ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ০৫ মাঘ ১৪২৭, ০৫ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ক্ষমতা হস্তান্তরে রাজি ট্রাম্প, চলবে লড়াইও

বাইডেনের গুরুত্বপূর্ণ ৬ ক্যাবিনেট সদস্যের নাম ঘোষণা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

অবশেষে নমনীয় হলেন বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি তার দল ও প্রশাসনকে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরে সহযোগিতা করার জন্য বলেছেন। তবে তিনি লড়াই চালিয়ে যাবেন বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এদিকে, সোমবার আরও কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তার নাম প্রকাশ করা হয়েছে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের টিমের পক্ষ থেকে। আফ্রো-আমেরিকান, হিস্পানিক (দক্ষিণ আমেরিকা বংশোদ্ভূত), মহিলা প্রতিনিধিত্বের মাধ্যমে ভারসাম্য রক্ষা করা হয়েছে তার ক্যাবিনেটে।

ট্রাম্প চলতি মাসের শুরুর দিকে মার্কিন নির্বাচনে বাইডেনের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন তবে তারপর থেকেই ‘ব্যাপক ভোট জালিয়াতি’র অভিযোগে এই ফল মেনে নিতে আস্বীকার করে আসছেন করেছেন, যদিও দাবির সপক্ষে তিনি কোন প্রমাণ হাজির করতে ব্যর্থ হয়েছেন। তবে শেষ অবধি তিনি সম্ভবত হার মেনে নিয়েছেন এবং বুঝতে পেরেছেন যে ২০ জানুয়ারী তাকে হোয়াইট হাউস ছেড়ে চলে যেতে হবে। সোমবার তিনি জানান, নিয়ম মেনে বাইডেনের প্রশাসনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য তিনি জেনারেল সার্ভিসেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (জিএসএ) প্রধান এমিলি মারফিকে পদক্ষেপ নিতে বলেছেন। একই সঙ্গে তিনি অবশ্য স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন ‘ভোট চুরি’ করেই তাকে হারানো হয়েছে। তিনি জানান, তাকে জোর করে ভোটে হারানো নিয়ে তিনি এখনও লড়াই চালিয়ে যাবেন।

জিএসএ বলেছে, এই প্রথম ট্রাম্প ‘আপাতভাবে স্বীকার করলেন’ বাইডেন ভোটে জিতেছেন। ঘটনাচক্রে ট্রাম্পের এই স্বীকারোক্তি এল মিশিগানে বাইডেনের জয় সোমবার সরকারি স্বীকৃতি পাওয়ার পর। মিশিগানের পুনর্গণনার পর কার্যত ট্রাম্প বুঝে গিয়েছিলেন নিজের জয়ের পক্ষে তিনি যা এত দিন বলেছিলেন, সেই যুক্তি ধোপে টিকবে না। জিএসএ-র বিবৃতির পর পেন্টাগন এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘আমরা বাইডেন টিমকেই সমর্থন জানাচ্ছি। জাতীয় নিরাপত্তার কথা ভেবে এবং জনগণের সমর্থন কোন দিকে রয়েছে, তা স্পষ্ট হওয়ার পরই এই সিদ্ধান্ত।’ ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তের পর ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে। বাইডেন এবং তার টিমকে প্রয়োজনীয় নথি এবং অন্য সরকারি রেকর্ড দেয়া হয়েছে। সঙ্গে ৬০ লাখ ডলারের তহবিলও দেয়া হয়েছে।

এদিকে, ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিসকে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী বেছে নিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জেতার পরেই হোয়াইট হাউসের পরবর্তী চিফ অব স্টাফ পদে রন ক্লাইনের নাম চূড়ান্ত করেছিলেন জো বাইডেন। সোমবার ঘোষিত বাইডেনের নতুন ক্যাবিনেটের তালিকার প্রথম নাম অ্যান্টনি ব্লিনকেন। সাবেক এই কূটনীতিক আমেরিকার পরবর্তী পররাষ্ট্রমন্ত্রী হতে চলেছেন। বারাক ওবামার আমলে আমেরিকার পররাষ্ট্র দফতরের ডেপুটি সেক্রেটারি ছিলেন তিনি।

ওবামার প্রথম দফায় আমেরিকার অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বিভাগের (হোমল্যান্ড সিকিওরিটি) ডেপুটি সেক্রেটারি পদে ছিলেন আলেসান্দ্রো মায়োর্কাস। সে সময় সরকারের অত্যন্ত দক্ষ কর্মকর্তা হিসাবে তার পরিচিতি গড়ে উঠেছিল। মেক্সিকান বংশোদ্ভূত এই প্রতিনিধি এ বার আমেরিকার অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা সচিব হতে চলেছেন। পাশপাশি, পরবর্তী জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হিসেবে জেক সুলিভানকে বেছে নিয়েছেন বাইডেন। ভাইস প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন বাইডেনের জাতীয় নিরাপত্তা সংক্রান্ত উপদেষ্টার পদে ছিলেন সুলিভান। নিরাপত্তা সংক্রান্ত অগ্রাধিকার এবং পররাষ্ট্রনীতির ভারসাম্য রক্ষায় তার সুনাম রয়েছে।

শুধু প্রথম মহিলা ভাইস প্রেসেডেন্ট নয়, বাইডেনের আমলেই প্রথম মহিলা গোয়েন্দা প্রধান পেতে চলেছে আমেরিকা। পরবর্তী ন্যাশনাল ইনটেলিজেন্স ডিরেক্টর হতে চলেছেন এভ্রিল হেইনস। দু’দশক আগে ৯/১১ সন্ত্রাসের জেরে তৈরি হওয়া এই দফতরের মূল কাজ আমেরিকার বিভিন্ন গোয়েন্দা এবং গুপ্তচর সংস্থার মধ্যে সমন্বয় রক্ষা। ওবামার আমলে জাতীয় নিরাপত্তা সংক্রান্ত আইনি দিকগুলি দেখভালের দায়িত্বে ছিলেন সিআইএ-র প্রাক্তন ডেপুটি ডিরেক্টর এভ্রিল। তিনি ২০০৭ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত সিনেটের পররাষ্ট্র সম্পর্ক কমিটির উপ-প্রধান পরামর্শকের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। সেই কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন তৎকালীন সিনেটর বাইডেন। ২০০৮ সালেই আইন উপদেষ্টা হিসাবে স্টেট ডিপার্টমেন্টে যোগ দিয়েছিলেন এবং ২০১০ সালে তিনি প্রেসিডেন্টর উপ-সহকারী ও হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্টের জাতীয় সুরক্ষা বিষয়ক উপ-পরামর্শক হয়েছিলেন। ২০১৪ সালে জাতীয় সুরক্ষা বিষয়ক উপ-উপদেষ্টা হয়ে আবার হোয়াইট হাউসে ফিরে এসেছিলেন।
এছাড়াও জাতিসংঘে আমেরিকার দূত হিসেবে লিন্ডা টমাস গ্রিনফিল্ডকে বেছে নিয়েছেন নতুন প্রেসিডেন্ট। আফ্রো-আমেরিকান সমাজের এই প্রতিনিধি ২০১৩-’১৭ আমেরিকার পররাষ্ট্র দফতরের আফ্রিকা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী সেক্রেটারি পদে ছিলেন। সূত্র : ওয়াশিংটন পোস্ট, এনবিসি, স্কাই নিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Jahid Islam ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ৩:০০ এএম says : 0
যে লাউ সেই কদু। ট্রাম নিজেকে একটু শিরোনামে আসার জন্য মুড়া মুড়ি করছিল।
Total Reply(0)
M H Hassan ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ৩:০১ এএম says : 0
Trump লোক খারাপ না,একটু ঘাউড়া এ-ই আরকি
Total Reply(0)
Akram Hossain ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ৩:০২ এএম says : 0
সিদ্ধান্ত যদি না নিতেন তবে সে দেশের প্রশাসন তাকে বাধ্য করতেন। নিরুপায় হয়ে করছেন।
Total Reply(0)
M M Bachchu Mridha ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ৩:০৪ এএম says : 0
পুতিনের স্বীকৃতিতে কিছু যায় আসেনা, আমেরিকার ক্ষমতায় জনমতের প্রতিফলন না ঘটলে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় হস্তক্ষেপ করবে বাংলাদেশ।
Total Reply(0)
কামাল ২৫ নভেম্বর, ২০২০, ১০:০৪ এএম says : 0
ক্ষণে ক্ষণে ট্রাম্পের মত পরিবর্তন হয় !
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন