ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

অত্যন্ত গোপনে চলছে চীন-ভারত আলোচনা

আগে থেকে কিছু অনুমান সম্ভব নয় : জয়শঙ্কর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০৫ এএম

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বৃহস্পতিবার বলেছেন, চীন-ভারত সীমান্ত বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য আলোচনা চালাচ্ছে দুই দেশ এবং এতে চূড়ান্ত গোপনীয়তা বজায় রাখছে দুই দেশই। অনলাইন সম্মেলনের সময় চীনের সঙ্গে চলা এই আলোচনার ফলাফল সম্পর্কে বিশেষভাবে জিজ্ঞাসা করা হলে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আলোচনা চলছে। ব্লুমবার্গ ইন্ডিয়া ইকোনমিক ফোরামের সীমান্ত পরিস্থিতি সম্পর্কে স্পষ্টভাবে জানতে চাইলে জয়শঙ্কর বলেন, আলোচনা চলছে, দুই দেশের মধ্যে এটি একটি গোপন বিষয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সীমান্ত সমস্যার আলোচনা এবং তার ফলাফল নিয়ে প্রকাশ্যে খুব বেশি কিছু বলতে পারব না। আগে থেকে অবশ্যই এই আলোচনার পরিণতি নিয়ে কিছু অনুমান করতে চাই না। তিব্বতের পরিস্থিতি এবং বাস্তবে নিয়ন্ত্রণ রেখার উন্নয়ন সম্পর্কে জানতে চাইলে জয়শঙ্কর বলেন, আমি মনে করি না যে আমাদের অন্যান্য বিষয়গুলি বিবেচনা করা উচিত, যার স্পষ্টতই লাদাখের বর্তমান পরিস্থিতির সঙ্গে কোন সম্পর্ক নেই।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সীমান্তে শান্তি বজায় রাখতে ১৯৯৩ সাল থেকে বেশ কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষরের পর থেকে ভারত ও চীনের মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে। তিনি বলেন, গত ৩০ বছর ধরে আমরা সীমান্তে শান্তি-ভিত্তিক সম্পর্ক গড়ে তুলেছি। সীমান্তে শান্তি রক্ষার্থে যে সব চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে, তা যদি না মেনে চলা হয় এবং সীমান্তে শান্তির পরিবেশ নিশ্চিত না করে দুই দেশ, তাহলে সেটাই হবে সমস্যার প্রথম কারণ। মত জয়শঙ্করের। এর আগে বৃহস্পতিবার ভারতের পক্ষ থেকে স্পষ্ট করে দেয়া হয় যে, জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ দেশের একটি অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ ছিল এবং আগামিদিনেও থাকবে। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার (এলএসি) ভারতের দিকে পরিকাঠামোগত উন্নয়নের বিষয়ে চীনের আপত্তির পাল্টা দিয়েছে ভারত। বলা হয়েছে যে, অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মন্তব্য করার মত চীনের কোনও অধিকার নেই।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানান যে, এই বিষয়ে চীন প্রতিক্রিয়া দিয়েছে এবং তারা লাদাখ এবং অরুণাচল প্রদেশকে ভারতের অঙ্গ হিসেবে মনে করে না। শ্রীবাস্তব একটি সংবাদিক সম্মেলনে বলেন, এ নিয়ে আমাদের অবস্থান বরাবরই পরিষ্কার ও অভিন্ন। জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ ভারতের একটি অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ ছিল এবং থাকবে। চীনের ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মন্তব্য করার কোনও অধিকার নেই। আমরা আশা করি যে দেশের ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মন্তব্য করবে না চীন। লক্ষণীয় বিষয়, প্রায় পাঁচ মাস ধরে পূর্ব লাদাখে ভারত ও চীনের মধ্যে সামরিক স্থগিতাদেশ রয়েছে। সূত্র : নিউজ১৮।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
Madan Sarker ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৫:১৩ এএম says : 0
চীন আক্রমন করলে কোন পথে ভারতীয় সেনা পালাবে তার ম্যাপিং ইতোমধ্যে হয়ে গেছে। কাজটা করতে খুব ঝামেলা হয়েছে। কারন পশ্চিমে পাকিস্তান। ওদিকে গেলে পাকিস্তানীরা প্যান্ট খুলে নেবে। অবশ্য ওরা খুবই অতিথি পরায়ন। মারার পরে চা খেতে দেয়। বাংলাদেশে যাওয়া যাবে না, কারন ওরাও চাঞ্চ পেলে মারে। নেপাল ভুটানও খুন্তি কুড়াল নিয়ে বসে আছে। বাকি রইলো মায়ানমার। এটা আবার চীনের ঘাটি। ওদিকে গেলে আর রক্ষে নেই। একমাত্র জায়গা আন্দামান। ওটাই শেষ ভরসা।
Total Reply(0)
Zakaria Jack ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৫:১৩ এএম says : 0
ইন্ডিয়া পারে শুধু বাংলাদেশের সাথে তাও কিছু দালালের জন্য। আর না হলে চীনের একটি পশম ছেরার যোগ্যতা নেই ওদের। আছে, বলিউড সিনেমায়????
Total Reply(0)
Imran Khan ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৫:১৩ এএম says : 0
ভারত পা ধরে কাদতে কাদতে শেষ পর্যন্ত চীনের মন গলিয়ে পেলল
Total Reply(0)
Md Masum Bilah ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৫:১৪ এএম says : 0
সেটা আমরাও যানি দাদাবাবুরা কোনদিনও চীনের সাথে যুদ্ধে জড়াবে না। কারন কোন দেশ চায়না তার দেশের অস্তিত্ব বিপন্ন করতে। তারপরও ভালো লাগছে এই কারনে জে দাদাবাবুরা পায়ে ধরে হলেও একটি সমাধানে আসতে ...
Total Reply(0)
তাপস বড়ুয়া ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৫:১৪ এএম says : 0
যা দখল করার তা চীন দখল করে ফেলেছে। এবার... ফালাও
Total Reply(0)
ফজলে রাব্বী ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৫:১৪ এএম says : 0
পাড়ার বাচ্চাদের মত অবস্থা। দুই দিন পর পর মারামারি করে আর বড়ভাই(রাশিয়া ) এসে মিমাংসা করে!
Total Reply(0)
Md Akram Babu ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৫:১৪ এএম says : 0
দুই দেশের উচিত হবে সংঘাতপূর্ণ এলাকায় নিজেদের সৌন্যের অস্ত্র ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আনা ।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন