ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

জম্মু ও কাশ্মীরকে বিক্রি করে দিচ্ছে : ওমর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

বাইরের মানুষদেরকে জম্মু ও কাশ্মীরের জমি কেনার অধিকার দিয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু ও কাশ্মীরের ভ‚মি আইন সংস্কার করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই এই সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করেছেন সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ওমর আব্দুল্লাহ। তিনি বলেছেন, সরকার ‘জম্মু ও কাশ্মীরকে বিক্রি করে দিচ্ছে’ এবং ‘স্থানীয় অধিবাসী হওয়ার যে সামান্য শর্ত ছিল’, সেটিও তুলে দেয়া হলো এখন। ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার এক বছরেরও বেশি সময় পরে এসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভ‚মি আইনে বেশ কিছু পরিবর্তন আনলো। এর ফলে ওই অঞ্চলের কৃষি জমিতে এখন সরকারী কাজের অবকাঠামো নির্মাণ করা যাবে। সা¤প্রতিক সংশোধনীতে জম্মু অ্যাÐ কাশ্মীর ডেভলপমেন্ট অ্যাক্টের ১৭ ধারা থেকে ‘রাজ্যের স্থায়ী বাসিন্দা’ শব্দটি বাদ দেয়া হয়েছে। ফলে এই অঞ্চলের বাইরের বাসিন্দারাও এখন এখানে জমি কিনতে পারবেন। আবার কৃষি জমিকে অকৃষি সংশ্লিষ্ট কাজে, যেমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা স্বাস্থ্য কেন্দ্র নির্মাণের জন্যও ব্যবহার করার বিধান করা হয়েছে। নতুন ভ‚মি আইনের কঠোর সমালোচনা করে আব্দুল্লাহ বলেন, নতুন যে জেকে ডেভেলপমেন্ট অ্যাক্ট করা হয়েছে, যেটা এই মুহ‚র্ত থেকেই কার্যকরী হবে, সেটা ‘জম্মু, কাশ্মীর ও লাদাখের জনগণের স্বার্থের সম্প‚র্ণ বিরোধী’। নতুন আইনের ব্যাপারে তিনি বলেন, “স্থানীয় অধিবাসীর সনদ ব্যবহারের যে সামান্য প্রতীকী ব্যবস্থা ছিল, সেটি তুলে দেয়ার মাধ্যমে অকৃষি জমি কেনাকে সহজ করে দেয়া হলো। জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের মানুষের কাছে এই নতুন আইন কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়”। বিজেপি সুবিধাবাদী রাজনীতি করছে, এমন অভিযোগ করে ওমর বলেন, সংশোধিত যে নতুন ভ‚মি আইনের নোটিশ জারি করা হয়েছে, এর মাধ্যমে তাদের সস্তা রাজনীতি আর প্রতারণার চিত্রটি ফুটে উঠেছে। তিনি বলেন, “কৌতুহলের ব্যাপার হলো কেন্দ্র লাদাখের নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করেছে এবং বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার পর এখন তারা লাদাখকেও বিক্রি করতে বসেছে। বিজেপির প্রতিশ্রুতিকে বিশ্বাস করার কারণে লাদাখিরা এই প্রতিদান পাচ্ছে”। জম্মু ও কাশ্মীরের সাতটি প্রধান রাজনৈতিক দলকে নিয়ে গঠিত পিপলস অ্যালায়েন্স ফর গুপকার ডিক্ল্যারেশান (পিএজিডি) ভ‚মি আইনে পরিবর্তনের নিন্দা জানিয়েছে এবং সব ফ্রন্টে এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছে। পিএজিডির ভাইস প্রেসিডেন্ট পিডিপি প্রেসিডেন্ট মেহবুবা মুফতি বলেছেন, জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষদেরকে বঞ্চিত করতেই এটা করা হয়েছে। তিনি টুইটে লিখেছেন, “জম্মু ও কাশ্মীরের জনগণের ক্ষমতা কেড়ে নিতে এবং তাদেরকে বঞ্চিত করার অশুভ পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই আরেকটি পদক্ষেপ নিলো ভারত সরকার। প্রথমে ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করা হলো, এবং আমাদের প্রাকৃতিক সম্পদ লুটের ব্যবস্থা করা হলো, এখন জম্মু কাশ্মীরের জমি বিক্রি শুরু হলো”। জেকে এলিয়েনেশান অব ল্যাÐ অ্যাক্ট ১৯৯৫, জেকে কমন ল্যাÐস (রেগুলেশান) অ্যাক্ট ১৯৫৬, এবং জেকে কনসোলিডেশান অব হোল্ডিংস অ্যাক্ট ১৯৬২ ও বাতিল করা হয়েছে। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
Shohidul Shimul ২৯ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪০ এএম says : 0
আপনাদের ভুলের কারণেই তো আজ কাশ্মীরের এই অবসথা।
Total Reply(0)
সজল মোল্লা ২৯ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪০ এএম says : 0
জুম্মু-কাশ্মির থেকে ভারতীয় দখলদার বাহিনীকে জুতা পেটা করে বিদায় করা হোক।
Total Reply(0)
মেহেদী ২৯ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪১ এএম says : 0
উগ্রবাদি বিজেপি সরকারের জন্য খুবই খারাপ অবস্থা অপেক্ষা করছে।
Total Reply(0)
কামাল রাহী ২৯ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪১ এএম says : 0
কাশ্মিরকে এভাবেই মুসলিম সংখ্যালঘু করতে চাই ওরা।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন