ঢাকা সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০২০, ০৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৭ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

অলআউট ফুটবলে হোয়াইটওয়াশের স্বপ্ন

জাহেদ খোকন | প্রকাশের সময় : ১৮ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মুজিববর্ষ ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচের পুরো সময়টাই ভালো খেলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া। আজ বিকাল ৫টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও নেপাল। শুক্রবার প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ ২-০ ব্যবধানে জিতলেও দ্বিতীয়ার্ধে স্বাগতিকদের খেলায় ছন্দ ছিল না। এটা মানছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক জামাল ভূইয়া নিজেও। তাই তো দ্বিতীয় ম্যাচকে সামনে রেখে তিনি দলের কাছে নিজের চাওয়াটা জানিয়ে দিলেন, ম্যাচের খেলতে হবে ‘অলআউট’ ফুটবল। অন্যদিকে সিরিজে জয় পেতে মরিয়া নেপালী দল। নেপালের অধিনায়ক কিরন তেমজং জানান, জয় দিয়েই বাংলাদেশ সফর শেষ করতে চান তারা।

গতকাল অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে জামাল বলেন, ‘আগের ম্যাচে প্রথমার্ধ ভালো ছিল। দ্বিতীয়ার্ধে আমি ১০/১৫ মিনিট খেলছি। প্রথমার্ধ দারুণ ছিল, দ্বিতীয়ার্ধে কষ্ট করতে হয়েছে। শুধু প্রথমার্ধে ভালো খেললে চলবে না, দুই অর্ধেই ভালো খেলতে হবে। আগামীকাল (আজ) সেটাই আমাদের লক্ষ্য। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে দল কেমন খেলেছে। সে হিসেবে প্রথম ম্যাচের পারফরম্যান্সে আমি খুশি।’

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় বাংলাদেশ দলে প্রধান কোচ জেমি ডে নেপালের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে ডাগআউটে থাকছেন না। তবে এতে খুব একটা সমস্যা দেখছেন না জামাল ভূঁইয়া। তার কথায়,‘জেমি ডাগআউটে থাকুক আর না থাকুক, আমাদের মনোযোগ একই থাকবে। জেমি বা স্টুয়ার্ট ওয়াটকিস যে-ই থাকুক, আমাদের খেলার নির্দেশনা ও ট্যাকটিক্যাল ব্যাপারগুলো একই। জেমি না থাকলে সেটা বড় সমস্যা হবে না।’ জামাল আরও বলেন,‘ নেপালের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচটি আমাদের জন্য ফাইনাল। জিতলে মানুষ পজিটিভ কথা বলবে। আর হারলে পকপক করবে। তাই আগামীকালের (আজ) ম্যাচে জিততে হবে। কোনভাবেই আমরা দ্বিতীয় ম্যাচকে সহজে নিতে পারি না। দ্বিতীয় ম্যাচে নেপাল আরও অ্যাটাক (আক্রমণ) করবে। স্টুয়ার্ট ইতোমধ্যে এসব বিষয় নিয়ে আমাদের বলেছেন। দ্বিতীয় ম্যাচে নেপাল বেশি বেশি আক্রমণে উঠবে, তাই আমাদের পাল্টা আক্রমণের সুযোগ থাকবে।’

নেপালের বিপক্ষে দুই প্রীতি ম্যাচকে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে কাতারের বিপক্ষে ম্যাচের প্রস্তুতি হিসেবে দেখছে বাংলাদেশ। আগামী ৪ ডিসেম্বর কাতারের বিপক্ষে খেলবে লাল-সবুজরা। জামাল চাইছেন কাতার ম্যাচের আগে শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলে প্রস্তুতি সেরে নেওয়া। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন,‘জেমি এরই মধ্যে আরও কঠিন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলার আবেদন করেছে। কারণ কাতার খেলবে কোস্টারিকা ও দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে। আমাদেরও কঠিন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলা দরকার।’

এদিকে প্রথম ম্যাচের ভুল শুধরে দ্বিতীয় ম্যাচে দল ঘুরে দাঁড়াতে প্রস্তুত বলে জানান নেপালের কোচ বাল গোপাল মহারজন। অধিনায়ক কিরন তেমজং জানান, জয় দিয়েই বাংলাদেশ সফর শেষ করতে চান তারা।
কাল সকালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেষ মুহূর্তের অনুশীলন সারে নেপাল। করোনাভাইরাস মুক্ত হয়ে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন ডিফেন্ডার রনজিৎ ধিমাল। নেপালী কোচ জানান, ধিমালের ফেরাটা দলকে বাড়তি শক্তিজোগাবে।

বাল গোপাল মহারজনের কথায়,‘প্রথম ম্যাচের পরের তিন দিন আমরা দ্বিতীয় ম্যাচের প্রস্তুতি নিয়েছি। ভালো পারফরম্যান্সের দিকে মনোযোগ দিচ্ছি। প্রথম ম্যাচের হার থেকে আমরা কিছু শিখেছি। ডিফেন্ডিং থার্ডে আমরা কিছু ভুল করে গোল হজম করেছিলাম। আশা করি, আগামীকাল (আজ) পুরো দল ভালো খেলবে। ব্যক্তিগত ও দলীয়ভাবে ভালো খেলবে। ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে খেলার জন্য দল প্রস্তুত।’ তিনি যোগ করেন,‘ধিমাল করোনাভাইরাস নেগেটিভ হয়ে ফিরেছে। আমি মনে করি, তার ফেরাটা দলের জন্য অনুপ্রেরণার হবে।’

দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে দারুণ আত্মবিশ্বাসী নেপাল অধিনায়ক কিরণ। তিনি বলেন,‘সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি দুই দলের জন্যই কঠিন হতে যাচ্ছে। অবশ্যই আমরা জয়ের জন্য মাঠে নামব। কেননা, আমরা প্রথম ম্যাচ হেরেছি। দ্বিতীয় ম্যাচের জন্য তিন দিন প্রস্তুতি নেওয়ার সময় পেয়েছি। আমরা প্রস্তুত ভালো খেলা উপহার দিতে।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন