ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

জার্মানির মসজিদে পুলিশি অভিযানের নিন্দা এরদোগানের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০২০, ৪:৩০ পিএম

মুসলিম নির্যাতনের বিরুদ্ধে বরাবরই সোচ্চার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেপ এরদোগান। এবার জার্মানির বার্লিনে একটি মসজিদে পুলিশি তল্লাশির নিন্দা জানিয়ে শুক্রবার তিনি বলেছেন, বর্ণবাদ ও ইসলামবিরোধী মনোভাব থেকে এসব কাজ করা হয়েছে।

এক টুইট বার্তায় এরদোগান বলেছেন, ‘বার্লিনের মেভলানা মসজিদে বুধবার ফজরের নামাজ আদায় করার সময় সেখানে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই আমি। বর্ণবাদ এবং ইসলাম বিরোধী নীতি দ্বারা এ অভিযান পরিচালিত হয়েছে বলে স্পষ্ট। এটা ইউরোপকে মধ্যযুগের অন্ধকারের কাছাকাছি নিয়ে গেছে। সেখানে ধর্মবিশ্বাসের স্বাধীনতাকে পুরোপুরি অবজ্ঞা করা হচ্ছে।’

এর আগে তিনি ফরাসি প্রেসিডেন্টের মানসিক পরীক্ষা করার আহ্বান জানান। কারণ, তার দৃষ্টিতে তিনি ইসলামের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। মত প্রকাশের স্বাধীনতার অংশ হিসেবে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্র ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছেন। তিনি আরো জোর দিয়ে বলেন, ‘বহু বছর ধরে ইউরোপকে দেখা হয়েছে গণতন্ত্র, মানবাধিকার এবং স্বাধীনতার ভূমি হিসেবে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলো, তারা এখন এমন একটি ‘কাঠামোতে পরিণত হয়েছে, যারা ভিন্ন মতের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।’ এরদোগান আরো বলেছেন, পবিত্র উপাসনালয়ে নৃশংসভাবে মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করার ক্ষেত্রে কোনো সাফাই গাওয়া যায় না বলে আমি বিশ্বাস করি। তুরস্ক বর্ণবাদ, ধর্মভীতি এবং বিশ্বের যেকোনো স্থানে ইসলামের বিরোধিতার নিন্দা জানায়।’

প্রসঙ্গত, জার্মানির বার্লিনে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত ভর্তুকি নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে বিভিন্ন স্থানে তদন্ত করছে বার্লিন কর্তৃপক্ষ। এর অংশ হিসেবে বুধবার জার্মান পুলিশ মেভলানা মসজিদ ও বেশ কিছু স্থাপনায় অভিযান চালায়। ভর্তুকি নিয়ে প্রতারণার অভিযোগ একই দিন প্রত্যাখ্যান করেছে ওই মসজিদ কর্তৃপক্ষ এবং মসজিদের ভিতরে পুলিশি তল্লাশির সমালোচনা করেছে। বুধবার মুখোশ ও পায়ে বুট পরা প্রায় ১৫০ জন পুলিশ সদস্য ফজরের নামাজের সময় কার্পেট বিছানো ওই মসজিদের ভিতরে আকস্মিক প্রবেশ করে। তারা সেখান থেকে ৭ হাজার ইউরো নগদ অর্থ উদ্ধার করে। এ ছাড়া উদ্ধার করে ডাটা সংরক্ষণকারী বিভিন্ন ডিভাইস, কম্পিউটার, ফাইল। বুধবার টুইটারে এ তথ্য দিয়েছেন বার্লিনের পাবলিক প্রসিকিউটর। রিপোর্টে আরো বলা হয়েছে, তিনজন সন্দেহভাজনের সন্ধানে ওই তল্লাশি চালানো হয়েছে। অভিযোগ আছে ওই তিনজন ব্যক্তি অন্যায্য উপায়ে করোনাভাইরাস বিষয়ে তাৎক্ষণিক সহায়তার জন্য আবেদন করেছিলেন।

তবে টুইটারে পুলিশের এমন অভিযানের সমালোচনা করেছেন জার্মান সাংবাদিক ফাবিয়ান গোল্ডম্যান। তিনি বলেছেন, কামএক্স-এর ৫৫০০ কোটি ইউরো আয়কর ফাঁকির ঘটনা তল্লাশিতে মাত্র ১৫ জন পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছিল। অন্যদিকে ওই মসজিদে মাত্র ৭ হাজার ইউরো উদ্ধারের জন্য তার চেয়ে ১০ গুণ পুলিশ মোতায়েন করতে হয়েছে। সূত্র: ডেইলি সাবাহ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Mnasiruddin shah ২৫ অক্টোবর, ২০২০, ৫:২৯ পিএম says : 0
ওআইসি ইসলামী শক্তিশালী সংগঠনের প্রতিক্রিয়া নাই। নেই সৌদি আরবের প্রতিবাদ। বিশ্বের মুসলিম দেশের রাষ্ট্রের রাজা বাদশাহ আমেরিকার ভয়ে চুপ গদি বাচাতে। সমগ্র বিশ্বের দুইশত কোটি মুসলমানদের জীবনের চায়তে প্রীয় নবী(সাঃ)ছবি চিত্র প্রকাশের মাধ্যমে সারাবিশ্বে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ ঘৃনা জানাচ্ছেন মুসলমানরা কিয়ামত অতি সন্নিকটে হয়তো। আল্লাহ্ ভাল জানেন। মানবতার মুক্তির দিশারী সমগ্র জাহানের রহমত আল্লাহর নবী(সাঃ) শানেমানে নাস্তিক কৃষ্টানদের গভীর ষড়যন্ত্রের জওয়াব পাবে আল্লাহর পক্ষ হতে । মহামারী গজব আজাবেরআক্রান্ত মৃত্যুর মাঝে এদের শিক্ষা হচ্ছে না। অবিশপ্ত এই শয়তানের বিরুদ্ধে আল্লাহর সাহায্য কামনা করছি মুসলিম বিশ্বের নেতা এরদোয়ান কে আল্লাহ্ আরও শক্তিশালী করুক। আমিন
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন