ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

মেসির রেকর্ডে রোনালদোর হানা

টানা চারে শেষ ষোলয় বার্সা, সঙ্গী জুভেন্টাস

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজে ক্লাবের মাঠে সবচেয়ে বেশি গোল করা খেলোয়াড়দের তালিকায় এতদিনে এককভাবে শীর্ষে ছিলেন লিওনেল মেসি। গতপরশু রাতে তার কীর্তিতে ভাগ বসিয়েছেন সময়ের আরেক সেরা ফুটবলার ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। ইউরোপের সেরা ক্লাব আসরে ‘হোম ম্যাচে’ দুজনের গোল সংখ্যা এখন সমান ৭০টি।

আলিয়াঞ্জ স্টেডিয়ামে ‘জি’ গ্রুপে ফেরেন্সভারোসের বিপক্ষে ইতালিয়ান পরাশক্তি জুভেন্টাসের ২-১ ব্যবধানের জয়ে ১৯তম মিনিট লক্ষ্যভেদ করেন রোনালদো। ওই গোলের মাধ্যমে সবার উপরে থাকা মেসিকে ছুঁয়ে ফেলেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। হুয়ান কুয়াদ্রাদোর পাসে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের জোরালো শটে জাল খুঁজে নেন ৩৫ বছর বয়সী এই তারকা। রোনালদো পথ দেখালেও আগেভাগে নকআউট পর্বে ওঠার সুযোগ হাতছাড়া হতে বসেছিল। অনেক সুযোগ নষ্টের পরও শেষ পর্যন্ত হাসিমুখে মাঠ ছেড়েছে জুভেন্টাস। আলভারো মোরাতার যোগ করা সময়ের গোলে স্বস্তি পায় ইতালিয়ান জায়ান্টরা। তার আগে মির্তো উজিনির গোলে পিছিয়ে পড়ে জুভেন্টাস।
একই রাতে বার্সেলোনার খেলা থাকলেও বিশ্রামে ছিলেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড মেসি। তাকে ছাড়াই ডায়নামো কিয়েভের মাঠে ৪-০ গোলের বড় জয় পেয়েছে স্প্যানিশ জায়ান্টরা। লা লিগায় ভুগলেও এদিন অন্য চেহারায় দেখা গেছে বার্সাকে। মেসিসহ প্রথম পছন্দের বেশ কয়েকজনকে ছাড়াই তারা ধরে রাখলো জয়ের ধারা। মৌসুমে প্রথমবারের মতো শুরুর একাদশে নামা স্ট্রাইকার মার্টিন ব্রাথওয়েট করেন জোড়া গোল। একটি করে গোল করেন আঁতোয়ান গ্রিজমান ও সার্জিনো ডেস্ট।
লা লিগায় অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে হেরে যাওয়া দল থেকে সাতটি পরিবর্তন আনেন কুমান। প্রায় দ্বিতীয় সারির দল নিয়েও আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে বার্সেলোনা। ক্যাম্প ন্যু’য়ে প্রথম লেগে প্রতি-আক্রমণে বার্সেলোনাকে কাঁপিয়ে দিয়েছিল ডায়নামো। ঘরের মাঠে তাদের প্রতি-আক্রমণগুলো ছিল ধারহীন। বেশিরভাগই রুখে দিয়েছে নতুন চেহারার রক্ষণ। জেরার্ড পিকে, সার্জিও রবের্তো, জর্ডি আলবাদের অনুপস্থিতি বুঝতেই দেননি অস্কার মিনগেসা, জুনিয়র ফিরপো ও ডেস্ট।
তবে প্রথমার্ধে ৭৩ শতাংশ সময় বল পায়ে রাখলেও পরিষ্কার কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি তারা। বেশিরভাগ সময় ২১ জন খেলোয়াড় ছিলেন এক অর্ধে। পুরোপুরি রক্ষণাত্মক ফুটবল খেলা দিনামোর রক্ষণ ভাঙার সৃজনশীলতা দেখাতে পারেননি ফিলিপে কৌতিনিয়ো, পেদ্রি, ফ্রান্সিসকো ত্রিনকাওরা। চানা চার জয়ে শীর্ষে থেকেই শেষ ষোল নিশ্চিত করে মেসির দল।
চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি গোল করার রেকর্ডও রোনালদোর দখলে। তার নামের পাশে রয়েছে ১৩১ গোল। অর্থাৎ বাকি ৬১ গোল তিনি করেছেন প্রতিপক্ষের মাঠে। ‘অ্যাওয়ে ম্যাচে’ এত গোল করার কীর্তি নেই আর কারও। দ্বিতীয় স্থানে থাকা মেসি সবমিলিয়ে করেছেন ১১৭ গোল। অর্থাৎ প্রতিপক্ষের মাঠে তার গোল সংখ্যা ৪৭টি।
মেসির সবগুলো গোল এসেছে বার্সেলোনার জার্সিতে। আর রোনালদো চারটি ভিন্ন ক্লাবের হয়ে গোল উৎসব করেছেন। স্বদেশি ক্লাব এফসি পোর্তো, ইংলিশ পরাশক্তি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও সফলতম স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে তাক লাগানোর পর তিনি যোগ দিয়েছেন জুভেন্টাসে।
টানা চার জয়ে পূর্ণ ১২ পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে রোনাল্ড কোমানের দল। শেষ ষোলোতে তাদের সঙ্গী হওয়া জুভেন্টাসের অর্জন ৯ পয়েন্ট। ইউরোপ সেরার মঞ্চে পরের পর্বে ওঠার আনন্দের পাশাপাশি জুভেন্টস শিবিরে যোগ হলো স্বস্তিও। সিরি ‘আ’য় এখন পর্যন্ত টানা দুই ম্যাচ জিততে পারেনি নিজেদের খুঁজে ফেরা দলটি, চ্যাম্পিয়ন্স লিগে মিলল সেই স্বাদ। সমান ১ করে পয়েন্ট পাওয়া ডায়নামো ও ফেরেন্সভারোসের লড়াই এখন ইউরোপা লিগে জায়গা পাওয়ার।
একই রাতে অনেকটা সময় এগিয়ে থেকেও রেনের বিপক্ষে পয়েন্ট হারানোর শঙ্কায় পড়েছিল চেলসি। পার্থক্য গড়ে দিলেন বদলি নামা অলিভিয়ে জিরুদ। তার শেষ মুহূর্তের গোলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্বে উঠেছে ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের দল। প্রতিপক্ষের মাঠে ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে ২-১ গোলে জিতেছে ইংলিশ দলটি। ক্যালাম হাডসন-ওডোইয়ের গোলে তারা এগিয়ে যাওয়ার পর সমতা টানেন গিহাসি।
গ্রুপের আরেক ম্যাচে ক্রাসনোদারকে একই ব্যবধানে হারিয়ে শেষ ষোলোর টিকেট নিশ্চিত করেছে সেভিয়াও। স্প্যানিশ দলটিরও জয়সূচক গোল এসেছে যোগ করা সময়ে। ইভান রাকিটিচের গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর ক্রাসনোদারকে সমতায় ফেরান ভেন্ডারসন কাম্পোস। শেষ বাঁশি বাজার আগে সেভিয়ার সেইভিয়র মুনির আল হেদ্দাদি। চার ম্যাচে তিন জয় ও এক ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে চেলসি। সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল পার্থক্যে দুইয়ে সেভিয়া। রেন ও ক্রাসনোদারের ১ পয়েন্ট করে।

এক নজরে ফল
রেনে ১-২ চেলসি
ক্রাসনোদার ১-২ সেভিয়া
ডায়নামো ০-৪ বার্সেলোনা
জুভেন্টাস ২-১ ফেরেন্সভারোস

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন