ঢাকা শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারি ২০২১, ০১ মাঘ ১৪২৭, ০১ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

তিন পেনাল্টি ও আত্মঘাতী গোলে বিপর্যস্ত রিয়াল

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৫৬ এএম

খেলার শুরুতে এগিয়ে গিয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ-ই। কিন্তু এরপর কি যে হলো! তিন পেনাল্টি আর এক আত্মঘাতী গোলে জিনেদিন জিদানের দলকে বিপর্যস্ত করে ছাড়লো ভ্যালেন্সিয়া।

রোববার রাতে রিয়ালকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে ভ্যালেন্সিয়া। করিম বেনজেমার গোলে এগিয়ে গিয়েছিল লস ব্ল্যাঙ্কোসরাই। কিন্তু কার্লোস সোলেরের হ্যাটট্রিক ও রাফায়েল ভারানের আত্মঘাতী গোলে জয় তুলে নেয় স্বাগতিকরা।

ম্যাচের শুরু থেকে আক্রমণে ওঠে আসা রিয়াল প্রতিপক্ষের রক্ষণে ভয় ধরিয়ে দিয়েছিল।

আক্রমণের ধারা বজায় রেখেই ২৩তম মিনিটে এগিয়ে যায় সফরকারীরা। ব্রাজিলিয়ান মার্সেলোর মাপা পাস ধরে বক্সের ভেতরে ঢুকে ভ্যালেন্সিয়ার গোলরক্ষক দোমেনেককে পরাস্ত করে বল জালে জড়িয়ে মৌসুমে নিজের চতুর্থ গোল করেন রিয়ালের ফরাসি স্ট্রাইকার বেনজেমা।

এগিয়ে যাওয়ার সুখ অবশ্য কপালে বেশিক্ষণ সইলো না রিয়ালের। এগিয়ে যাওয়ার ৫ মিনিট পরেই গোল হজম করে দলটি। সোলেরের বাড়িয়ে দেওয়া বলে বক্সে ক্রস দিয়েছিলেন গায়া। আর তা ঠেকাতে গিয়ে বল লুকাস ভাসকেসের হাতে লাগলে পেনাল্টির ইশারা করেন রেফারি।

সোলেরের স্পট কিক শুরুতে গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন, এই স্প্যানিশ মিডফিল্ডারের ফিরতি শট পোস্টে লেগে ফিরলে কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন ইউনুস মুসা। কিন্তু সোলের স্পট কিক নেওয়ার আগমুহূর্তে মুসার পা ডি-বক্সে ঢুকে পড়ায় ভিএআরে দেখে পেনাল্টি বাতিল করেন রেফারি। ফিরতি পেনাল্টিতে সমতা ফেরান সোলেরা।

গোল হজম করেই নিজেদের রক্ষণ আলগা করে ফেলে রিয়াল। যার ফায়দা তুলে পাল্টা আক্রমণে ওঠে আসে ভ্যালেন্সিয়া। ৪৩তম মিনিটে দলটি এগিয়েও যায়। ম্যাক্সি গোমেজের ক্রস ঠেকাতে গেলে বল ভারানের পায়ে লেগে ওপরে উঠে যায়। গোললাইন থেকে ফেরানোর চেষ্টায় বলে হাত ছোঁয়ানোর চেষ্টা করেছিলেন থিবো কোর্তোয়া। কিন্ত ততক্ষণে দেরি হয়ে গেছে। ভিএআরে দেখা যায় বল গোললাইন পেরিয়ে গেছে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে আরও দুই পেনাল্টি গোল হজম করে রিয়াল। নিজেদের ডি-বক্সে ভ্যালেন্সিয়ার গোমেসকে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন ডিফেন্ডার মার্সেলো। স্পট কিকে ব্যবধান আরও বাড়ান সোলেরা। এরপর ডি-বক্সে সার্জিও রামোসের হাতে বল লাগলে ফের পেনাল্টি পায় ভ্যালেন্সিয়া। এবার নিখুঁত স্পট কিকে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন সোলেরা।

এতগুলো পেনাল্টি থেকে গোল হজমের মাঝে বেশ কয়েকবার সুযোগ পেয়েছিল রিয়ালও। কিন্তু প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক দেয়াল হয়ে দাঁড়ালে ব্যবধান কমাতে পারেনি রামোসবাহিনী। এর মধ্যে ৭৬তম মিনিটে আবার কুঁচকিতে ব্যথা নিয়ে মাঠ ছাড়েন বেনজেমা। বদলি হিসেবে নামা মারিয়ানো তেমন একটা ছাপ ফেলতে পারেননি।

এই নিয়ে আট ম্যাচে পাঁচ জয় ও এক ড্রয়ে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে নেমে গেছে রিয়াল। অন্যদিকে ১ ম্যাচ বেশি খেলে ১১ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে আছে ভ্যালেন্সিয়া।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন