ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দীর্ঘস্থায়ী মৌসুমী বায়ু ক্রমেই বিদায় নিচ্ছে

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৬ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

দুর্বল লঘুচাপটি কেটে যাচ্ছে। বৃষ্টিবাহী দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের একাংশ থেকে বিদায় নিয়েছে। অন্যান্য অঞ্চলে কম সক্রিয়। এ অবস্থায় বৃষ্টিপাতের আবহ কেটে গিয়ে কার্তিক মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ তথা পঞ্জিকার হিসাবে হেমন্ত ঋতুর প্রথম দিকে আবহাওয়ায় স্বাভাবিক শুষ্কতা ফিরে আসছে। শেষ রাতে হালকা শীত পড়ছে। ভোরে পড়ছে হালকা কুয়াশা।

তবে বঙ্গোপসাগরে আবারও লঘুচাপের ঘনঘটা তৈরি হলে আবহাওয়া পাল্টে যেতে পারে। চলতি অক্টোবর ও আসছে নভেম্বর মাসে বঙ্গোপসাগরে তিন-চারটি লঘুচাপ-নিম্নচাপ এবং এরমধ্য থেকে দুয়েকটি ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হতে পারে বলে দীর্ঘমেয়াদী আবহাওয়া পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে।
এদিকে গতকাল দেশের অধিকাংশ স্থানে ছিটেফোঁটাও বৃষ্টিপাত হয়নি। দুয়েক জায়গায় বিক্ষিপ্ত হালকা বৃষ্টি ঝরে। সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয় রংপুর বিভাগের রাজারহাটে ১৬ মিলিমিটার। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল মংলায় ৩৩ এবং সর্বনিম্ন টাঙ্গাইল ও রাজারহাটে ২২.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
আজ সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে জানা গেছে, রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অধিকাংশ এলাকায় আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হ্রাস পেতে পারে। পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টায় আবহাওয়ার কিছুটা পরিবর্তন হতে পারে।

এদিকে আবহাওয়া বিভাগ জানায়, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল থেকে বিদায় নিয়েছে। দেশের অবশিষ্ট অঞ্চল থেকে মৌসুমী বায়ু বিদায়ের আবহাওয়াগত অনুক‚ল পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বাংলাদেশের আংশিক এলাকায় মৌসুমী বায়ু কম সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দুর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

প্রসঙ্গত আবহাওয়া বিভাগের দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাসে চলতি অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহের মধ্যেই মৌসুমী বায়ু বিদায় নেয়ার কথা জানানো হয়। বাস্তবে এ বছর মৌসুমী বায়ু স্মরণকালের মধ্যে দীর্ঘস্থায়ী অবস্থান নিয়ে বাংলাদেশের উপর জেঁকে বসে। এর ফলে বৃষ্টিপাত হয়েছে বেশি, গত সেপ্টেম্বর মাসে দেশে সার্বিক গড় বৃষ্টি স্বাভাবিকের চেয়ে ৩৩ শতাংশ বেশি হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন