ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ঝালকাঠি পৌরসভার ২২ কর্মচারী সাময়িক বরখাস্ত

মেয়রের স্বাক্ষর জাল করে টাকা উত্তোলন

ঝালকাঠি জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

ঝালকাঠি পৌরসভার মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদারের স্বাক্ষর জাল করে ব্যাংকের ভবিষ্যত তহবিল হিসাব (প্রভিডেন্ট ফান্ড) থেকে ১৮ লাখ ২১ হাজার টাকা উত্তোলনের অভিযোগে ২২ কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে পৌর মেয়র সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রদান করেন। 

এ ঘটনায় পৌর মেয়রের নির্দেশে ১১ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। কমিটি ঘটনার সত্যতা উল্লেখ করে গত ২৩ নভেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে মেয়রের কাছে। ২৪ নভেম্বর কর্মচারীদের মেয়র শোকজ করে ২৬ নভেম্বর সকাল ১০টার মধ্যে জবাব জানতে চান। অভিযুক্ত কর্মচারীরা লিখিতভাবে তাদের জবাব দিলে, তা সন্তোষজনক না হওয়ায় পৌরসভায় জরুরি সভা করে তাদের সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ।
পৌর মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদার জানান, পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীদের ভবিষ্যত তহবিল (প্রভিডেন্ট ফান্ড) নামে রূপালী ব্যাংক ঝালকাঠি শাখায় একটি হিসাব আছে। এতে কর্মচারীদের বেতনের ১০ ভাগ এবং পৌরসভার ১০ ভাগসহ মোট ২০ ভাগ টাকা এ হিসাবে জমা হয়। বিধিঅনুযায়ী এ টাকা কর্মচারীরা চাকরি থেকে অবসর নেয়ার সময় পেয়ে থাকেন। অথবা কারো জরুরি প্রয়োজনে মেয়রের কাছে আবেদন করে পৌরসভা থেকে ওই হিসাবের টাকা ঋণ নিতে পারেন। ব্যাংকের হিসাব থেকে এ টাকা উঠাতে চেকে মেয়র এবং সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর যৌথ স্বাক্ষর প্রয়োজন। ২০১৬ সালের ১৭ এপ্রিল থেকে এ পর্যন্ত মোট ১০৪টি চেকে মেয়রের স্বাক্ষর জাল করে ১৮ লাখ ২১ হাজার টাকা উঠায় ২২ কর্মচারী।
এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন, ভবিষ্যত তহবিল থেকে মেয়রের স্বাক্ষর জালের ঘটনা ঘটে। ভবিষ্যত ও আনুতোষিক তহবিল হিসাবের ব্যাংক বিবরণীতে এর প্রমাণ মিলেছে। প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়, তদন্ত কমিটির জিজ্ঞাসাবাদে কর্মচারীরা জানায়, ট্রাক হেলপার মিলন হাওলাদার ও মর্তুজ আলী তাদের চেকে স্বাক্ষর করিয়ে এনে দেয়। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হবে বলেও জানিয়েছেন পৌর মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদার।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন