ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

রামগতির নতুন বাজারে সরকারী জমি নিয়ে পেরিফেরী বাণিজ্যের অভিযোগ

রামগতি (লক্ষ্মীপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:৫৪ পিএম

লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে চর পোড়াগাছা ইউনিয়নের নতুন বাজার এলাকায় সরকারী যায়গা পুরনো পেরিফেরী বাতিল ও নতুন নকশা সৃজনের নামে স্থানীয় সেলিম ও হোরন সহ একটি সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে বিশাল অর্থবানিজ্যে এবং প্রতিবাদকারীদের উপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।দীর্ঘ দিন ধরে সরকারের এক নং খাস খতিয়ানভুক্ত এই জমি নিয়ে ঐএলাকায় দু পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে।প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত হয়ে দোকান মালিক নান্নু বর্তমানে উপজেলা ৩১ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

জানা যায়, নুরুল ইসলাম মাঝির ছেলে সেলিম ও জনৈক হোরন স্বনামে-বেনামে এবং জোরপূর্বক যায়গা দখল করে একসনা ইজারার নীতিমালা লংগন করে সেখানে গড়ে তুলেছে বহুতল ভবন। যা ইতিপূর্বে রামগতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও বুলডোজার দিয়ে ভেঙ্গে দিয়েছেন। এ ছাড়া নতুন পেরীফেরীর কথা বলে তারা দোকান মালিকদের কাছ থেকে জনপ্রতি ১০/১৫ হাজার টাকা করে তুলে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তাদের কাজে বাঁধা হয়ে দাঁড়ানোর কারনে দোকান মলিক নান্নুসহ বেশ কয়েকজনের উপর হামলা করে গুরুতর রক্তাক্ত ও জখম করেন তারা।

এদিকে ভূক্তভোগী দোকান মালিক নানাুসহ অনেকে নতুন ফেরীফেরী নকসা বাতিল করে পুরনো দোকান মালিকদের হাল সনের জন্য বন্দোবস্ত দেয়ার দাবীতে জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।অভিযোগে উল্লেখ করেন নতুন বাজার এলাকায় সেলিম, হোরন সহ কতিপয় ভূমিদস্য ক্ষমতাসীন দলের কয়েক নেতা সহ গড়ে তোলে ভূমিদস্যু সিন্ডিকেট। এ চিহ্নিত ভূমিদস্যু চক্র দ্বীর্ঘদিন থেকে ঐ এলাকার সরকারী খাস জমি নিজেদের দাবী করে সাধারণ মানুষের কাছে বিক্রি করে আসছে । এরই মধ্যে নতুন বাজারে জলাশয়ের দুইধারে সরকারের ১ নং খাস খতিয়ানভূক্ত কিছু যায়গা অবৈধভাবে দখল করে সেখানে বহুতল ভবন নির্মাণ করে এ চক্রটি। সেখানে সাধারন কিছু লোক বৈধ ভাবে পূর্বে পেরীফেরীকালীন সময়ে একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে দোকান নির্মাণ করে ব্যবসা করে আসছিল। স্থানীয় চোর ডাকাতসহ কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি অসাধু ভূমি কর্মকর্তাদের যোগসাজসে নতুন নকসা সৃজন করে তাদের নামে বন্দোবস্তের পাঁয়তারা করছে। এতে করে সেখানে ব্যবসা করা দোকানদাররা সরকারী ও জোরদারদের উচ্ছেদ আতংকে রয়েছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন।

ভূক্তভোগী দোকান মালিক নান্নুসহ অনেকে জানান, আমরা ন্যায় বিচার পাইতে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ দায়ের করি।

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার রামগতি (ভূমি) সুচিত্র রঞ্জন দাস বলেন, এ ধরণের কোন কিছু আমার জানা নেই। ভূমি নিয়ে কেউ অনিয়ম করে থাকলে বা অবৈধ দখল করে রক্তপাত করা হলে তা বরদাশত করা হবেনা।প্রয়োজনে তা কঠোর হস্তে দমন করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন