ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০২ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

মহানগর

আলেমদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুভ লক্ষণ নয় -ইত্তেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ৭:২০ পিএম | আপডেট : ৭:২১ পিএম, ৩০ নভেম্বর, ২০২০

ইসলাম বিদ্বেষী একটি মহল দেশের মধ্যে অরাজকতা সৃষ্টির জন্য বাংলাদেশের সর্বজনশ্রদ্ধেয় দুই ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব মরহুম শাইখুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক ও মরহুম সৈয়দ ফজলুল করিম পীর সাহেব চরমোনাই এর বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ ও জঘন্য কটূক্তি করে যাচ্ছে। অথচ এ দুই শ্রদ্ধেয় ব্যক্তির স্বাধীনতা সংগ্রামে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে। দেশ ও ইসলাম বিরোধী সকল ষড়যন্ত্রের মোকাবেলায় তাদের অবদান চির স্মরণীয়। যারা এই দুই ব্যক্তির নামে কুৎসা রটনা করে দেশে সাম্প্রদায়িক অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির পাঁয়তারা করে যাচ্ছে তাদের বিষয়ে সরকারকে দ্রুত প্রদক্ষেপ নিতে হবে। অন্যথায় যে কোনো অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে এর দায়-দায়িত্ব সরকারকেই বহন করতে হবে। আজ সকালে মুহাম্মদপুরে জামিয়া মুহাম্মাদিয়া আরাবিয়ার প্রিন্সিপাল আল্লামা আবুল কালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ইত্তেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া মুহাম্মদপুরের এর বৈঠকে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। 

বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন, জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়ার প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহফুজুল হক, জামিয়া ইসলামিয়া লালমাটিয়ার প্রিন্সিপাল মাওলানা ফারুক আহমাদ, জামিয়া ইসলামিয়া বায়তুল ফালাহÑএর প্রিন্সিপাল মাওলানা মুহাম্মদ তালহা, জামিআ ইসলামীয়া আশরাফুল মাদারিস এর মুহতামিম মাওলানা মুহাম্মদ ইসমাঈল, জামিয়া ওয়াহিদিয়া এর প্রিন্সিপাল মাওলানা যোবায়ের, জামিআ রাহমানিয়ার শিক্ষা সচিব মাওলানা আশরাফুজ্জামান, জমিআ ইসলামীয়া বায়তুল ফালাহ এর ভাইস প্রিন্সিপাল ও শিক্ষাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ, জামিয়া মুহাম্মাদিয়া আরাবিয়ার ভাইস প্রিন্সিপাল মাওলানা মোহাম্মাদ ফয়সাল, বাইতুল আমান আদাবরহ এর প্রিন্সিপাল মুফতি মাহমুদুর রহমান, আদাবর আহসানুল উলূম মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা আমির হোসেন, বায়তুল জান্নাতের মুহতামিম মুফতি ফারুক হোসাইন, আন নূর নৈশ মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা জুবায়ের মাজাহিরি, মাওলানা অলিউল্লাহ, মাওলানা মোবারক হোসেন ও মুফতি মাসিহুর রহমান।
নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, আল্লাহর সঙ্গে শিরক করা ঈমানের সাথে সাংঘর্ষিক। প্রত্যেক নবী ও রাসুল ভাষ্কর্য ও মূর্তির বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছেন। একজন মুসলিম হিসেবে আমরাও ভাস্কর্য বা মূর্তির বিষয়ে কথা বলছি। সরকারের কল্যাণকামী হিসেবে ভাস্কর্য বা মূর্তির বিষয়ে আলেম উলামারা সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। কিন্তু এ ঈমানী দায়িত্বকে একটি গোষ্ঠী অন্যখাতে প্রবাহিত করতে আল্লামা মামুনুল হকসহ ইসলামী ব্যক্তিদের ওয়াজ মাহফিল বন্ধ করে দিচ্ছে। সরকার দলীয় অংগ সংগঠনরে নেতৃবৃন্দ আলেম উলামা বিশেষ করে আল্লামা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে লাগামহীন, অসন্মাজনক ও উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছে। যা দেশের জন্য শুভ লক্ষণ নয়। এধরণের বক্তব্য ও অপতৎপরতা বন্ধে সরকারকে দ্রুত প্রদক্ষেপ নিতে হবে।
নেতৃদ্বয় বলেন, আমরা মূর্তির বিরুদ্ধে কথা বলেই যাবে। এটা আমাদের ঈমানী দায়িত্ব। আমরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানরে বিরোধী নই। তিনি বাংলাদেশের স্থপতি ও একজন মুসলিম নেতা হিসেবে আমরা তার রূহের মাগফিরাত কামনা করি। একে কেন্দ্র করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের পরিণত ভালো বয়ে আনবে না।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
মিসবাহুল ইসলাম ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ৯:০২ পিএম says : 0
ইসলামী নেতৃবর্গ কোন ইস্যু নিয়ে কথা বলিলেই সেটাকে সাম্প্রদায়িকতা বলে ইস্যুটিকে দুর্বল করে দেয়ার অপচেষ্টা করে এক শ্রেণির লোক অথচ এই মূর্তি সাংস্কৃতি দেশের বিশাল মুসলিম জনগোষ্ঠীর আদর্শের সাথে যায়না সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম সমাজ কোন মূর্তি নির্মাণের পক্ষে নয় এই বলিষ্ঠ দাবিটি "ইনকিলাব" সহ অন্যান্ন মিডিয়া সমুহ সাব্যস্ত করতে ব্যর্থ হয়েছে।
Total Reply(0)
Mesbahul islam ৩০ নভেম্বর, ২০২০, ৯:০৩ পিএম says : 0
ইসলামী নেতৃবর্গ কোন ইস্যু নিয়ে কথা বলিলেই সেটাকে সাম্প্রদায়িকতা বলে ইস্যুটিকে দুর্বল করে দেয়ার অপচেষ্টা করে এক শ্রেণির লোক অথচ এই মূর্তি সাংস্কৃতি দেশের বিশাল মুসলিম জনগোষ্ঠীর আদর্শের সাথে যায়না সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম সমাজ কোন মূর্তি নির্মাণের পক্ষে নয় এই বলিষ্ঠ দাবিটি "ইনকিলাব" সহ অন্যান্ন মিডিয়া সমুহ সাব্যস্ত করতে ব্যর্থ হয়েছে।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন