ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

পাকিস্তানের তৈরি জেএফ-১৭ গ্রহণের প্রস্তুতি জোরদার করেছে নাইজেরিয়া

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

পাকিস্তান ও চীনের যৌথ নির্মিত তিনটি জেএফ-১৭ জঙ্গিবিমান ও চীনের কাছ থেকে আটটি ড্রোন গ্রহণের জন্য প্রস্তুতি কাজ দ্রুত এগিয়ে নিচ্ছে নাইজেরিয়ার বিমান বাহিনী (এনএএফ)। এনএএফ’র ফেসবুক পেজের এক পোস্টে বলা হয়েছে নাইজেরিয়ায় জেএফ-১৭ জঙ্গিবিমানের অপারেশনের প্রথম বছরে সহায়তা করবে পাকিস্তানের পাইলট ও টেকনিশিয়ানরা। নাইজেরিয়ার জেএফ-১৭ কেনার বিষয়টি ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে প্রথম নিশ্চিত হয়। দেশটির বাজেট নথিতে এর উল্লেখ ছিলো। ফলে পাকিস্তানের বাইরে নাইজেরিয়া হয় এই বিমানের প্রথম ক্রেতা। মিয়ানমারও এই বিমান ব্যবহার করছে। সম্প্রতি চীনের সোশ্যাল মিডিয়ায় নাইজেরিয়ার জন্য জেএফ-১৭ উৎপাদনের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়া নাইজেরিয়া চীনের কাছ থেকে আটটি ড্রোন কিনছে। এগুলো সশস্ত্র ড্রোন হবে বলে ফেসবুকের পোস্টে উল্লেখ করা হয়েছে। নতুন ড্রোন বহরে থাকবে দুটি এভিক উইং লুং-২, চারটি চায়না এরোস্পেস সাইন্স অ্যান্ড টেকনলজি কর্পোরেশনের সিএইচ-৪ ও দুটি সিএইচ-৩। ফেসবুক পোস্টে নাইজেরিয়া বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার মার্শাল সাদিক আবুবকরের মন্তব্যও প্রকাশ করা হয়েছে। তিনি মাকুরদি বিমান ঘাঁটি পরিদর্শনের সময় জেএফ-১৭ এর ব্যাপারে মন্তব্য করেন। এই ঘাঁটিতে জঙ্গিবিমানগুলো রাখা হবে। নাইজেরিয়া নয়টি বাতিল এফ-৭এনআই ফাইটার সক্রিয় করার চেষ্টা করছে। এর সাতটি খুলে আলাদা করে চীনে পাঠানো হবে লাইফ এক্সটেনশনের জন্য। বাকি দুটি সক্রিয় করবেন স্থানীয় টেকনিশিয়ানরা। ফ্লাইট গ্লোবাল, এসএএম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (9)
সঞ্জয় ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১:৫৫ এএম says : 0
সারা বিশ্ব প্রতিরক্ষা খাতে যে পরিমান অর্থ ব্যয় করে তা যদি মানবতার কল্যাণে ব্যয় করতো, তাহলে পৃথিবীতে কেউ অনাহারে থাকতো না
Total Reply(0)
নুরজাহান ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১:৫৩ এএম says : 0
খুব ভালো
Total Reply(0)
এস এ তুহিন ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১:৫৪ এএম says : 0
আমরাও একদিন জঙ্গিবিমান ও ড্রোন উৎপাদন করবো, ইনশা আল্লাহ
Total Reply(0)
নয়ন ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১:৫৫ এএম says : 0
আমাদেরও উচিত কিছু আমদানি করে রাখা
Total Reply(0)
Nil Akash ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১০:২২ এএম says : 0
সকল মুসলিম দেশে কিনিয়া নিলে তারা উন্নত হবে।
Total Reply(0)
Bojlur Rahaman ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১০:২৩ এএম says : 0
দিন আসতেচে সকল বেদিন দেশ মুসলিম দেশ গুলাকে গ্রাস করতে আবার এক হবে।
Total Reply(0)
Mahmudul Hassan ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১০:২৩ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ
Total Reply(0)
MD Hossain ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ১০:২৩ এএম says : 0
Good
Total Reply(0)
MD.SHAFIKUL ISLAM ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ১২:১২ পিএম says : 0
সারা বিশ্ব প্রতিরক্ষা খাতে যে পরিমান অর্থ ব্যয় করে তা যদি মানবতার কল্যাণে ব্যয় করতো, তাহলে পৃথিবীতে কেউ অনাহারে থাকতো না।এবং আমরাও একদিন জঙ্গিবিমান ও ড্রোন উৎপাদন করবো, ইনশা আল্লাহ
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন