ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

রূপগঞ্জ ইছাপুরা বাজার সড়ক খানা-খন্দে চলাচলের অযোগ্য

মো. খলিল সিকদার, রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) থেকে : | প্রকাশের সময় : ২৮ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের ইছাপুড়া এলাকার ১ কিলোমিটার সড়কের বেহাল দশা। বছরের পর বছর ভোগান্তি পোহাচ্ছেন স্থানীয়রা। খানা-খন্দে ভরপুর সড়কটি চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সরেজমিনে ঘুরে জানা গেছে, উপজেলার রূগপঞ্জ ইউনিয়নের ইছাপুড়া বাজার থেকে ইউসূফগঞ্জ স্কুল পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তাটি খানা-খন্দে ভরপুর। রাস্তাটির প্রায় ৯০ ভাগ অংশে বিটুমিনের কোন চিহ্ন নেই। রাস্তার মাঝে বড় গর্তে সৃষ্টি হয়েছে। শুষ্ক মৌসুমে রাস্তাটি ধুলার রাজ্যে পরিণত হয় আর বর্ষা মৌসুমে এটি ডোবায় পরিণত হয়। এতে সাধারণ মানুষ ভোগান্তি পোহাচ্ছে বছরের পর বছর।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় এক যুগ ধরে এ রাস্তাটির বেহাল দশা। ইছাপুরা বাজারে সপ্তাহে একদিন হাট বসে। হাটের দিনে এখানে প্রায় ১০ হাজার লোকের সমাগম হয় বলে জানা যায়। রাস্তার বেহাল দশার কারণে হাটে লোক সমাগম অনেক কম হয়। এ সকল কারণে হাটে ক্রেতার সংখ্যাও দিনদিন কমে যাচ্ছে। এতে বিপুল পরিমাণ লোকসানের মুখে পড়ছে ব্যবসায়ীরা। বর্ষা মৌসুমে রাস্তাটি দিয়ে চলাচলে ভোগান্তি পোহাতে হয়।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, বেশ কয়েকবার জনপ্রতিনিধিরা আশ্বাস দিলেও রাস্তাটি সংস্কার করা হয়নি। রাস্তাটি সংস্কার করলে প্রায় ৫ হাজার মানুষের ভোগান্তির অবসান হবে। বেশ কয়েকবার স্থানীয়রা জনপ্রতিনিধিদের কাছে সংস্কারের জন্য আবেদন করলেও কোন সুফল পাননি বলে জানান তারা।

ইজিবাইক চালক আলমগীর বলেন, রাস্তার বেহাল দশার কারণে গাড়ি চালানো যায় না। রাস্তার খানা-খন্দের কারণে অনেক সময় ইজিবাইক উল্টে যায়। বেশ কয়েকবার ইজিবাইক উল্টে বেশ কয়েকজন যাত্রী আহত হয়। বেহাল দশার কারণে এ পর্যন্ত প্রায় অর্ধশতাধিক যাত্রী আহত হয়েছে।

আল-আমিন নামে এক পথচারী জানান, বৃষ্টির দিনে রাস্তাটি দিয়ে হাটা দুষ্কর হয়ে পড়ে। পথচারীদের ভোগান্তি কমাতে হলে রাস্তাটির দ্রæত সংস্কার করা জরুরি। এছাড়া ইছাপুরা বাজারে আসা সাধারণ মানুষকে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

ইছাপুরা বাজার কমিটির সভাপতি রোমান মোল্লা বলেন, রাস্তাটির দীর্ঘদিন ধরে বেহাল দশার কারণে এখানে বাজার করতে আসা ক্রেতাদের ভোগান্তি পোহাতে হয়। এ কারণে অনেক ক্রেতাই এখানে বাজার করতে আগ্রহ হারাচ্ছেন। এমন চলতে থাকলে ঐতিহ্যবাহী ইছাপুরা বাজার বিলীন হয়ে যাবে। তাই পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। তিনি যেন খুব শিগগিরই রাস্তাটি সংস্কারের ব্যবস্থা করে দেন। এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন ভুইয়া বলেন, ইছাপুরা বাজারের রাস্তাটি খুব শিগগিরই সংস্কার করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন