ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পশ্চিমা দেশগুলো পুনরায় ধর্মযুদ্ধ শুরু করতে চায় : এরদোগান

এবার শার্লি এবদোর বিরুদ্ধে মামলা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

নিজের আপত্তিকর ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশ করায় ফরাসী সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন শার্লি এবদোর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান। গতকাল তিনি ম্যাগাজিনটির বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করেন। এরদোগানের আইনজীবী জানিয়েছেন, তার বিরুদ্ধে ঘৃণ্য কার্টুনের অভিযোগ এনে ম্যাগাজিনটির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন এরদোগান।
তুর্কি সংবাদমাধ্যম ইয়েনি শাফাক জানিয়েছে, আঙ্কারার প্রসিকিউটরের কাছে এ অভিযোগটি জমা পড়েছে। আইনজীবী হুসেই আদিন জানিয়েছেন, ম্যাগাজিন কর্তৃপক্ষ ও কার্টুনিস্টের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। এর আগে এদিন দেশের প্রেসিডেন্টকে অপমান করায় আঙ্কারার প্রসিকিউটরও শার্লি এবদোর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে তুরস্কের আইনে মামলা দায়ের করেছেন। তুর্কি কর্মকর্তারা বলছেন, পত্রিকাটি সাংস্কৃতিক বর্ণবাদ ও বিদ্বেষ ছড়িয়ে দেয়ার জন্য এটি ‘ঘৃণ্য প্রচেষ্টা’।
এদিকে পশ্চিমা দেশগুলো পুনরায় ধর্মযুদ্ধ শুরু করতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান। তিনি বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো ইসলামকে আক্রমণ করে পুনরায় ধর্মযুদ্ধ শুরু করতে চায়। উদাহরণ হিসেবে তিনি বিশ্বনবীর ব্যাঙ্গচিত্র নিয়ে ফ্রান্স ও তুরস্কের কথা তুলে ধরেন। গতকাল দেশটির পার্লামেন্টে বিশ্বনবীকে অবমাননার ওপর বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।
এরদোগান বলেন, দুর্ভাগ্যবশত আমরা এমন এক প্রতিক‚ল সময়ে রয়েছি যখন ইসলাম, মুসলিম এবং বিশ্বনবীকে অবমাননা করা হয়, এটা ক্যানসারের মতো ছড়িয়েছে, বিশেষ করে ইউরোপীয় নেতাদের মধ্যে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি বিচক্ষণ ইউরোপীনদের আহ্বান করছি, নিজেদের ও তাদের সন্তানদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য এখনই বিপজ্জনক প্রবণতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে।
এই মাসের শুরুতে প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ ফ্রান্সের মুসলিমদের বিচ্ছিন্নতাবাদী এবং বিশ্বজুড়ে ধর্মীয় সংকটে ইসলামকে দায়ী করেন। স্যামুয়েল প্যাটি নামে এক শিক্ষক ক্লাসরুমে বিশ্বনবীর ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করেন। এ ঘটনায় ১৬ অক্টোবর আবদুল্লাহ নামে এক তরুণ ওই শিক্ষককে হত্যা করেন। যদিও ওই তরুণ পুলিশের গুলিতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। এর পর থেকে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বাড়তে থাকে। ম্যাখোঁ নিহত শিক্ষক প্যাটির স্বরণে অনুষ্ঠানে সম্মান জানাতে গিয়ে বলেন, ফ্রান্স ওই কার্টুন বন্ধ করবে না।
অন্যদিকে, এই অপমানজন কার্টুন ফরাসী সাপ্তাহিক ব্যাঙ্গাত্মক পত্রিকা প্রজেক্টরের মাধ্যমে দেশটির কয়েকটি শহরে দেয়ালে প্রদর্শন করে। এ বছরের শুরুতে ম্যাগাজিনটি পুনবায় বিশ্বনবীর ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশ করে। তুর্কি সংবাদমাধ্যম ইয়েনি শাফাকের খবরে বলা হয়েছে, তারা সর্বপ্রথম ড্যানিশ পত্রিকায় ২০০৬ সালে এটি প্রকাশ করে। কয়েকটি আরব দেশ ফ্রান্সের এমন কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করে। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য দেশগুলো হল- তুরস্ক, ইরান ও পাকিস্তান। এছাড়া তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান ম্যাখোঁকে মানসিক রোগী বলে আখ্যায়িত করেছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের ডাক দেয় বহু আরব দেশ। সেই সময় এরদোগান তুর্কি নাগরিকদের প্রতি ফ্রান্সের পণ্য বয়কট ও ক্রয় না করতে আহ্বান জানান।
রয়টার্স জানিয়েছে, এরদোগানকে নিয়ে যে ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশ করা হয়েছে, তার কভারে দেখা গেছে, এরদোগান একটি সাদা টি-শার্ট পরে বসে আছেন। হাতে একটি ক্যানের ভেতর পানীয় জাতীয় দ্রব্য রাখা এবং পাশে দাঁড়িয়ে আছে ইসলামিক হিজাব পড়া এক নারী। তুর্কি যোগাযোগ অধিদফতর বলছে, আমাদের জনগণের সন্দেহ নেই যে প্রশ্নবিদ্ধ ব্যাঙ্গচিত্রের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় সব আইনগত ও কূটনৈতিক পদক্ষেপ নেয়া হবে। সূত্র : ইয়েনি শাফাক, রয়টার্স।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন