ঢাকা রোববার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

পটুয়াখালীর রাঙ্গাঁবালীতে গৃহবধূকে হাত পা বেধে গণধর্ষনের অভিযোগ, আটক-২

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০২০, ৩:০৬ পিএম

পূর্ব বিরোধের জেরে পটুয়াখালীর রাঙ্গাঁবালী উপজেলার চর মোন্তাজ ইউনিয়নের চরমার্গারেটের ধারভাঙ্গা গ্রামে এক গৃহবধূকে হাত পা বেধে গণধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।পুলিশ এঘটনায় আজ সকালে এ ঘটনায় একই এলাকার শাকিব (২২) ও দুপূর ১২ টার দিকে পটুয়াখালী ও ভোলা জেলার সীমান্তবর্তী চর চর কুকরীমুকরী থেকে আলহাদী (২৫) নামে এক যুবককে আটক করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাঙ্গাবালীর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আহমেদ। গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ওই গ্রহবধূর বসতঘরে এ ঘটনা ঘটে। রাতেই মরিয়ম বেগম (৩০) কে উদ্ধার করে গলাচিপা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
মরিয়ম বেগমের স¦ামী কৃষক জলিল সরদার আজ দুপূরে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে সাংবাদিকদের বলেন,গতকাল সন্ধ্যায় আমি স্লুইজ বাজারে যাই।রাত সাড়ে আটটার দিকে তার বাড়ীর মোবাইল থেকে তাকে একটি ফোন দিয়ে দার স্ত্রী চিৎকার করেন। পরবর্তীতে তার ঐ বাড়ীর মোবাইলটি বন্ধ পান।তিনি আতংকিত হয়ে বাড়ীর দিকে চলে আসেন,এসে তিনি স্ত্রীকে ঘরের একটি টেবিলের সাথে ওড়না দিয়ে চিৎকরে শোয়ানো অবস্থায় বিধ্বস্থ অবস্থায় দেখতে পান। এ সময় তিনি স্থানীয় লোকজন সহ চৌকিদারকে খবর দেন।তিনি অভিযোগ করেন আমার স্ত্রীকে শাকিব, আরিফ ও আলহাদি মিলে ঘরের ভিতর বেধে রেখে ধর্ষন করেছে। এ সময় তারা বাড়ী থেকে নগদ টাকা ও স্বর্ণলংকার নিয়ে যান।এ সময় তার ৯ বছরের ছেলে ও ৭ বছরের মেয়ে শিশু সন্তান ঘুমানো রাতেই তাকে চিকিৎসার জন্য গলাচিপা হাসপাতালে চিকিৎসার পর ভোর রাতে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করি।জলিল সর্দার জানান,তার সাথে শাকিলের পরিবারের সাথে পূর্ব বিরোধ আছে।

রাঙ্গাঁবালী থানার ওসি আলী আহমেদ বলেন, ঘটনাস্থলে আছি। মরিয়ম বেগমকে মারধর করা হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে নিশ্চিত হতে পেরেছি। অভিযোগ এখনও পাইনি। তবে ভিকটিমের পরীক্ষার পর বলা যাবে আসলে ঘটনাটি ধর্ষন না কি মারধরের ঘটনা।
এদিকে মরিয়ম বেগমের পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে আজ দুপূরে মেডিক্যাল চেকআপ ও আলামত সংগ্রহ করে ফরেনসিক টেস্টের জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক সিনিয়র কনসালটেন্ট গাইনী ডা: ফেরদৌসি আখতার।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন