ঢাকা শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারি ২০২১, ০১ মাঘ ১৪২৭, ০১ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

নিয়মের বদলে ভারতকে টপকে শীর্ষে অস্ট্রেলিয়া

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ, ১৫ বছর বয়সের আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নয়

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট তালিকায় দলগুলোর অবস্থান নির্ধারণের পদ্ধতিতে বদল আনা হয়েছে। প্রাপ্ত পয়েন্টের বদলে কোনো দল সম্ভাব্য পয়েন্টের কত শতাংশ পয়েন্ট অর্জন করেছে, সেটাকে নতুন মানদন্ড হিসেবে ঘোষণা করেছে আইসিসি। এই নিয়মের কারণে দুইয়ে নেমে গেছে ভারত। তাদেরকে টপকে শীর্ষে উঠে গেছে অস্ট্রেলিয়া। গতপরশু ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার বোর্ড সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে নতুন নিয়ম। অনিল কুম্বলের নেতৃত্বাধীন আইসিসি ক্রিকেট কমিটির সুপারিশের পর নেওয়া হয়েছে এই সিদ্ধান্ত।
করোনাভাইরাসের কারণে লম্বা সময় ধরে বন্ধ ছিল প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট। স্থগিত হয়ে গেছে অনেকগুলো সিরিজ। যার প্রভাব পড়েছে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে। এখন পর্যন্ত নয় দলের আসরটির ৫০ শতাংশ ম্যাচও মাঠে গড়ায়নি। তাছাড়া, সবকিছু ঠিকঠাকভাবে এগোলেও নির্ধারিত সময়ের (আগামী ২০২১ সালের মার্চ) মধ্যে চ্যাম্পিয়নশিপের মাত্র ৮৫ শতাংশ ম্যাচ শেষ করা যাবে। কিন্তু সূচি অনুসারে আগামী জুনেই ফাইনাল আয়োজন করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ আইসিসি। ফলে তাদের সামনে খোলা ছিল দুটি পথ। মহামারির প্রাদুর্ভাবে যে ম্যাচগুলো হয়নি, সেগুলোকে ড্র ধরে নিয়ে দলগুলোর মধ্যে পয়েন্ট ভাগ করে দেওয়া অথবা সম্ভাব্য পয়েন্টের শতকরা হারের ভিত্তিতে পয়েন্ট তালিকা নির্ধারণ করা। আইসিসি বেছে নিয়েছে দ্বিতীয়টিকে।
নতুন নিয়মের প্রবর্তনে তালিকায় যে ব্যাপক রদবদল হয়েছে, তা নয়। তবে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এসেছে নতুন মাত্রা। চার সিরিজে ৩৬০ পয়েন্ট নিয়ে এতদিন শীর্ষে ছিল ভারত। কিন্তু তাদের সম্ভাব্য পয়েন্ট ছিল ৪৮০। অর্থাৎ ৭৫ শতাংশ পয়েন্ট পেয়েছে তারা। ফলে শীর্ষস্থান হারিয়েছে বিরাট কোহলিরা। অন্যদিকে, তিন সিরিজে সম্ভাব্য ৩৬০ পয়েন্টের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া অর্জন করেছে পয়েন্ট ২৯৬। অর্থাৎ পয়েন্ট প্রাপ্তির হার ৮২.২২ শতাংশ। এতে টিম পেইনের দল উঠে গেছে সবার উপরে। চার সিরিজে ২৯২ পয়েন্ট নিয়ে তিনে থাকা ইংল্যান্ডের পয়েন্ট প্রাপ্তির হার ৬০.৮৩ শতাংশ।
পদ্ধতি বদলালেও বাংলাদেশের অবস্থানের কোনো নড়চড় হয়নি। আগের মতোই তালিকায় সবার নিচে রয়েছে মুমিনুল হকের দল। কারণ, তিন ম্যাচ খেললেও টাইগারদের নামের পাশে নেই কোনো পয়েন্ট। ভারতের মাটিতে ২-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশড হওয়ার পর পাকিস্তানের মাটিতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতেও হেরেছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয়টি স্থগিত হয়ে গেছে করোনার কারণে।
বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে প্রতিটি দলের ছয়টি করে সিরিজ খেলার কথা। তিনটি দেশের মাটিতে। তিনটি দেশের বাইরে। প্রতিটি সিরিজের জন্য বরাদ্দ ১২০ পয়েন্ট।
এদিকে, বোর্ড সভায় খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্যসুরক্ষা ও নিরাপত্তার উন্নতির স্বার্থে নতুন একটি সিদ্ধান্তও নিয়েছে আইসিসি। বিশেষ কোনো ব্যতিক্রম ছাড়া ন্যূনতম ১৫ বছর বয়সের আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশ নিতে পারবে না কোনো ক্রিকেটার। আইসিসি আয়োজিত কোনো আসর তো বটেই, দ্বিপাক্ষিক সিরিজ এমনকি অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ের ক্রিকেটারদের জন্যও প্রযোজ্য হবে নিয়মটি। ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েদের ক্রিকেটেও চালু করা হয়েছে বয়সের এই ন্য‚নতম সীমা।
তবে ১৫ বছরের কম বয়সীদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার রাস্তা একেবারেই রুদ্ধ হয়ে যায়নি। বিশেষ পরিস্থিতিতে ন্যূনতম বয়সসীমার নিচে থাকা কাউকে খেলার সুযোগ দেওয়ার জন্য আইসিসির কাছে আবেদন করতে পারবে যেকোনো সদস্য দেশ। সেক্ষেত্রে বেশ কিছু বিষয় আমলে নেবে সংস্থাটি। অনুমতি দেওয়ার আগে ওই ক্রিকেটারের বিভিন্ন পর্যায়ে খেলার অভিজ্ঞতা, মানসিক বিকাশ ও সার্বিক পরিস্থিতি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের দাবি মেটাতে সক্ষম কিনা, তা যাচাই করে দেখবে তারা।
সবচেয়ে কম বয়সে টেস্ট খেলার রেকর্ড পাকিস্তানের হাসান রাজার দখলে। ১৯৯৬ সালে মাত্র ১৪ বছর ২২৭ দিন বয়সে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল তার। একই সিরিজে সবচেয়ে কম বয়সে ওয়ানডে খেলার কীর্তিও গড়েছিলেন সাবেক এই ব্যাটসম্যান। যদিও তার আসল বয়স নিয়ে আছে নানা বিতর্ক। রাজা ছাড়াও এখন পর্যন্ত ছেলেদের ক্রিকেটে আরও দুজন ১৫ বছর বয়সের আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের স্বাদ পেয়েছেন। তারা হলেন রোমানিয়ার মারিয়ান ঘেরাসিম ও কুয়েতের মিত ভাবসার। দুজনই খেলেছেন টি-টোয়েন্টি সংস্করণে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন