ঢাকা, বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৯ আষাঢ় ১৪২৮, ১১ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থীর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০২০, ১২:৫৯ পিএম

রাতে সব ছাত্রদের সঙ্গে হাসিব ঘুমিয়ে পড়ে। কিন্তু সকালে তার লাশ পড়ে মাদ্রাসার পেছনে। ১০ বছরের একটি শিশু কুপিয়ে হত্যা করে লাশ ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা।

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে হাসিব শেখ (১০) নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার সকালে মোরেলগঞ্জ উপজেলার নব্বইরশি বাসস্ট্যান্ডের কাছে রহমতিয়া শিশু সদন হাফেজী ও কওমী মাদ্রাসার পেছন থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

শিশুটিকে দুর্বৃত্তরা মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে হত্যা করেছে বলে পুলিশ ধারণা করছে। তবে কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড তা পুলিশ নিশ্চিত হতে পারেনি।

হাসিব জেলার মোরেলগঞ্জ পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের বারইখালী এলাকার সোবাহান শেখের ছেলে।

সে রহমতিয়া শিশু সদন হাফেজী ও কওমী মাদ্রাসার নাজেরানা কোরআন বিভাগের শিক্ষার্থী ছিল এবং মাদ্রাসায় থেকে আবাসিক ছাত্র হিসেবে পড়ালেখা করত।

মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম জানান, রোববার সকালে শিক্ষার্থীরা তাদের মাদ্রাসার পেছনে সহপাঠী হাসিবের মরদেহ মাটিতে পড়ে থাকতে দেখে মাদ্রাসার শিক্ষকদের জানায়।

মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হাসিবের লাশ উদ্ধার করে। তার মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষতের চিহ্ন রয়েছে।

ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, ইট দিয়ে তার মাথাসহ বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে হত্যা করে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। কারা কি কারণে এই শিশুটিকে হত্যা করেছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, শনিবার রাতে হাসিব সহপাঠীদের সঙ্গে রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। সকালে সহপাঠীরা তাকে তাদের কক্ষে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। পরে তারা মাদ্রাসার পেছনে মাটিতে হাসিবের লাশ দেখতে পায়।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হচ্ছে বলে জানান ওসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন