ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় চারজনের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

রাজধানীর কদমতলী, যাত্রাবাড়ী, মুগদা ও মোহম্মদপুর এলাকায় পৃথক ঘটনায় চারজনের মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার ও গতকাল তাদের মৃত্যু হয়। পুলিশ জানায়, গতকাল বিকেলে কদমতলী মোহাম্মদবাগ এলাকার একটি বাসায় হাসিবুল হোসেন মুন্না (১৮) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। অচেতন অবস্থা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সন্ধ্যা ৭টায় মৃত ঘোষণা করেন।

মুন্নার বাবা আনোয়ার হোসেন জানান, মুন্না আগে একটি কোম্পানিতে চাকরি করলেও বর্তমানে কিছুই করতো না। দুই ভাই এক বোনের মধ্যে সবার ছোট ছিল মুন্না। তাকে ইতালি পাঠাবার চিন্তাভাবনা চলছিল। কয়েকদিন ধরে সে মোটরসাইকেলে কিনে দেওয়ার বায়না ধরে। মোটরসাইকেল কিনে দিতে রাজিও হয়। তবে সে কয়েকদিনের মধ্যেই কিনে দিতে দাবি করে। এনিয়েই শুক্রবার রাতে সে মন খারাপ করে। এরপর সারাদিন বাসায়ই ছিল। গতকাল সন্ধ্যায় টিনসেড নিজ বাসায় তার রুমের দরজা বন্ধ করে গলায় ফাঁস দেয় সে। অনেক সময় পরেও দরজা না খোলায় পরিবারের সন্দেহ হয়। পরে দরজা ভেঙে রুমের ভিতরে ঢুকে ফ্যানের হুকের সাথে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় দেখতে পায় তাকে। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।
এর আগে গতকাল বিকেল ৩টার দিকে যাত্রাবাড়ী মাতুয়াইলে বাস ধাক্কায় বাইসাইকেল আরোহী অজ্ঞাতনামা (২৫) এক ব্যাক্তি নিহত হয়েছেন। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া পথচারী আহমেদ শরীফ জানান, ওই ব্যাক্তি সাইসাইকেল চালিয়ে যাচ্ছিল। মাতুয়াইল মা ও শিশু হাসপাতালের সামনে মেইন রোডে পেছন থেকে একই দিকে আসা স্বদেশ পরিবহনের একটি বাস তাকে ধাক্কা দেয়। এতে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয় সে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। তবে তাৎক্ষনিক তার নাম পরিচয় জানা যায়নি। যাত্রাবাড়ী থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম জানান, বাস জব্দ করা হয়েছে। এর চালককেও আটক করা হয়েছে।
এরও আগে গত শুক্রবার রাত ১০টার দিকে মুগদা এলাকা থেকে মাহবুবুল আলম সজল (৩০) নামে এক যুবককে অজ্ঞান অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত যুবক ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার বেলায়েত হোসেনের ছেলে। মহাখালী আমতলী এলাকার একটি মেসে থাকতেন।
এদিকে, মোহাম্মদপুর চাঁদ উদ্যান এলাকায় ভাঙাড়ি দোকানে পরিত্যক্ত বোতল থেকে বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধ কর্মচারী ফারুক মিয়া চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। শুক্রবার দিনগত রাত পৌনে ২টায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে তিনি মারা যান। এর আগে গত ২৭ অক্টোবর দুপুর আড়াইটার দিকে বিস্ফোরণের ওই ঘটনায় সাতজন দগ্ধ হন। তাদের মধ্যে দোকান মালিক আব্দুল আলিম (৫০) কর্মচারীর সাইদুর (৩৩), ওই দোকানের মালামাল দিতে আসা আমির হোসেন (২৭) ও ভাঙারি দোকানটির পাশের দোহার ওয়ার্কশপের কর্মচারি কাইয়ুম (৪০), রাসেল (২৫) ও সুরুজ (২৫) এখনো চিকিৎসাধীন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন