ঢাকা সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৪ মাঘ ১৪২৭, ০৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

হায়দরাবাদ হবে ভাগ্যনগর নাম পরিবর্তনে যোগীর উস্কানির সমালোচনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

আগামীকাল ১ ডিসেম্বর ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় ঐতিহাসিক নগরী বৃহৎ হায়দরাবাদ পৌরসভার ১৫০টি আসনের নির্বাচন। সেই নির্বাচনের আগে আসাদউদ্দিন ওয়েইসির খাস তালুক দখলে কোনোরকম কসুর করছে না বিজেপি। গত শনিবার দলের হয়ে ভোট প্রচারে হায়দরাবাদে সভা করেছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। সেখানে তিনি ফের একবার হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তনের প্রসঙ্গটি তোলেন। এলাহাবাদ, ফয়েজাবাদের যেমন নাম পরিবর্তন হয়েছে, হায়দরাবাদের কেন হবে না? এমনই মন্তব্য করেন আদিত্যনাথ। এর আগেও এ ধরনের মন্তব্য করেছিলেন তিনি।
সভায় তাকে বলতে শোনা যায়, ‘অনেকেই আমাকে জিজ্ঞাসা করেন, হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তন করে ভাগ্যনগর রাখা হবে কি না? আমার জবাব-কেন হবে না! বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর ফয়েজাবাদের নাম বদলে অযোধ্যা রাখা হয়েছে, এলাহাবাদের নাম বদলে প্রয়াগরাজ করা হয়েছে। তাহলে কেন হায়দরাবাদের নাম বদলে ভাগ্যনগর রাখা হবে না’। তার এ বক্তব্যের পরই ফের একবার বিতর্ক দেখা দিয়েছে। সমালোচনায় মুখর হয়েছেন নেটিজেনরাও।
পাল্টা জবাবে আসাদউদ্দিন ওয়েইসি বলেছেন, ‘হায়দরাবাদের নাম যারা বদলাতে চাইছেন তাদের বলি, প্রজন্ম শেষ হয়ে যাবে, তাতেও নাম বদলাবে না। ওয়েইসি একধাপ এগিয়ে যোগীর পাল্টা বার্তায় বলেন, ‘আমরা তোমার নাম পাল্টে দেব’। এদিন আসাদউদ্দিন ওয়েইসি একটি জনসভায় বার্তা রাখতে গিয়ে বলেন, ‘আমি ভোটারদের বলছি, যারা হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তন করতে চান সেই মানুষদের ভোটে জবাব দিতে হবে’। এক্ষেত্রে তিনি সাফ ভাষায় বিজেপিকে টার্গেট করেন।
স্থানীয় নির্বাচনে কেন্দ্রের শাসকদলের আগ্রাসী মনোভাব খুব একটা দেখা যায় না। কিন্তু বৃহৎ হায়দরাবাদ পুরনিগমের নির্বাচনের আগে চূড়ান্ত আগ্রাসী মনোভাবই দেখাচ্ছে বিজেপি। ভাবখানা এমন যেন যেভাবেই হোক, দক্ষিণের এ মহাগুরুত্বপূর্ণ শহরের শাসনভার তাদের দখল করতেই হবে।
গতবার নির্বাচনে তেলেঙ্গানার শাসক টিআরএস ৯৯টি এবং আসাদউদ্দিন ওয়েইসির এআইএমআইএম ৪৪টি আসন পেয়েছিল। বিজেপি-টিডিপি জোট পেয়েছিল মাত্র ৪টি আসন। দুটি আসন গিয়েছিল কংগ্রেসের দখলে। কিন্তু এবারে ছবি অন্য। বিজেপি প্রায় সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপিয়েছে এ পুরনিগম দখল করতে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ছাড়া বিজেপির শীর্ষস্তরের সব নেতাই প্রচার সেরে ফেলেছেন হায়দরাবাদে।
তেলেঙ্গানা রাজ্য বিজেপির সভাপতি বান্দি সঞ্জয় সিং বেশ কিছুদিন ধরেই চার মিনারের শহরে ঘাঁটি গেড়ে পড়ে রয়েছেন। বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি তেজস্বী সূর্য প্রচারে গিয়ে হায়দরাবাদকে রোহিঙ্গা এবং পাকিস্তানি অনুপ্রবেশকারীদের আস্তানা বলে তোপ দেগে এসেছেন। একই তোপ দেগেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিষেণ রেড্ডি। এরপর শুক্রবার প্রচারে গিয়েছিলেন জেপি নাড্ডাও। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
Ziaur Rahman ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ১:৪৮ এএম says : 0
এই বেয়াদবের সংবাদ প্রচার করা ঠিকনা।
Total Reply(0)
দুলাল ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ২:২০ এএম says : 0
এই ধরনের মুসলীমবিদ্ধেষীদের কারণে ভারত পিছিয়ে পরছে
Total Reply(0)
সাইফুল ইসলাম ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ২:২১ এএম says : 0
হে আল্লাহ এদের হাত থেকে ভারতীয় মুসলমানদের তুমি হেফাজত করো।
Total Reply(0)
নওরিন ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ২:২২ এএম says : 0
এভাবে চলতে থাকলে খুব শিঘ্রই ভারত কয়েক ভাগ হয়ে যাবে
Total Reply(0)
আজিজ ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ২:২২ এএম says : 0
এবার আবার সাম্যের কথা বলে, শান্তির কথা বলে .........................
Total Reply(0)
salman ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ৫:৩৬ এএম says : 0
Murti Pujari, JOGI, tui DHONGSHO hoo, tor 14 Gosti Dhongsho hok, Tor JOBAN Dhongsho hok, MOWLO-BADI BJP Dhongsho hok....Ameen
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন