিত।
Total Reply(0)
জীবনের গল্পটা অসাধারন ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৩৭ এএম says : 0
এটা কে না জানে যে- ইমরান খান সরকারকে আপনারাই ক্ষমতায় বসিয়েছেন। তবে ইমরানের সমর্থনও কম না।
Total Reply(0)
বদরুল সজিব ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৩৭ এএম says : 0
ইমরান খানের মতো রাষ্ট্র নায়ক এখন মুসলিম বিশ্বে হাতে গোনা কয়েকটা আছে। আপনারা তাকেই সমর্থন করুন।
Total Reply(0)
মুক্তিকামী জনতা ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৩৮ এএম says : 0
পাকিস্তান সেনাবাহিনীর জন্য শুভ কামনা রইলো। আপনারা এগিয়ে যান।
Total Reply(0)
মোঃ দুলাল মিয়া ১৪ অক্টোবর, ২০২০, ২:৫২ পিএম says : 0
আমি মনে করি ইমরান খানকে সহযোগিতা করা পয়োজন।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন